• শনিবার ( রাত ১১:০২ )
    • ২৪শে আগস্ট, ২০১৯ ইং

র‌্যাব-১এর সফলতাঃমলম ও অজ্ঞান পার্টির ৭ সদস্য গ্রেফতার

আতিকুল্লাহ আরেফিন রাসেলঃঃ

ধারাবাহিক অভিযানের অংশ হিসেবে গোপনসংবাদের ভিত্তিতে রাজধানীর বিমানবন্দর এলাকা হতে সংঘবদ্ধ মলম ও অজ্ঞান পার্টির ০৭ জন সক্রিয় সদস্যকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১।

রাজধানীর বিমানবন্দর এলাকায় অজ্ঞান ও মলম পার্টির দৌরাত্ব্য প্রায়শই লক্ষ্য করা যায়। ইতোমধ্যে বেশ কয়েকটি অভিযান পরিচালনার মাধ্যমে অজ্ঞান ও মলম পার্টির দৌরাত্ব্য অনেকাংশে কমে এসেছে। কিন্তুু এরপরও  বিমানবন্দর থানা এলাকায় অজ্ঞান ও মলম পার্টি এখনো সক্রিয় রয়েছে বলে জানতে পারে RAB-1। সম্প্রতি এই চক্রের সদস্যরা সাধারন পথচারী যাত্রী এবং বিমানবন্দরে প্রবেশরত হজ্জ্ব যাত্রীদের নিকট হতে কৌশলে মোবাইল ফোন ও মূল্যবান সামগ্রী ছিনিয়ে নিচ্ছিল । এছাড়াও  বিভিন্ন যাত্রীবাহী বাসে উঠে সাধারণ যাত্রীদের কৌশলে অজ্ঞান করে তাদের নিকট হতে মোবাইল, টাকা-পয়সা ও মূল্যবান সামগ্রীসহ সর্বস্ব লুটে নিয়ে যাচ্ছিল। RAB-1 এর অভিযোগ কেন্দ্রে হজ্জ্ব যাত্রীদের নিকট হতে মোবাইল ফোন, টাকা-পয়সা এবং মূল্যবান সামগ্রী ছিনতাই চক্রের সদস্যরা ছিনিয়ে নিয়েছে মর্মে বেশ কিছু অভিযোগ পাওয়া যায়।  অভিযোগের প্রেক্ষিতে এই চক্রের সদস্যদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনতে RAB-1গোয়েন্দা নজরদারী বৃদ্ধি করে।

