• শুক্রবার ( সকাল ৮:০৬ )
    • ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং

আফগানিস্তানে বিয়ের অনুষ্ঠানে হামলাঃ নিহত ৬৫

অনলাইন ডেস্কঃঃ

যুদ্ধবিদ্ধস্ত আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে একটি বিয়ের অনুষ্ঠানে  আত্মঘাতি বোমা হামলায় ৬৩ জন নিহতের ঘটনায় দায় স্বীকার করেছে জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেট (আইএস)। হামলার ঘটনায় ১৮০ জনের বেশি লোক আহত হয়।

আইএস টেলিগ্রাম বার্তায় হামলার দায় স্বীকার করে। শিয়া অধ্যুষিত এই অঞ্চলে হামলার ঘটনা ঘটে। তাৎক্ষণিকভাবে তালেবান এই হামলার দায় অস্বীকার করে উদ্বেগ প্রকাশ করে। তবে দেশটির প্রেসিডেন্ট আশরাফ গানি বলেছেন, হামলার দায় তালেবান এড়াতে পারে না।যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে শান্তি আলোচনা চলাকালে এমন হামলায় ভাবমূর্তি সংকটে পড়েছে তালেবান।

এর আগে ২০১৭ সালেও কাবুলে আইএসের কয়েকটি বোমা বিস্ফোরণের ঘটনায় অন্তত ৪০ জন নিহত হয়।সে সময় সংখ্যালঘু শিয়াদের একটি সাংস্কৃতিক কেন্দ্র ও একটি সংবাদমাধ্যমের কার্যালয় হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়।তার কয়েকদিন আগে কাবুলে গোয়েন্দা সংস্থার কার্যালয়ের কাছে এক আত্মঘাতী বোমা হামলায় ছয়জন সাধারণ নাগরিক প্রাণ হারান৷ তথাকথিত ইসলামিক স্টেট বা আইএস এই হামলার দায় স্বীকার করেছিল৷একই বছরের মে মাসের ৩১ তারিখে কাবুলের কূটনীতিক এলাকায় এক ট্রাক বোমা হামলায় প্রায় দেড়শ’ জন প্রাণ হারিয়েছিলেন৷ আহত হয়েছিলেন প্রায় চারশ’ জন৷ হতাহতদের বেশিরভাগই ছিলেন সাধারণ মানুষ৷

সাম্প্রতিক সময়ে এই জঙ্গি গোষ্ঠীটি আফগানিস্তানে প্রভাব বিস্তারের চেষ্টা করছে৷ ২০১৫ সালে প্রথম তাদের আফগানিস্তানে দেখা গিয়েছিল৷এই আইএসের উত্থান নিয়ে নানা রহস্য রয়েছে।ইরানের অভিযোগ যুক্তরাষ্ট্র এই জঙ্গি সংগঠনকে জন্ম দিয়েছে এবং ইরাক ও সিরিয়া থেকে বিতাড়িত হওয়ার পর যুক্তরাষ্ট্রই তাদেরকে আফগানিস্তানে পুণর্বাসন করে।

তবে তালেবানের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের বর্তমান শান্তি আলোচনায় তারা সম্পৃক্ত না। তারা এই আলোচনার ঘোর বিরোধী।

রুশ-আফগান যুদ্ধের পর নব্বইয়ের দশকে আফগানিস্তান তালেবানদের নিয়ন্ত্রণে চলে যায়। ২০০১ সালের সেপ্টেম্বরে যুক্তরাষ্ট্রের টুইন টাওয়ারে হামলার পর আল-কায়েদাকে দায়ী করে যুক্তরাষ্ট্র। পরে আল কায়েদা নেতা ওসামা বিন লাদেনকে ধরতে তালেবান নিয়ন্ত্রিত আফগানিস্তানে হামলা চালায় ন্যাটো বাহিনী। সেই থেকে দীর্ঘ প্রায় দুই দশকের যুদ্ধে বিধ্বস্ত প্রায় আফগানিস্তান। তবে এতোদিনের যুদ্ধের পরও তালেবান দেশটির বেশির ভাগ অংশ নিয়ন্ত্রণ করছে। প্রায়শই তারা তাদের অধিকার ধরে রাখার জন্য শক্তিশালী অবস্থান জানান দিতে বিরোধী মতের উপর হামলা চালিয়ে থাকে।।

ক্রাইম ডায়রি//আন্তর্জাতিক//সুত্রঃঃ বিবিসি ও অনলাইন সংবাদমাধ্যম

80total visits,2visits today

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *