• রবিবার (সকাল ৭:০৭)
    • ২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

দূর্নীতির মামলায় খালেদা জিয়ার সাজা নিয়ে রাজনীতি করছে একটি দল–বঙ্গকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

শরীফা স্বর্নাঃ

বঙ্গকন্যা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, দুর্নীতির মামলায় সাজাপ্রাপ্ত বিএনপির চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার সাজাকে আইনি মোকাবেলা করতে না পেরে অনেকেই এটাকে রাজনৈতিক ভাবে রঙ্গিন করে ঘোলা পানিতে মাছ শিকারের চেষ্টা করছে।
ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, ‘এটা কোনো রাজনৈতিক মামলা নয় বরং এটা সম্পূর্ণভাবে দুর্নীতির মামলা। তবে, অনেকেই এটাতে রাজনৈতিক রং মেশাতে চান। আমরা রাজনৈতিক কোনো উদ্দেশ্যে তার বিরুদ্ধে কোনো মামলা দেইনি।’
আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা প্রধান অতিথি হিসেবে রাজধানীর ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, কবুতর ও বেলুন উড়িয়ে ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনের উদ্বোধন করেন।

খালেদা জিয়ার মামলা প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এতিমের জন্য আসা টাকা তাদের না দিয়ে খালেদা জিয়ার নিজের অ্যাকাউন্টে জমা করা হয়েছে।

তখনকার সময় সেনাশাসিত তত্ত্বাবধায়ক সরকার এতিমের টাকা আত্মসাতের ঘটনায় তার বিরুদ্ধে মামলা করেছিল। ‘সে মামলার রায়ে সাজা পেয়ে তিনি এখন জেলে আছেন।’

সম্প্রতি হাইকোর্টের সামনে বিএনপি নেতা-কর্মীদের বাস ভাঙচুরের ঘটনার সমালোচনা করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, কোনো কারণ ছাড়াই তারা হঠাৎ করে এ হামলা করে। ‘বিএনপির নেতা-কর্মীদের জন্য এটা নতুন কিছু নয় তাদের এসব করার অভ্যাস আছে।’

২০১৩, ২০১৪ এবং ২০১৫ সালে বিএনপির সহিংসতার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, বিএনপির নেতা-কর্মীরা দেশের মানুষ ও সম্পদের ওপর বারবার হামলা চালিয়েছে।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি আওয়ামী লীগের সভাপতি হাজী আবুল হাসনাতের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের ও ঢাকা উত্তর সিটি আওয়ামী লীগের সভাপতি একেএম রহমতউল্লাহ বক্তব্য দেন।

ঢাকা উত্তর সিটি আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাদেক খান ঢাকা সিটির প্রতিবেদন তুলে ধরেন এবং ঢাকা দক্ষিণ সিটি আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন।

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি কপোরেশনের মেয়র সাঈদ খোকন অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন। অবিভক্ত ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সর্বশেষ সম্মেলন ২০১২ সালের ২৭ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হয়।
এ সময় আওয়ামিলীগ ছাড়াও এর অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরাও উপস্থিত ছিলেন।

ক্রাইম ডায়রি//জাতীয়

Total Page Visits: 66745

গাইবান্ধার সাবেক এমপি লিটন হত্যা মামলার রায় ঘোষনাঃ সাবেক এমপি কাদেরসহ সাতজনের ফাঁসি

গাইবান্ধা অফিসঃ

অবশেষে বহুল আলোচিত গাইবান্ধা-১ (সুন্দরগঞ্জ) আসনের আওয়ামী লীগের সাবেক সংসদ সদস্য মঞ্জুরুল ইসলাম লিটন হত্যা মামলায় রায় ঘোষনা করেছেন আদালত। এ রায়ে সাবেক সংসদ সদস্য আবদুল কাদের খানসহ সাতজনের ফাঁসির আদেশ দেয়া হয়েছে । ২৮ নভেম্বর, ২০১৯  ইং বৃহস্পতিবার  দুপুর পৌনে ১২টার দিকে এ রায় দেন গাইবান্ধা জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক দিলীপ কুমার ভৌমিক।

যাদেরকে ফাঁসির দণ্ড দেয়া হয়েছে তারা হলেন- হত্যাকাণ্ডের মূল পরিকল্পনাকারী জাতীয় পার্টির সাবেক এমপি আবদুল কাদের খান, তার ভাতিজা মেহেদি, পিএস শামছুজ্জোহা, গাড়িচালক আব্দুল হান্নান, ডিস ব্যবস্যায়ী শাহিন, রানা ও চন্দন কুমার রায়। এদের মধ্যে চন্দন কুমার ভারতে পলাতক রয়েছেন। অন্য আসামীর মধ্যে হত্যাকাণ্ডের মূল পরিকল্পনাকারী কাঁদের খান, তার পিএস শামছুজ্জোহা, গাড়িচালক হান্নান, ভাতিজা মেহেদি, ডিস ব্যবস্যায়ী শাহীন ও রানা জেলা কারাগারে রয়েছেন।

২০১৬ সালের ৩১ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় সুন্দরগঞ্জের বামনডাঙ্গার মাস্টারপাড়ার নিজ বাড়িতে দুর্বৃত্তদের গুলীতে নিহত হন গাইবান্ধা-১ আসনের তৎকালীন আওয়ামীলীগের  এমপি মঞ্জুরুল ইসলাম লিটন।
এমপি লিটন হত্যাকাণ্ডের পর দুটি মামলা করে পুলিশ। এর মধ্যে একটি অস্ত্র ও অপরটি হত্যা মামলা। অস্ত্র মামলায় একমাত্র আসামী ওই আসনের জাতীয় পার্টির সাবেক এমপি আবদুল কাদের খানকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন আদালত।
পাশাপাশি হত্যা মামলার তদন্ত শেষে জাতীয় পার্টির সাবেক এমপি কাদের খানসহ আটজনের বিরদ্ধে ২০১৭ সালের ৩০ এপ্রিল আদালতে অভিযোগপত্র দেয় পুলিশ। বৃহস্পতিবার হত্যা মামলার রায়ে কাদের খানসহ সাতজনকে ফাঁসির আদেশ দেন বিচারক। মামলার আট নম্বর আসামী কসাই সুবল সম্প্রতি কারাগারে অসুস্থ অবস্থায় মারা যান।
২০১৮ সালের ৮ এপ্রিল প্রথম দফায় আলোচিত এ মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হয়। বাদী, নিহতের স্ত্রী ও তদন্ত কর্মকর্তাসহ ৫৯ সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ করেছেন আদালত। গত ৩১ অক্টোবর মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ হয়।
চলতি বছরের ১৮ ও ১৯ নভেম্বর যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করেন রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী পিপি শফিকুল ইসলাম শফিক। ২০১৮ সালের ৭ ফেব্রুয়ারি অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন আদালত। রাষ্ট্র ও আসামীপক্ষের আইনজীবীদের ১৮ মাস যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করা হয়।  এরপর  মামলার রায় ঘোষণা করেন বিজ্ঞ আদালত।

ক্রাইম ডায়রি///আদালত

Total Page Visits: 66745

জয়পুরহাটের ক্ষেতলালে ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ঘুষ গ্রহনের অভিযোগঃ দুদকের অভিযান

আতিকুল্লাহ আরেফিন রাসেলঃঃ

সারাদেশে ধারাবাহিকভাবে অভিযানের অংশ হিসেবে  এবং  দুদক এনফোর্সমেন্ট ইউনিটে আগত অভিযোগের প্রেক্ষিতে ২৭-১১-২০১৯ ইং বুধবার জয়পুরহাটের ক্ষেতলাল উপজেলার আলমপুর ইউনিয়ন ভূমি সরকারি কর্মকর্তা বিরুদ্ধে ঘুষ, দুর্নীতি এবং খাজনা গ্রহণে অনিয়ম ও হয়রানির অভিযোগে অভিযান পরিচালনা করেছে দুদক। সমন্বিত জেলা কার্যালয়, বগুড়া হতে আজ এ অভিযান পরিচালিত হয়। দুদক টিম উক্ত দপ্তরে ছদ্মবেশে অভিযান পরিচালনা করে এবং প্রাপ্ত অনিয়মসমূহের বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার, ক্ষেতলাল এর সাথে কথা বলে। ইউএনও জানান, ইতিমধ্যে অভিযুক্ত ইউনিয়ন ভূমি সরকারি কর্মকর্তা (তহসিলদার) এর বিরুদ্ধে একাধিকবার শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। তাঁর কর্মকান্ড অধিকতর নজরদারিতে রাখার জন্য টিম সুপারিশ প্রদান করে। একই টিম সড়ক নির্মাণে অনিয়মের অভিযোগে আরেকটি অভিযান পরিচালনা করেছে।

দুদক সুত্রে জানা গেছে,  এ রকম অভিযান অব্যহত থাকবে।

ক্রাইম ডায়রি//আদালত//ক্রাইম

Total Page Visits: 66745

আদালত প্রাঙ্গনে হোলি আর্টিজান আসামীর টুপি আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু

আদালত প্রতিবেদকঃ

হোলে আর্টিজান হামলার ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি রাকিবুল হাসান রিগ্যান বুধবার আদালত চত্বরে যেভাবে দীর্ঘ সময় ধরে বিনা বাধায় ‘জঙ্গি’ সংগঠন ইসলামিক স্টেটের (আইএস) প্রতীক প্রকাশ্যে প্রদর্শন করেছে, তাতে নানা রকম প্রশ্ন উঠছে।

বুধবার ঢাকার সন্ত্রাসবিরোধী বিশেষ ট্রাইব্যুনাল সাতজন আসামিকে মৃত্যুদণ্ডের রায় দেয়ার পর দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিদের একজন রাকিবুল হাসান রিগ্যানকে দেখা যায় মাথায় একটি কালো টুপি। এটি নিয়ে শুরু হয় নানা আলোচনা সমালোচনা।

এরই প্রেক্ষিতে বুধবার (২৭ নভেম্বর) দুপুরে মনিরুল ইসলাম বলেন, ‘আমার জানামতে, আইএস কোনও টুপি তৈরি করেছে, পৃথিবীর কোথাও এরকম দৃষ্টান্ত নেই।’ তিনি বলেন, ‘এটি একটি টুপি। সেটিতে ‘লাইলাহা ইল্লাল্লাহু’ লেখা। সেটি আইএসের পতাকার নির্দেশক হবে কিনা, তা বিশ্লেষণের ব্যাপার। তারপরও এটি কোথা থেকে, কীভাবে এলো, সেটি আমরা তদন্ত করে দেখবো।’

