• শুক্রবার ( সকাল ৮:০৬ )
    • ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং

ভালুকা দূর্নীতিঃঃ প্রতিবাদী জনতাকে হুমকি

স্পেশাল ডেস্কঃঃ

বড়ই বিচিত্র এ জগত সমাজ।।। মনে হয় সবাই সত্য ও সততার পক্ষে।মৃত্যু ভয়ে সবাই কাতর। পরক্ষণেই দেখা মেলে চরম  অসততায় ভরা সমাজের নরম ও সত্যের পক্ষের মানুষগুলোর উপর চরম নির্যাতন।।।

এ সমাজ ব্যবস্থার রন্ধ্রে রন্ধ্রে ঢুকে গেছে রাজনীতির- “ভিলেজ পলিটিক্স”। ফেসবুকের এক কোনে পড়ে থাকা একটি পোষ্ট নাড়া দিল।।।সাড়া দিল এই মন।।।অন্ততঃঃ হক কথাটাতো হোক।। সত্যবাদীরা প্রতিবাদীরা  অন্ততঃঃ হতাশ না হোক।।

ফেসবুকের পোষ্টটি পড়ে বোঝা গেল,সেই আলোচিত   ভালুকার   দূর্নীতি ও জালিয়াতির  ঘটনায় প্রতিবাদীী সাধারন জনতা আজ চরম বিপদের মুখোমুখি।।।     পোস্টটি জনস্বার্থে ও নজরে আনার জন্য হুবহু তুলে ধরা হলো——                  “ভাই, যে কোন মুহুর্তে এরেষ্ট হইবার পারি। আফসোস নাই। জেল ফাস তো মাইনষের জন্যই। অন্যায় করে যদি কারো শাস্তি না হয়, আর বিচার চাইয়া যদি বিনা কারনে জেলে যাইতে হয় গেলামই। জেলে গেলে ভাই জামিনের ব্যবস্থা টা করুইনযে। সমর দাদারে (বাদী) যদি ফোনে থ্রেড দিবার পারে, আমরা তো ভাই কিছুই না।

এলাকার এক প্রতিবেশী ভাই কিছুক্ষণ আগে ভালুকার আলোচিত ১৭ কোটি টাকার জালিয়াতি এবং দুর্নীতির মামলার পক্ষে অবস্থান নেওয়ার কারনে তার উপর মিথ্যা পুলিশি হয়রানির আশংকার কথা জানিয়ে উক্ত কথা গুলো বলল।

সে এও বললো ভালুকার এক জনপ্রতিনিধি মোবাইল ফোনে উক্ত মামলার বাদী সমর আলীকে পুলিশ দিয়ে ধরিয়ে নিয়ে যাওয়ার হুমকি দিয়েছেন। সেই সাথে বদমাইশ বলে গালিও দিয়েছেন।

আমি অনেকটা বোবার মত কথা গুলো শোনলাম। ঘুমাতে যাওয়ার আগে বিবেকের তাড়নায় কথা গুলো শেয়ার না করে থাকতে পারলাম না এই কারনে যে, গ্রামের এই অসহায় লোক গুলো একটা অনিয়ম, জালিয়াতি, আর বিশাল দুর্নীতির বিরুদ্ধে অবস্থান নেওয়ার কারনে তাদের উপর কতভাবে প্রেসাইরাইজড করে এবং ভয়ভীতি দেখিয়ে মামলা তুলে নেওয়ার ইংগিত দেওয়া হচ্ছে বিষয়টি আমার মুখের কথা না বিশ্বাস না হলে ভুক্তভোগীদের কাছ থেকে শুনে নিয়েন।

আর মামলা নিয়ে আমার নিজ ইউনিট পিবিআই যে ভেলকি দেখাচ্ছে সেটা হয়তো নীরবে হজম করছি। অনেক কিছু দেখেও না দেখার ভান করছি। জেনেও না জানার অভিনয় করছি। তবে এটাও ঠিক অপরাধীদের বাচাতে এই ভেলকি যেন আবার বুমেরাং না হয়।

ভাবছিলাম এসব বিষয় নিয়ে চুপ থাকব। কিন্তু অসহায় লোকগুলার করুন আকুতি সত্যিই আমাকে ব্যথিত করে। একটু সুপরামর্শ যে তাদের দিবে এমন লোকটিও তারা খুজে পায়না। আমার নীরবতা তাদের মনে হয়তো শংকা জাগায়, তবে কি আমিও ওদের দলে যারা নীতি আর আদর্শ বিক্রি করে অপরাধীদের পক্ষ অবলম্বন করে!

তাদের কিভাবে বুঝাই, আমার জীবন থাকতে কখনোই এমনটি হবে না।

নীতি আর আদর্শে অটুট থাকেন। দুনিয়ার কোন শক্তিই আপনাকে দমাতে পারবেনা।”

এভাবেই থাকে এগুলো সংবাদপত্রের কিংবা নিউজ মিডিয়ার অন্তরালে।। কেউ এগুলো তুলে ধরতে আগ্রহী নয়। সুবিধাবাদ জিন্দাবাদকেই এরা জীবন চলার নীতি হিসেবে বেছে নিয়েছে।।।

তাই, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বঙ্গকন্যা শেখ হাসিনা বিষয়টি ব্যক্তিগত ভাবে দেখবেন এমনটাই আশাবাদ আপামর দেশবাসীর।।

ক্রাইম ডায়রি///অপরাধজগত////জনস্বার্থে/ তথ্যসুত্র- ফেসবুক পোস্ট(গুরুত্বপূর্ন ও নির্ভরযোগ্য)

 

286total visits,2visits today

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *