নাটবল্টু বায়েজিদের গ্রামের বাড়িতে হামলা

Total Views : 84
Zoom In Zoom Out Read Later Print

যে কারনেই নাট বল্টু খুলুক এটা যে একটি জঘন্যতম অপরাধ সেই বিষয়টিই এখন মুখ্য আলোচনার বিষয় দেশ জুড়ে। সাধারন মানুষকে যতই বুঝানোর চেষ্টা করা হোক যে এমন একটি সেতুর কোন দরকারই ছিলনা কিন্তু ভুক্তভোগী জনসাধারন যারা চোখের সামনে মৃত্যু হলেও দ্রুত হাসপাতালে যেতে পারতনা; যারা নির্ঘাত মৃত্যুকে মাথায় নিয়ে শিশু কিশোর আবাল বৃদ্ধ বনিতাকে নিয়ে উত্তাল তরঙ্গ পারি দিতে গিয়ে অসংখ্যবার মহান আল্লাহ তায়ালার কাছে পারাপারের জন্য একটি সুন্দর ব্রীজ কামণা করত সেই সাধারন জনগনকে  কে বোঝাবে? এ সাধ্য কার? এ সেতু পদ্মা পারের সাধারন জনগণের স্বপ্ন আশা ও আকাংখার সুস্পষ্ট প্রতিফলন ঘটিয়েছে। তাই এ সেতুকে নিয়ে ন্যুনতম কটুক্তিও কেউ মেনে নিতে পারেননা।

এমন একটি সেতুর কোন দরকারই ছিলনা কিন্তু ভুক্তভোগী জনসাধারন যারা চোখের সামনে মৃত্যু হলেও দ্রুত হাসপাতালে যেতে পারতনা; যারা নির্ঘাত মৃত্যুকে মাথায় নিয়ে শিশু কিশোর আবাল বৃদ্ধ বনিতাকে নিয়ে উত্তাল তরঙ্গ পারি দিতে গিয়ে অসংখ্যবার মহান আল্লাহ তায়ালার কাছে পারাপারের জন্য একটি সুন্দর ব্রীজ কামণা করত সেই সাধারন জনগনকে  কে বোঝাবে? এ সাধ্য কার? 

 পটুয়াখালী জেলা সংবাদদাতাঃ 

যে কারনেই নাট বল্টু খুলুক এটা যে একটি জঘন্যতম অপরাধ সেই বিষয়টিই এখন মুখ্য আলোচনার বিষয় দেশ জুড়ে। সাধারন মানুষকে যতই বুঝানোর চেষ্টা করা হোক যে এমন একটি সেতুর কোন দরকারই ছিলনা কিন্তু ভুক্তভোগী জনসাধারন যারা চোখের সামনে মৃত্যু হলেও দ্রুত হাসপাতালে যেতে পারতনা; যারা নির্ঘাত মৃত্যুকে মাথায় নিয়ে শিশু কিশোর আবাল বৃদ্ধ বনিতাকে নিয়ে উত্তাল তরঙ্গ পারি দিতে গিয়ে অসংখ্যবার মহান আল্লাহ তায়ালার কাছে পারাপারের জন্য একটি সুন্দর ব্রীজ কামণা করত সেই সাধারন জনগনকে  কে বোঝাবে? এ সাধ্য কার? এ সেতু পদ্মা পারের সাধারন জনগণের স্বপ্ন আশা ও আকাংখার সুস্পষ্ট প্রতিফলন ঘটিয়েছে। তাই এ সেতুকে নিয়ে ন্যুনতম কটুক্তিও কেউ মেনে নিতে পারেননা।

এরই  ধারাবাহিকতায় পদ্মা সেতুর রেলিংয়ের নাট-বল্টু খুলে ভিডিও করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়ানো সেই পটুয়াখালী সদর উপজেলার তেলীখালী গ্রামের বাসিন্দা মো. আলাউদ্দিনের ছোট ছেলে বায়েজিদ তালহার গ্রামের বাড়িতে হামলার ঘটনা ঘটেছে। জানা গেছে রোববার বিকালে ৩০-৪০ জনের একটি দল রামদা ও ধারালো অস্ত্র নিয়ে তার গ্রামের বাড়িতে হামলা করে। অনেকেই ছাত্রলীগের একটি অংশ এ হামলার সঙ্গে জড়িত রয়েছে বলে দাবী করলেও সাধারন এলাকাবাসীও দেখা যাচ্ছে তার উপর ক্ষিপ্ত হয়ে আছে। ফলে ঠিক কারা হামলা করেছে তা স্পষ্ট নয়।

বায়েজিদের বড় ভাইয়ের স্ত্রী হাদিসা আক্তার বলেন, রোববার বিকাল ৪টার দিকে ১০-১২টি মোটরসাইকেলযোগে ৩০-৪০ জনের একটি দল রামদা ও ধারালো অস্ত্র নিয়ে তার গ্রামের বাড়িতে হামলা করে। এ সময় দুর্বৃত্তরা এলোপাতাড়ি হামলা করে বসতঘর ভাংচুর করে।

এমন একটি সেতুর কোন দরকারই ছিলনা কিন্তু ভুক্তভোগী জনসাধারন যারা চোখের সামনে মৃত্যু হলেও দ্রুত হাসপাতালে যেতে পারতনা; যারা নির্ঘাত মৃত্যুকে মাথায় নিয়ে শিশু কিশোর আবাল বৃদ্ধ বনিতাকে নিয়ে উত্তাল তরঙ্গ পারি দিতে গিয়ে অসংখ্যবার মহান আল্লাহ তায়ালার কাছে পারাপারের জন্য একটি সুন্দর ব্রীজ কামণা করত সেই সাধারন জনগনকে  কে বোঝাবে? এ সাধ্য কার? 

বাড়িতে বায়েজিদের বড়ভাই সোহাগ মৃধার স্ত্রী হাদিসা একাই থাকেন। সোহাগ ফায়ার সার্ভিস সিভিল ডিফেন্স পটুয়াখালীতে কর্মরত। বায়েজিদের আরেক বড়ভাই শিপন মৃধা কাস্টমসে খুলনায় কর্মরত আছেন। বায়েজিদ ঢাকা কলেজে অনার্স ও বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মাস্টার্স করেন। বায়েজিদের বৃদ্ধ বাবা মো. আলাউদ্দিন মৃধা ঢাকায় থাকেন।

এদিকে হামলার ঘটনার পর সদর থানার এসআই ছলিমুর রহমান ও রেজাউল করিম নেতৃত্বে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। পটুয়াখালী সদর থানার ওসি মো. মনিরুজজামান বলেন, হামলার ঘটনা শুনে পুলিশ পাঠানো হয়েছিল। কিন্তু এ বিষয়ে কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি। পারিবারিক কারণে এলাকাভিত্তিক কোনো ঘটনা ঘটতে পারে। অভিযোগ পেলে তদন্তসাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে তিনি জানান।

ক্রাইম ডায়রি/ আইন শৃঙ্খলা

See More

Latest Photos