সিটিটিসি প্রধান বলেন, ‘কালো কাপড় ব্যবহার করা যেকোনও জঙ্গি সংগঠনের রেওয়াজ। আল-কায়দার জঙ্গিরাও কালো কাপড়ে ‘লাইলাহা ইল্লাল্লাহু’ লেখে। ফলে টুপিতে ‘লাইলাহা ইল্লাল্লাহু’ লিখলেই কোনো কিছু বোঝা যায় না।’
মনিরুল ইসলাম আরও বলেন, ‘টুপি বানানোর ধারণা আইএস প্রধান আবু বকর আল বাগদাদির মাথায়ও আসেনি। এই ক্ষেত্রে আমরা বিশ্লেষণ করে দেখবো এটি আইএসের টুপি কিনা। পাশাপাশি এটি কীভাবে সে পেলো, সেখানে দায়িত্বে পালনে কারো গাফিলতি ছিল কিনা, তা আমরা তদন্ত করে দেখবো।’
আদালত চত্বর ও কাঠগড়ায় জঙ্গিদের ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচারণের সমালোচনা করে এই পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, ‘জঙ্গিরা আদালত প্রাঙ্গণে যে বক্তব্য দিয়েছে, প্রিজনভ্যানে যে বক্তব্য দিয়েছে, এতে প্রমাণিত হয় তারা এই নৃশংস হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে। এর পক্ষেই তারা কথা বলেছে। এটি তাদের তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া।’

কালো ওই টুপিটির উপর ছিল অবিকল আইএস-এর কালো পতাকাটির উপর সাদা রঙে আঁকা প্রতীকটি। এই ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ছিলেন বিবিসি বাংলার সংবাদদাতা রাকিব হাসনাত। তিনি জানান, রিগ্যান রায় ঘোষণার পরই আদালত কক্ষেই কোনো এক ফাঁকে মাথায় টুপিটি পরে ফেলেন। তারপর তাকে পাঁচ তলা থেকে নিচতলায় প্রিজন ভ্যানে এনে ওঠানো পর্যন্ত তিনি মাথায় পরে ছিলেন ওই টুপিটি।

এ সময় ওই এলাকায় ছিল আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর শত শত সদস্য। রিগ্যানকেও ধরে ছিল পুলিশের কয়েকজন। কিন্তু কেউই রিগ্যানকে এই টুপিটি পরতে বাধা দেয়নি বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানাচ্ছেন।

হোলি আর্টিজান বেকারিতে হামলা মামলার রায় ঘোষণার পর আদালত চত্বরে মৃত্যুদন্ড প্রাপ্ত আসামি রাকিবুল ইসলাম ওরফে রিগ্যান মাথায় আইএসের পতাকার প্রতীক সংবলিত টুপি পরে ছিলেন। এ নিয়ে নানা ধরণের প্রশ্ন উঠছে।

তিনি বলেন, ‘যারা হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে এবং বিভিন্ন সময় পরিকল্পনায় অংশ নিয়েছে, এই ২১ জনকে মানুষের পর্যায়ে ফেলা যায় না। এদের কোনো মনুষ্যত্ব নেই। এতবড় নৃশংস হত্যাকাণ্ড যারা ঘটাতে পারে, সেটি আবার ধর্মের নামে জাস্টিফাই করে! তারা মানবতার বিরুদ্ধে কাজ করেছে, রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে কাজ করেছে এবং ধর্মের বিরুদ্ধে কাজ করেছে।’
মনিরুল ইসলাম বলেন, ‘তাদের বার্তা আমরা আদালত প্রাঙ্গণে লক্ষ করেছি। দেশের সাধারণ মানুষ তাদের ঘৃণা করছেন। তাদের এই মেসেজ মানুষের মনে কোনও প্রভাব ফেলবে না।’ জঙ্গিদের এই আচরণে সাধারণ মানুষ আরও বেশি তাদের ঘৃণা করবে বলে মন্তব্য করেন তিনি

তবে কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম বলেছেন, ‘আদালত প্রাঙ্গণে একজন দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি টুপি পরেছে। সেটাতে লেখা আছে, ‘লাইলাহা ইল্লাল্লাহু, মুহাম্মদ (সা.) আল্লাহর রাসুল’। তবে এটি আইএসের টুপি নয়।’ টুপি পড়া নিয়ে এত আলোচনার কারন হিসেবে অনেকেই মনে করছেন, টুপির উপর কালেমা খচিত লোগোটি ইসলামের ধারনা বহন করে। এতেই এত মাতামাতি শুরু হয়েছে। আবার অনেকে মনে করছেন, আই এস ও কালেমা খচিত পতাকা ব্যবহার করে। টুপিটি পড়ে সে আই এস এর সরব উপস্থিতি জানান দিল কিনা???

