• রবিবার (সকাল ৬:৪৪)
    • ২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

চাকরির চেয়েও বেশি টাকা ঘরে বসে পাবে পাটকল শ্রমিকরা

 

শরীফা আক্তার স্বর্নাঃ

এদেশের মাটি ও মানুষের হৃদয়ে মিশে আছে পাট। সোনালী আঁশের হঠাৎই যেন দূর্দিন শুরু হয়ে গেল। পলি দ্রব্য ব্যবহার করে যখন সোনালী আঁশকে মানুষ ভূলতে শুরু করেছে তখনই বিশ্ববাসী বুঝতে পারলো তাদের দূর্গতি।।পুরো পৃথিবীর ফুসফুসকে ধ্বংসের মুখে ঠেলে দিয়েছে পলির ব্যবহার। জমির আবাদি সক্ষমতাকে করে দিয়েছে নিঃশ্বেস। তাই,আবারো পৃথিবীবাসীরা ঝুঁকছে পাটের দিকে। পাটজাত দ্রব্য ব্যবহার করে আবারো ফিরে পাওয়া হৃত গৌরব। এরই মধ্যে দেশ জুড়ে বন্ধ হয়ে গেছে অসংখ্য পাটকল। বন্ধ হয়ে যাওয়া রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল শ্রমিকরা হয়ে পড়েছে বেকার।। নানান আন্দোলন সংগ্রামের পর সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পাটকল শ্রমিকদের উন্নয়নের জন্য। এখন একজন শ্রমিক চাকরি অবস্থায় মাসে যে মজুরি পেত তার চেয়ে বেশি টাকা মুনাফা হিসেবে ঘরে বসে পাবে। তবে এ টাকা প্রতি তিন মাস অন্তর অন্তর তুলতে পারবে।

বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদের বাজেট অধিবেশনের সমাপনী বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা আমাদের পাটের যারা শ্রমিক, তাদের যে মজুরির টাকা পাওনা ছিল, সব মিটিয়েও তারা যেন সুখে থাকে সেজন্য আমরা একবারে প্রায় পাঁচ হাজার কোটি টাকা (বরাদ্দ দিয়েছি)। সেখানে সব টাকা তাদের হাতে দেব না। কারণ নগদ টাকা দিয়ে দিলে তখন দেখা যাবে মেয়ের জামাই, ভাই, ভাতিজা, আত্মীয়-স্বজন সব এসে হুমড়ি খেয়ে পড়বে এবং ভাগ চাইবে’।

নানান আন্দোলন সংগ্রামের পর সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পাটকল শ্রমিকদের উন্নয়নের জন্য। এখন একজন শ্রমিক চাকরি অবস্থায় মাসে যে মজুরি পেত তার চেয়ে বেশি টাকা মুনাফা হিসেবে ঘরে বসে পাবে। তবে এ টাকা প্রতি তিন মাস অন্তর অন্তর তুলতে পারবে।

তিনি বলেন, ‘আমি বলেছি অর্ধেকটা সঞ্চয়পত্র করে দেব। পারিবারিক সঞ্চয়পত্র, যেখানে তারা ১১ শতাংশের মতো পাবে। সেখানে ভালো টাকা প্রতি তিন মাস অন্তর মুনাফাভিত্তিক পাবে, যা প্রতিদিন সে কাজ করে মাসে মজুরি পেত, তার চেয়ে বেশি টাকাই পাবে। সেটা আমরা হিসেব করছি, যা পাওনা ছিল সেটা আমরা সব শোধ করে দেব।’

নতুন করে পাটকলগুলো চালুর পরিকল্পনা তুলে ধরে শেখ হাসিনা বলেন, “আমরা এটাকে নতুনভাবে করব, এখানে যারা আগ্রহী তাদেরকে আমরা আবার ট্রেনিং দেব। ট্রেনিং দিয়ে আধুনিক প্রযুক্তি জ্ঞানসম্পন্ন করে তাদেরকে তৈরি করব। পাটকল চালু হলে অভিজ্ঞতা যাদের আছে, তারাই নতুন করে চাকরি পাবে।”

বাংলাদেশ পাটের জন্মরহস্য উন্মোচন, গবেষণার মাধ্যমে বিভিন্ন পাটজাত পণ্য আবিষ্কারের কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘সেগুলো আমাদের উৎপাদন করতে হবে। সেগুলো আমাদের দেশের কাজে লাগবে, বিদেশে রফতানি হবে।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, পরিবেশ রক্ষার জন্য যেহেতু সিনথেটিক থেকে সকলেই এখন মুক্তি চায় সেখানে পাট হচ্ছে একটা বিকল্প। সেখানে আমাদের একটা বিশাল সম্ভাবনা বিশ্বব্যপী রয়ে গেছে। কিন্তু আমাদের ইন্ডাস্ট্রিগুলোকে সময়োপযোগী করতে হবে, আধুনিক করতে হবে, নতুন করতে হবে।নতুন আঙ্গিকে পাটকলগুলো চালু হলে অভিজ্ঞকর্মীদেরই সেখানে চাকরি হবে, এজন্য তাদেরকে আধুনিক প্রযুক্তির ওপর প্রশিক্ষণও দেয়া হবে।

উল্লেখ্য যে, লোকসানের ঘানি টানতে টানতে সরকার দিশেহারা।  তাই, ২৬টি পাটকল সম্প্রতি বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এজন্য এসব পাটকলের প্রায় ২৫ হাজার শ্রমিককে তাদের পাওনা শতভাগ মিটিয়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। পাশাপাশি, পাটকলগুলোকে আধুনিকায়ন করে নতুন ভাবে চালুর চিন্তা ও পরিকল্পনাও চলছে।

ক্রাইম ডায়রি//জাতীয়

 

Total Page Visits: 66741