বাংলাদেশ সরকার দীর্ঘদিন ডিমওয়ালা মা ইলিশ রক্ষার জন্য অভিযান চালিয়ে অধিকাংশ মা ইলিশ রক্ষা করা করা গেলেও প্রশাসনের চোখে বৃদ্ধাআঙ্গুল দিয়ে অভিনব পদ্ধতি অবলম্বনের মাধ্যমে কাচকিগুড়া মাছ ধরার নামে চলছে ইলিশ পোনা নিধন। আর এই নিধনকৃত পোনা ইলিশ মাছ কাচকি গুড়া মাছের সাথে সাথে অবাধে বিক্রি হচ্ছে শহরের বিভিন্ন বাজারে।
ঝালকাঠি সদর পৌর এলাকার সব কয়টি খেয়াঘাট থেকে প্রতিদিন মোন কে মোন মাছ আসছে শহরে। এক শ্রেনির অসাধু মাছ ব্যবসায়ী টলার অথবা মটোর সাইকেল যোগে এই মাছ নদী তীরবর্তী বিভিন্ন গ্রাম দেউরী, নাপিতের হাট, চর বাটারা কান্দা, বারোইকরন খেয়া, সরই, মাটি বাঙ্গা,মালিপুর, দিয়াকুল থেকে জেলেদের কাছ থেকে ৬০/৭০ টাকা দড়ে কিনে আনেন। এবং শহরের বিভিন্ন বাজারে, কেউবা ভ্যানে করে হেটে হেটে প্রতিকেজি ২০০ শত টাকা করে ক্রেতার কাছে বিক্রি করছেন।
জেলা, উপজেলা মৎস কর্মকর্তা অথবা প্রশাসনিক কর্মকর্তা ঝালকাঠি সুগন্ধা নদীতে অভিযান যাওয়ার সময় মাছ কেনার অপেক্ষায় থাকা অসাধু ব্যবসায়ী অথবা তার রেখে যাওয়া কোন লোক, পৌরসভা খেয়াঘাট, পুরাতন কলেজ খেয়াঘাট, লঞ্জঘাট খেয়া সংলগ্ন বসবাস রত মাছ ব্যবসাইরা মোবাইল ফোনে নদীর ভিতরে থাকা জেলেদের সতর্ক করেন। যার কারনে মৎস কর্মকর্তা অথাবা প্রশাসনিক কর্মকর্তা অভিযান চালালেও অনেক সময় ব্যর্থ হয়ে ফিরে আসেন।আর এ সকল জেলে সব সময় ধরাছোয়ার বাহিরে থাকে যান।
ক্রাইম ডায়রি/// ক্রাইম