এরই ধারাবাহিকতায় ১৫ জুলাই ২০১৯ ইং তারিখ আনুমানিক ১৮১০ ঘটিকায় র‌্যাব-১ এর একটি চৌকস দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে, রাজধানীর বিমান বন্দর থানাধীন হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর এর প্রবেশ মূখে গোল চত্ত্বর এর উত্তর পশ্চিম পার্শ্বে ফুটওভার ব্রীজ এর নিচে পাকা রাস্তার উপর অভিযান পরিচালনা করে সংঘবদ্ধ অজ্ঞান ও মলম পার্টি চক্রের সক্রিয় সদস্য ১) মোশারফ হোসেন মাহিন (২৪), পিতা- মৃত শাহ জামাল বাদল, মাতা- মোছাঃ মোর্শেদা বেগম, সাং- ফুল বাড়ীয়া মুন্সিপাড়া, ওয়ার্ড নং-০৭, থানা- জামালপুর সদর, জেলা- জামালপুর, বর্তমান ঠিকানা- বটতলা, সোনাবানু মাজার সংলগ্ন, টঙ্গী বাজার, হাকিম মিয়ার বাড়ীর ভাড়াটিয়া, থানা-টঙ্গীপূর্ব, জিএমপি, গাজীপুর, ২) মোঃ আমিনুল ইসলাম (২০), পিতা- মৃত আলী, মাতা- মোছাঃ হাফেজা বেগম, সাং- নামাপাড়া, থানা- ত্রিশাল, জেলা- ময়মনসিংহ, বর্তমান ঠিকানা- কেরানীরটেক, আমতলী, তারা মিয়ার বাড়ির ভাড়াটিয়া, থানা- টঙ্গীপূর্ব, জিএমপি গাজীপুর, ৩) মোঃ চাঁদ হাওলাদার (১৯), পিতা- মোঃ ইব্রাহীম হাওলাদার, মাতা-মোছাঃ নাজমা বেগম, সাং- শিয়ালকাটি, পোষ্ট-বাইশারী, থানা- বানারীপাড়া, জেলা- বরিশাল, বর্তমানা ঠিকানা- সুইচ গেইট, লাল খায়ের বাড়ির ভাড়াটিয়া, থানা- উত্তরা পশ্চিম, ডিএমপি ঢাকা, ৪) মোঃ রবিন মিয়া (২৫), পিতা- মোঃ মিন্টু মিয়া, মাতা- মোছাঃ রেখা বেগম, সাং- কেরানীরটেক আমতলী, থানা- টঙ্গীপূর্ব, জিএমপি গাজীপুর, ৫) মোঃ বাবু (৩০), পিতা- মৃত শহীদ, মাতা- রেহেনা বেগম, সাং- সাদারদিয়া, পোষ্ট- পালের বাজার, থানা- দাউদকান্দি, জেলা- কুমিল্লা, বর্তমান ঠিকানা- মিরা বাজার, রাজনের বাড়ীর ভাড়াটিয়া, থানা- জয়দেবপুর, জেলা- গাজীপুর, ৬) মোঃ রফিক (২০), পিতা- মোঃ হালিম, মাতা- মৃত রহিমা বেগম, সাং- বইলদাপাড়া, পোষ্ট- ঝরগাচর, থানা- শেরপুর সদর, জেলা- শেরপুর, বর্তমান ঠিকানা- পানির ট্যাংকির সামনের বস্তি, মামুন মিয়ার বাড়ীর ভাড়াটিয়া, সেক্টর-০৯, থানা- উত্তরা পশ্চিম, ডিএমপি গাজীপুর, ৭) সচিত দাস (১৯), পিতা- দীলিপ দাস, মাতা- মালতি দাস, সাং- কাসন, পোষ্ট- ফুলবাড়িয়া, থানা- ফুলবাড়িয়া, জেলা- ময়মনসিংহ, বর্তমান ঠিকানা- আরিচপুর, বউ বাজার, রুবেল সরকার বাড়ী, থানা- টঙ্গীপূর্ব জিএমপি গাজীপুর’দেরকে গ্রেফতার করে। এসময় তাদের নিকট হতে ০৩ টি মলম, ০৫ টি স্পেয়ার ব্লেড, ০৩ টি মোবাইল ফোন ও ৭৫০/- টাকা উদ্ধার করা হয়।

জিজ্ঞাসাবাদে আটককৃতরা তাদের অপরাধ স্বীকার করেছে বলে RAB-1 সুত্রে জানা গেছে । জানা গেছে, এরা সবাই সংঘবদ্ধ অজ্ঞান/মলম চক্রের সক্রিয় সদস্য। এই চক্রের সদস্যরা দীর্ঘদিন যাবৎ বিমান বন্দর এলাকায় বিদেশ গমনাগমনের উদ্দেশ্যে আগত লোকজন ও অত্র এলাকায় চলাচলকারী বাসযাত্রী, পথচারীদের গতিরোধ করে কৌশলে বোকা বানিয়ে তাদের চোখে চেতনা নাশক মলম প্রয়োগের মাধ্যমে অজ্ঞান করে তাদের নিকটে থাকা মোবাইলফোনসহ নগদ টাকা এবং মূল্যবান অন্যান্য জিনিসপত্র হাতিয়ে নিয়ে যায় এসময়ে কেউ টের পাইলে ও বাঁধা প্রদান করিলে তাহাকে ভয় দেখাইবার জন্য তাহাদের নিকটে থাকা স্পেয়ার ব্লেড দিয়ে শারীরিক ভাবে আঘাত করে। ধৃত আসামীরা আরো জানায় যে, গত ১৫ জুলাই ২০১৯ ইং সন্ধ্যালগ্নে তাহারা বিমানবন্দরে প্রবেশরত হজ্জ্ব যাত্রীদের আগমনকে লক্ষ্য করে সেখানে অবস্থান করছিল বলে স্বীকার করে। হজ্জ্ব যাত্রীসহ অন্যান্য যাত্রীগণ এই ফুট ওভার ব্রীজ পার হওয়ার সময় তারা তাদের ব্যাগসহ অন্যান্য মূল্যবান সামগ্রী ছিনতাই করে নিয়ে যায়। এছাড়াও ধৃত আসামীরা শশা, বরই, আচার ইত্যাদি খাদ্য দ্রব্যে চেতনানাশক রাসায়নিক তরল পদার্থ মিশিয়ে সাধারন মানুষকে অজ্ঞান করে তাহাদের সর্বস্ব লুটে নেয়। চেতনা নাশক ওষুধ প্রয়োগের ফলে অধিকাংশ ভিকটিম ২৪-৪৮ ঘন্টা পর্যন্ত সজ্ঞাহীন থাকে। মাত্রাতিরিক্ত চেতনা নাশক ওষুধ প্রয়োগের ফলে অনেক ভিকটিমের মানসিক বিকারসহ বিভিন্ন শারিরীক জটিলতা দেখা দেয় বলে ধৃত আসামীরা স্বীকার করে।