ক্রাইম ডায়রি//অনলাইন ডেস্ক

 

Total Page Visits: 66745

খোদ রাজধানীতে চাঁদার দাবিতে এক সম্পাদককে হুমকিঃ জাতীয় সাংবাদিক পরিষদের পক্ষ হতে দোষীদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবী

মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম প্রধান:

সাংবাদিকরা ইদানীং চরম নিরাপত্তহীনতায় ভুগছেন।কুখ্যাত সন্ত্রাসী ও খুনিদের টার্গেটে পরিণত হচ্ছেন পেশাদার সাংবাদিকরা।অবস্থা কতটা বেশামাল হলে রাজধানীতে কর্মরত একজন খ্যাতিমান সাংবাদিক ও সম্পাদককে চাঁদার দাবিতে নাম-পরিচয় দিয়ে সন্ত্রাসী হুমকি দিতে পারে, তা ভেবে কূল পাচ্ছে না সাংবাদিক সমাজ।

২৩ নভেম্বর বেলা দেড়টায় শীর্ষ সন্ত্রাসী শাহাদত পরিচয়ে চাঁদার দাবিতে দৈনিক ঢাকা টাইমস, ঢাকা টইমস অনলাইন পোর্টাল ও সাপ্তাহিক ‘এই সময়’-এর সম্পাদক আরিফুর রহমান দোলনকে প্রাণনাশের হুমকি দেওয়া হয়েছে।জনাব দোলনকে ব্যক্তিগত মোবাইল ফোনে এ হুমকি দেয়া হয়। এ ঘটনায় নিজের নিরাপত্তা চেয়ে রাজধানীর রমনা মডেল থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন জনাব দোলন। রমনা মডেল থানার জিডি নম্বর ১৪৪৫,তারিখ ২৩.১১.২০১৯।

মামার বাড়ির আবদারের মতো নিজেকে শীর্ষ সন্ত্রাসী শাহাদত পরিচয় দিয়ে ০১৯২৩-৭৬৬৩০৩ থেকে ফোন দেওয়া হয়।সন্ত্রাসী-চাঁদাবাজরা নিজেদের কতটা নিরাপদ মনে করলে আরিফুর রহমান দোলনের মতো একজন পেশাদার সাংবাদিক ও সম্পাদকের কাছে সরাসরি চাঁদা চেয়ে ফোন দিতে পারে! তিনি তো কোনো অখ্যাত সাংবাদিক নন। নন ব্যক্তিও। ফলে যে বা যারা চাঁদা চেয়ে হুমকি দিয়ে ফোনটি করেছে, তারা যে তা জেনে-বুঝে করেছে; তাতে কোনো সন্দেহ নেই্।

দেশের অন্যতম শীর্ষ দৈনিক প্রথম আলোর শুরু থেকে জনাব আরিফুর রহমান দোলন কর্মরত ছিলেন।ছিলেন সিনিয়র রিপোর্টার।যাদের হাত ধরে দৈনিকটি কালোত্তীর্ণ হয়, জনাব দোলন তাদের অন্যতম। আমার সৌভাগ্য হয়েছে, প্রথম আলোয় তার সহকর্মী হওয়ার। সহকর্মী হিসেবে গর্ববোধও করি। জনাব দোলন নিজে গণমাধ্যমের মালিকানায় যুক্ত হওয়ার পর তার হাউজে যাওয়ার জন্য বলেছিলেন, কিন্তু যা যাব করে সেটা সম্ভব হয়ে ওঠেনি। এখন কিন্তু না গিয়ে পারব না।এবার দাওয়াত ছাড়াই যাব। কারণ আমার এককালের সহকর্মী এবং এর চেয়ে বড় কথা, একজন গণমাধ্যম ব্যক্তিত্বের জীবন যখন হুমকির মুখে।

 

দুঃখজনক ঘটনাটি অর্থাৎ হুমকির পর স্বাভাবিক কারণেই তিনি ভীত-সন্ত্রস্ত। যে কেউ এমন ঘটনার মুখোমুখি হলে এমনই হতেন। ইতিমধ্যে অনেক সাংবাদিকের সঙ্গে অসংখ্য অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা সংঘটিত হয়েছে। এক্ষেত্রে জনাব দোলন বসে থাকেননি, নিয়ম মেনে ঘটনাটি তিনি আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর নজরে এনেছেন। তাৎক্ষণিক করেছেন জিডিও। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী ফোনের সূত্রটি ধরে এগোলে সহজেই অভীষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছে দায়ীকে সনাক্ত এবং আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণপূর্বক সিনিয়র এই সাংবাদিককে ভীতিমুক্তকরণে কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণে সফল হবে, এ বিশ্বাস অপরাধ বিশেষজ্ঞদের।

নিজেকে সন্ত্রাসী পরিচয়দানকারী বিষয়টি নিয়ে বাড়াবাড়ি না-করার জন্য হুমকি দিয়েছে। জনাব দোলন দেশের প্রচলিত আইন মেনে শঙ্কা প্রকাশ করে জিডি করেছেন, এ নিয়ে গণমাধ্যমে সংবাদও প্রকাশিত হয়েছে। দুটি সাংবাদিক সংগঠনের পক্ষ থেকে উদ্বেগ প্রকাশ করে দায়ীদের অনতিবিলম্বে গ্রেফতারপূর্বক শাস্তির দাবিতে বিবৃতি দেওয়া হয়েছে। তাতে সন্ত্রাসীর আঁতে লাগাই স্বাভাবিক। কেননা চোর না শোনে ধর্মের কাহিনী।

পেশাগত কারণে আরিফুর রহমান দোলন রিপোর্টাদের প্রাণের প্রতিষ্ঠান হিসেবে পরিচিত ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি-ডিআরইউর সদস্য,সাংবাদিকদের রুটি-রুজির অন্যতম প্রতিষ্ঠান ঢাকা সাংবাদিক ইউনিযন- ডিইউজের সদস্য এবং সাংবাদিকদের মর্যাদা ও তীর্থস্থান হিসেবে পরিচিত জাতীয় প্রেস ক্লাবের স্থায়ী সদস্য। এর বাইরেও তার ব্যাপক পরিচিতি এবং সমাজ ও মানব কল্যাণে নিবেদিত অনেক অবদান-সুখ্যাতি রয়েছে।

সন্ত্রাসীর পক্ষ থেকে হুমকি আসার পর জনাব দোলনের জন্য স্বাভাবিক কারণেই অনেকেই উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা প্রকাশ করেন। এর মধ্যে ২৫ নভেম্বর ডিইউজে সভাপতি আবু জাফর সূর্য ও সাধারণ সম্পাদক সোহেল হায়দার চৌধুরী এক বিবৃতিতে বলেন, শীর্ষ সন্ত্রাসী শাহাদাতের পরিচয় দিয়ে সাংবাদিক আরিফুর রহমান দোলনের কাছে চাঁদা দাবি অত্যন্ত উদ্বেগের বিষয়। যখন দেশে সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ, অনিয়ম ও অপকর্মের বিরুদ্ধে ‘শুদ্ধি অভিযান’ চলছে, তখন এ ধরনের ঘটনা আতঙ্কের জন্ম দেয়।
বিবৃতিতে সাংবাদিক নেতারা এই অপকর্মের সঙ্গে জড়িতদের অবিলম্বে গ্রেফতার করে চাঁদা দাবিকারীর মুখোশ উন্মোচন করার দাবি জানান। নেতারা আরিফুর রহমান দোলনের নিরাপত্তাদানের জন্য আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতি আহ্বান জানানোর পাশাপাশি সন্ত্রাসী চক্রের বিরুদ্ধে জোরদার অভিযানের দাবি জানান। ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি (ডিআরইউ) উদ্বেগ ও নিন্দা জানিয়েছে। গত ২৪ নভেম্বর ডিআরইউ কার্যনির্বাহী কমিটির পক্ষ থেকে সভাপতি ইলিয়াস হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক কবির আহমেদ খান এক বিবৃতিতে এই উদ্বেগ ও নিন্দা জানান। একই সঙ্গে তারা হুমকিদাতাকে দ্রুত চিহ্নিত করে বিচারের মুখোমুখি করার দাবি জানান।

এর বাইরে ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গা, বোয়ালমারী, গাইবান্ধায় প্রতিবাদ সমাবেশ, মানববন্ধন, মিছিল ও উপজেলা প্রশাসনের কাছে স্মারকলিপি দিয়েছে স্থানীয় সাংবাদিক ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা। রাজধানী ঢাকায় ঘটে যাওয়া হুমকির ঘটনায় তার স্বজন ও সুহৃদরা ব্যথিত ও চিন্তিত হওয়াই স্বাভাবিক।যার প্রতিফলনের দিকগুলো এক্ষণ বর্ণনা করা হলো। আশঙ্কার কারণ হলো, জিডি এবং গণমাধ্যমে বিষয়টি ফলাও করে আসার পরও হুমকিদাতাকে চৌদ্দশিকের মধ্যে এখনো আনতে না-পারা।

এখনো হুমকিদাতারা গ্রেফতার না হওয়া দুঃখজনক।আমাদের আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী অনেক কাজে তাদের অসামান্য দক্ষতার পরিচয়-প্রমাণ দিয়েছে। আন্তরিক হলে এবং পেশাগত দায়িত্ব পালনে তাদের আন্তরিকতা, দক্ষতা, বিচক্ষণতা ও বিশ্বস্ততার অসংখ্য নজির রয়েছে। এসব নজির আশাবাদী হতে সাহায্য করে।আমরা আশা করা যায়, আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী দ্রুততম সময়ের মধ্যে জনাব দোলনকে হুমকিদাতাদের গ্রেফতার করে সাংবাদিক মহল, সুধী সমাজ ও জনাব দোলনের স্বজনদের শঙ্কামুক্ত করবে।এ কাজটা দ্রুত করা গেলে গণমাধ্যমকর্মীদের জন্য কিছুটা হলেও ভীতিমুক্ত পরিবেশ নিশ্চিত করা সহজ হবে। এদিকে এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন জাতীয় সাংবাদিক পরিষদের কেন্দ্রীয় সভাপতি ও ক্রাইম ডায়রির সম্পাদক ও প্রকাশক    ( জাতীয় সাপ্তাহিক,অনলাইন দৈনিক, অনলাইন টেলিভিশন ও অপরাধ গবেষনা)  আতিকুল্লাহ আরেফিন রাসেল।   তিনি মোবাইল ফোনের সূত্র ধরে  দ্রুত   দোষীদের আটক ও আইনের আওতায় আনার জোর দাবী জানিয়েছেন।

ক্রাইম ডায়রি///প্রতিবেদক : বিশেষ প্রতিনিধি- পিএনএস/// সৌজন্যে

Total Page Visits: 66745

ক্ষমতা কারো চিরকাল থাকেনা– রংপুরে সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের

নুরুজ্জামান প্রধান,বিভাগীয় অফিস,রংপুরঃ-

ক্ষমতা কারোই চীরকাল থাকেনা।  সুতরাং, ক্ষমতার বড়াই না দেখিয়ে মানবসেবা করে যাও।   বঙ্গকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার   এই নীতিরই পুনঃব্যক্ত করলেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী জনাব ওবায়দুল কাদের।  দলীয় নেতাকর্মীদের ক্ষমতার দাপট না দেখানোর আহবান জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক যোগাযোগ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আওয়ামী লীগ মানে ধ্বংসস্তূপে দাঁড়িয়ে সৃষ্টির শ্লোগান। দুঃসময় মোকাবেলার নাম আওয়ামী লীগ। সব দুঃসময়ের বিরুদ্ধে দুর্যোগের বিরুদ্ধে লড়াই করে আওয়ামী লীগ আজ ক্ষমতায়।