এদিকে RAB-1 এমন সাফল্যেে উচ্ছ্বসিত আপামর জনসাধারন।ভুক্তভোগী মাত্রই জানে মলম পার্টির দৌড়াত্ব। বিমানবন্দর এলাকায় সাধারণ মানুষদের সাথে কথা বললে মলম পার্টির সদস্যদের আটক করায়  RAB-1এর   ভূয়সী প্রশংসা করেন ।

ক্রাইম ডায়রি///ক্রাইম/আইন শৃঙ্খলা

6908total visits,234visits today

অবশেষে গ্রেফতার হলো মিন্নিঃ হত্যাকান্ডে সম্পৃক্ততার প্রমাণ মিলেছে

ক্রাইম ডায়রি ডেস্কঃ

গরীবের কথা বাসী হলেও অনেকসময় সত্যি হয়। অবশেষে নানান জল্পনাকল্পনার অবসান ঘটিয়ে সত্যিকারের হন্তারক ও বরগুনায় আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যা মামলার প্রধান সাক্ষী তার স্ত্রী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

প্রথমেে তাকে সকাল প্রায় ১০ঘটিকার দিকে বরগুনা পুলিশ লাইনে আনা হয়। তারপর  দিনভর জিজ্ঞাসাবাদের পর হত্যাকান্ডে তার সম্পৃক্ততার প্রমাণ খুঁজে পাওয়ায়   মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। বরগুনার পুলিশ সুপার (এসপি) মো. মারুফ হোসেন বলেন, জিজ্ঞাসাবাদে স্বামী রিফাত হত্যার সঙ্গে সংশ্লিষ্টতা প্রতীয়মান হওয়ায় প্রধান সাক্ষী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নিকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

এর আগে মঙ্গলবার দুপুর ১টার দিকে সংবাদ সম্মেলনে এসপি সাংবাদিকদের   বলেছিলেন, মামলার তদন্তের জন্যই আয়শা সিদ্দিকা মিন্নির সঙ্গে কথা বলা দরকার। সে জন্য তাকে পুলিশ লাইনসে আনা হয়েছে। মিন্নির সঙ্গে তার বাবা মোজাম্মেল হোসেন কিশোরকেও পুলিশ লাইনসে আনা হয়েছিল।আয়শা সিদ্দিকা মিন্নির চাচা আবু সালেহ জানান, সকাল পৌনে ১০টার দিকে মিন্নিকে আনার জন্য নারী পুলিশের একটি দল মোজাম্মেল হোসেন কিশোরের বাড়িতে যায়। রিফাত হত্যা মামলার আসামিদের শনাক্ত ও মামলার বিষয়ে কথা বলার জন্য তাকে পুলিশলাইনে যেতে হবে বলে তার বাবাসহ তাকে পুলিশ লাইনে আনা হয়।।। উল্লেখ্য যে, রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় পুলিশ ১৩ জনকে গ্রেফতার করেছে। মামলার প্রধান আসামি নয়ন বন্ড গত ২ জুলাই পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে মারা গেছে। এছাড়াও গ্রেফতারকৃত আসামিদের মধ্যে এখন পর্যন্ত ১০ জন আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছে। বাকি ৩ জন এখনো রিমান্ডে রয়েছে বলে জানান তিনি।