২৬ নভেম্বর ২০১৯ইং মঙ্গলবার দুপুরে রংপুর পাবলিক লাইব্রেরি মাঠে জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন

তিনি বলেন, আজ সুসময় আছে। এই সুসময় চিরদিন নাও থাকতে পারে। মনে রাখবেন যে, ক্ষমতা আছে- এ ক্ষমতার দাপট দেখালে ক্ষমতা চিরদিন নাও থাকতে পারে। ক্ষমতা চিরদিন থাকে না। ক্ষমতা একসময় চলে যাবে। ক্ষমতার দাপট কেউ দেখাবেন না। বিনয়ী থাকবেন। আমাদের নেত্রী বলেছেন সাধারণ জীবনযাপন করতে হবে। অনেক স্বপ্ন দেখতে হবে। অনেক স্বপ্ন দেখাতেও হবে।

তিনি আরো বলেন, পানির অভাবে এক সময় রংপুরের মানুষ মঙ্গাকবলিত ছিল। প্রধানমন্ত্রী সেই মঙ্গাকে জাদুঘরে পাঠিয়েছেন। রংপুরকে নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর ব্যাপক উন্নয়নের পরিকল্পনা রয়েছে। বগুড়া থেকে চার লেনের কাজ শুরু হয়েছে। রংপুর থেকে বুড়িমারি বাংলাবান্দা সড়ক করা হবে। গোটা উত্তরাঞ্চলের সমস্ত মহাসড়ক চার লেনের আওতায় আনা হবে। ওবায়দুল কাদের আরো বলেন, বিশ্বের প্রধানমন্ত্রীদের মধ্যে এক নম্বরে রয়েছেন শেখ হাসিনা। বিশ্বের মহিলা নেতাদের তালিকায়ও শীর্ষে রয়েছেন তিনি। তার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলাদেশ গড়বে। সেই যাত্রায় নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে।

রংপুর বিভাগীয় দলীয় সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘ তের বছর পর অনুষ্ঠিত হচ্ছে বহুল কাঙ্ক্ষিত এই সম্মেলন। ২০০৭ সালে সাফিয়ার রহমান সাফিকে সভাপতি ও বাবু তুষার কান্নি মন্ডলকে সাধারণ সম্পাদক করে রংপুর মহানগর আওয়ামী লীগের কমিটি গঠন করা হয়। আর ১৯৯৭ সালে রংপুর জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনের মাধ্যমে কমিটি গঠন হয়। ২০০৬ সালে রংপুর জেলা সম্মেলন আহ্বান করা হলে দলের দুই গ্রুপের বিরোধের জেরে পণ্ড হয়ে যায়। পরে আহবায়ক কমিটি দ্বারা জেলা আওয়ামী লীগ পরিচালিত হয়। ২০০৯ সালে মরহুম আবুল মনছুর আহমেদকে সভাপতি ও অ্যাডভোকেট রেজাউল করিম রাজুকে সাধারণ সম্পাদক করে জেলা আওয়ামী লীগের ৭১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি অনুমোদন করে কেন্দ্রীয় কমিটি। পরে আবুল মনসুর আহমেদের মৃত্যুর পর ভারপ্রাপ্ত সভাপতির দায়িত্ব পালন করে আসছেন মমতাজ উদ্দিন আহমেদ।

বেলা ১১টায় সম্মেলন উদ্বোধন করা হয়। উদ্বোধন করেন সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য সাবেক মন্ত্রী রমেশ চন্দ্র সেন। জেলা ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মমতাজ উদ্দিন আহমেদের সম্মেলনে প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখেন দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য চৌধুরী খালেকুজ্জামান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান, কোষাধ্যক্ষ এইচএন আশিকুর রহমান এমপি, সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল, অর্থ ও পরিকল্পনা সম্পাদক টিপু মুনশি, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ড. শাম্মী আখতার। স্বাগত বক্তব্য রাখেন জেলা সেক্রেটারি রেজাউল করিম রাজু ও মহানগর সভাপতি সাফিউর রহমান সফি। সম্মেলন উপস্থাপনা করেন মহানগর সেক্রেটারি তুষারকান্তি মন্ডল।

ওবায়দুল কাদের বলেন, দুঃসময়ের আওয়ামী লীগ নেতাদের মূল্যায়ন না করে বসন্তের কোকিলদের হাতে নেতৃত্ব দেয়া যাবে না। মাদকসেবী, দুর্নীতিবাজ, টেন্ডারবাজ, চাঁদাবাজদের নেতৃত্বকে না বলুন। দীর্ঘদিন রংপুরে কমিটি না হওয়ার কারণে সেশনজটে আটকে গেছে আওয়ামী লীগের নেতৃত্ব। ত্যাগী নেতাদের কোণঠাসা করে আত্মীয়দের নেতা বানাবেন না। বিশুদ্ধ রক্ত দিয়ে দল পরিচালনা করুন। দলের নেতৃত্ব তাদের হাতে তুলে দিন। দূষিত সব রক্তদের পরিহার করুন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন  আওয়ামীলীগের স্থানীয় নেতৃবৃন্দ সহ স্থানীয় জনসাধারণ।

ক্রাইম ডায়রি//জাতীয়//রাজনীতি

 

Total Page Visits: 66745

চট্টগ্রাম নগরীর ইপিজেড থানা কর্তৃক অপহৃত শিশু উদ্ধার

হোসেন মিন্টু, চট্টগ্রাম বিভাগীয় ব্যুরো চীফঃ

চট্টগ্রাম ইপিজেড থানার বিপরীতে নেভী কলোনী-১ সংলগ্ন রাস্তার ফুটপাতে বসে নিজ দুগ্ধ শিশু শুভ (০৬ মাস) কে নিয়ে ভিক্ষা করার সময় মোসাঃ শিরিন বেগম (২৫)’কে জুস খাইয়ে অজ্ঞান করে দুগ্ধ শিশু শুভ (০৬ মাস) কে অপহরণ করে নিয়ে যায় অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিরা। থানা সুত্রে জানা গেছে,    বাদীনির এরূপ অভিযোগের ভিত্তিতে ইপিজেড থানার মামলা নং-১৬, তারিখ-১৮/০৩/২০১৯ ইং, ধারা-নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন/২০০০ (সংশোধীত ২০০৩) এর ৭/৩০ তৎসহ ৩২৮ দঃ বিঃ রুজু করা হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে উপ-পুলিশ কমিশনার (বন্দর বিভাগ), অতিঃ উপ-পুলিশ কমিশনার (বন্দর বিভাগ), সহকারী পুলিশ কমিশনার (বন্দর জোন) এবং অফিসার ইনচার্জ মীর মোঃ নূরুল হুদা এর সার্বিক দিকনির্দেশনা ও পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মুহাম্মদ ওসমান গনির সার্বিক তত্ত্বাবধানে মামলার তদন্তকারী অফিসার এসআই/কামাল হোসেনের নেতৃত্বে ইপিজেড থানার একদল চৌকশ পুলিশ অফিসার উক্ত ঘটনার সাথে জড়িত মোঃ ইকবাল হোসেন(৩০), মোঃ জাফর সাদেক প্রকাশ আফসার (৩৫), পারভীন আক্তার(৩০) এবং সালেহা বেগম প্রকাশ সালেয়া (৫২) নামীয় চার ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছেন।

এরা দুগ্ধ শিশু শুভ (০৬ মাস) কে অপহরণ করে চট্টগ্রাম জেলার ফটিকছড়ি থানাধীন ভক্তপুর গ্রামের কাসিম আলী টেন্ডলের বাড়ীর নিঃসন্তান দম্পতি জনৈক মোঃ সাইফুল্লার স্ত্রী তাসমিনা আক্তার জেলি এর নিকট ১,৫০,০০০/- (এক লক্ষ পঞ্চাশ হাজার) টাকার বিনিময়ে বিক্রি করে দিয়েছিল। পরে তারা চার জনে মিলে সেই টাকা ভাগ বাটোয়ারা করে নেয়।

ক্রাইম ডায়রি// ক্রাইম//মহানগর

Total Page Visits: 66745

কোন অপরাধী ছাড় পাবেনা, সে যে দলেরই হোক–বঙ্গকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

অনলাইন ডেস্কঃ

বঙ্গকন্যা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, অপরাধী যেই হোক না কেন আমি কাউকে ছাড় দেব না।

তিনি বলেন, দুর্নীতি, জঙ্গিবাদ ও মাদকের বিরুদ্ধে চলমান অভিযান অব্যাহত থাকার বিষয়টি পুনরায় উল্লেখ করেন। ২৩ নভেম্বর ২০১৯ইং  শনিবার রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের অঙ্গসংগঠন-যুবলীগের সপ্তম জাতীয় সম্মেলনে বক্তব্য দেয়াকালে এ কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

‘দুর্নীতি, সন্ত্রাসবাদ, জঙ্গিবাদ ও মাদকের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত থাকবে। আমি কাউকে ছাড় দেব না, তারা যেই হোক না কেন। আমি তাদের প্রতি কোনো সহানুভূতি দেখাব না কারণ আমি দেশের মানুষের জন্য দিনরাত (চব্বিশ ঘন্টা) পরিশ্রম করি,’ বলেন প্রধানমন্ত্রী।

দেশের ও মানুষের কল্যাণ ও ত্যাগের মাধ্যমে দেশের সেবা করার জন্য তরুণ প্রজন্মকে প্রস্তুত করার কথা জানান প্রধানমন্ত্রী।

আমাদের তরুণ সমাজকে মাদক, সন্ত্রাস, জঙ্গীবাদ ও দুর্নীতি থেকে দূরে থাকতে হবে, বলেন শেখ হাসিনা।

শনিবার রাজধানী সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের অঙ্গসংগঠন-যুবলীগের সপ্তম জাতীয় সম্মেলনে বক্তব্য দেয়াকালে এ কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

দেশের ও মানুষের কল্যাণ ও ত্যাগের মাধ্যমে দেশের সেবা করার জন্য তরুণ প্রজন্মকে প্রস্তুত করার কথা জানান প্রধানমন্ত্রী।

আমাদের তরুণ সমাজকে মাদক, সন্ত্রাস, জঙ্গীবাদ ও দুর্নীতি থেকে দূরে থাকতে হবে, বলেন শেখ হাসিনা।