এ মামলার এজাহারভুক্ত ৫ জন আসামি পলাতক রয়েছে। তারা হলো- রিশান ফরাজী, মাসা (বন্ড), রায়হান, মুহায়মিনুল ইসলাম সিফাত ও মো. রিফাত।তাদেরকে গ্রেফতারের জন্য বরগুনাসহ সর্বত্র অভিযান অব্যাহত রয়েছে। শিগগিরই তাদের গ্রেফতার করা সম্ভব হবে।

 

প্রসঙ্গত, গত ২৬ জুন সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বরগুনা সরকারি কলেজের প্রধান গেটের সামনে ঘাতকেরা স্ত্রী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নির সামনে প্রকাশ্যে রামদা দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে রিফাত শরীফকে। এসময় সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে ও মিন্নির আচরণের অবস্থা বিশ্লেষণ করে ক্রাইম ডায়রিসহ অনেক গণমাধ্যম তাদের বিশ্লেষণে মিন্নির ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিল।।।।    ক্রাইম ডায়রির একাধিক বিশ্লেষণ ও ইউটিউবে ব্যাক্তিগত চ্যানেল গুলোও চেঁচিয়ে যাচ্ছিল যে মিন্নি এই ঘটনায় জড়িত।।পরবর্তিতে নয়ন বন্ডের মা পর্যন্ত বলেছেন মিন্নির নয়নবন্ডের সাথে সম্পর্ক নিয়ে।আর রিফাতের বাবাসহ নিহতের বন্ধুমহলেরও দৃষ্টিতে মিন্নিকে দোষীদের একজন বলা হচ্ছিল। মিন্নিকে আইনের আওতায় নিয়ে আসায় আজ তা প্রমানিত হলো।।।

ক্রাইম ডায়রি///ক্রাইম//জাতীয়

6908total visits,234visits today

মহেশপুরে পুলিশ এ এস আই আসাদের অকাল মৃত্যু

সুলতান আল একরাম,ঝিনাইদহঃ

ঝিনাইদহের মহেশপুর থানায় কর্মরত এ এস আই আসাদুজ্জামান আসাদ ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে আজ চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি হয়।শারিরীক অবস্থার উন্নতি না হওয়ায় পরবর্তীতে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিকালের দিকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল থেকে ঢাকায় নেওয়ার সময় পথিমধ্যেই তিনি ইন্তেকাল করেছেন,ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন।এ এস আই আসাদের স্থায়ী ঠিকানা চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুড়হুদা উপজেলার কার্পাসডাঙ্গার জগন্নাথপুর গ্রামে।তার এই অকাল মৃত্যুতে পরিবার ও এলাকায় শোকের ছাঁয়া নেমে এসেছে।

ক্রাইম ডায়রি//জেলা

6908total visits,234visits today

জুলহাসের কবিতা অপেক্ষা

>>>>জুলহাসের কবিতা অপেক্ষা<<<<

তুমি আসবে বলে বসে আছি

আমি এই নিরালায়
হ্মন কাটেনা কাটেনা লগন

আছি অবহেলায়।
কখন আসবে তুমি

এই পথ আমি রয়েছি বিষন্নতায়
কাটেনা সময় কাটেনা

অপেহ্মা মন রলো নিরবতায়।
মন করে আনচান শুধ নিস্তব্ধতা
কখন দেবে দেখা গাঁথবো মালাগাঁথা।
মালাখানি পড়িয়ে দেবো তোমায়
তোমার ভালোবাসার সুভাষ

গন্ধ ছড়াবে আমায়।
দুজনে ডানামেলে উড়বো

অচেনা অজানা নিরুদ্দেশে
প্রেমের বাধন গড়বো মায়া

সখি পাবো তোমারই উদ্দ্যেশ্যে।

ক্রাইম ডায়রি///সাহিত্য

6908total visits,234visits today