আগে, বেলা ১১টায় রাজধানীর ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, কবুতর ও বেলুন উড়িয়ে যুবলীগের ত্রিবার্ষিক জাতীয় সম্মেলনের উদ্বোধন করেন আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনা।

যুব লীগের আহ্বায়ক চয়ন ইসলামের সভাপত্বিতে আয়োজিত এ সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বক্তব্য রাখেন। যুব লীগের সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশিদ সম্মেলনে সংগঠনটির প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন।

উল্লেখ্য যে,  ১৯৭২ সালের ১১ নভেম্বর জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নির্দেশনায় বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ গঠন করেন শেখ ফজলুল হক মনি।

যুবলীগের আহ্বায়কের সভাপতিত্বে এই সম্মেলনে সারাদেশের ৭৭ টি সাংগঠনিক জেলা থেকে প্রায় ২৮ হাজার কাউন্সিলর অংশ নিয়েছেন। বিকেলে ইনস্টিটিউশন অব ইঞ্জিনিয়ার্স, বাংলাদেশের (আইইবি) মিলনায়তনে কাউন্সিল অধিবেশনে যুবলীগের নতুন নেতৃত্ব ঘোষণা করা হবে।

ক্রাইম ডায়রি//জাতীয়

Total Page Visits: 66745

জলবায়ু পরিবর্তনের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায়  ৪১তম বিজ্ঞান মেলার উদ্ধোধন

শেখ সাইফুল ইসলাম কবির.সিনিয়র স্টাফ রিপোর্টার,বাগেরহাট:
‘জলবায়ু পরিবর্তনের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি’ এ প্রতিপাদ্য বিষয় নিয়ে বৃহস্পতিবার বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে ৪১ তম জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সপ্তাহ এবং জাতীয় বিজ্ঞান অলিম্পিয়াড এর উদ্ধোধন করা হয়েছে। উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব এ্যাড. শাহ-ই-আলম বাচ্চু ৩ দিন ব্যাপি এ মেলার উদ্ধোধন করেন।
 মোরেলগঞ্জ সরকারি উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত বিজ্ঞান মেলায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. কামরুজ্জামান। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হক মোজাম, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফাহিমা খানম, প্রধান শিক্ষিকা মমতাজ বেগম, অধ্যাপক জাকির হোসেন রিয়াজ, এসআই আসাদুজ্জামান মিঠু।
উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে অনুষ্ঠিত মেলায় উপজেলার ২০টি মাদ্রাসা,স্কুল ও কলেজ পর্যায়ের ২০ টি ষ্টল প্রদর্শিত হয়েছে।
ক্রাইম ডায়রি//বিজ্ঞান
Total Page Visits: 66745

শেরপুরে জাতীয় সাংবাদিক পরিষদ ও সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশনের মানবন্ধন অনুষ্ঠিত

শেরপুর  প্রতিনিধিঃ

বগুড়ার শেরপুরে নিত্যপ্রয়োজীয় দ্রব্যমুল্যে উর্ধগতি ও কুচক্রীমহল কর্তৃক সরকারের বিভিন্ন উন্নয়নে বাধাগ্রস্থ এবং লবন নিয়ে গুজব ছড়ানোর প্রতিবাদে
জাতীয় সাংবাদিক পরিষদ শেরপুর উপজেলা শাখা ও সার্কমানবাধিকার বগুড়া জেলা শাখার যৌথ উদ্যোগে গত ২০নভেম্বর ২০১৯ সকাল ১০ ঘটিকায় স্থানীয় বাসষ্ট্যান্ডে মানবন্ধন করা হয়েছে।

এস.এম.নুরুলের সভাপতিত্বে মানববন্ধন কর্মসূচীতে বক্তব্য রাখেন জাতীয় সাংবাদিক পরিষদ শেরপুর উপজেলা শাখার সভাপতি আড়াঁল অনুসন্ধান নিউজ লাইভ ২৪ এর সম্পাদক ও প্রকাশক সাংবাদিক এরশাদ হোসেন,জাতীয় সাংবাদিক পরিষদের কেন্দ্রীয় সদস্য  ও ক্রাইম ডায়রির ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি   শাহাদত হোসেন, সাংবাদিক জাকির হোসেন রনি,   সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশন বগুড়ার সাংগঠনিক সম্পাদক  রশিদ, বগুড়া জেলা সদস্য আবু সাইদ,আবু সালাম,ফরিদুল ইসলাম,ইসমাইল হোসেনসহ আরও উপস্থিত ছিলেন জাতীয় সাংবাদিক পরিষদ শেরপুর উপজেলা শাখার সহ-সভাপতি শ্রী উৎপল মালাকার,সাধারন সম্পাদক তোফাজ্জল হোসেন,যুগ্নসম্পাদক রুবি আক্তার উর্মি,সাংগঠনিক সম্পাদক আবু রায়হান রানা,সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল খালিদ তরুন,নির্বাহী সদস্য আতিকুর রহমান আতিক, মুন্টুমিয়া, এস.এম.আরাফাত হোসেন,  মাছুদ ফারুক বাবলু সহ বিভিন্ন শ্রেনীর পেশাজীবী ও স্থানীয় সাংবাদিক বৃন্দ এসময় উপস্থিত  ছিলেন।

ক্রাইম ডায়রি// জেলা

Total Page Visits: 66745