• রবিবার ( রাত ৪:০৩ )
    • ৭ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং

রাজাপুরে স্মার্ট কার্ড বিতরনে অর্থ হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ

ইমাম বিমান, ঝালকাঠি অফিসঃ
https://youtu.be/qmSEYuVgpw0
রাজাপুরে স্মার্ট কার্ড বিতরনে খোদ উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তার বিরুদ্ধেই অর্থ হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগী সাধারন জনগন।
ঝালকাঠি জেলার রাজাপুর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আবু ইউসুফের বিরুদ্ধে  রাজস্ব খাতের অর্থ হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ।
২৫জুলাই বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার শুক্তাগড় ইউনিয়ন পরিষদে স্মার্ট কার্ড বিতরণের সময় নির্বাচন কর্মকর্তা আবু ইউসুফের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ পাওয়া যায়। এ বিষয় অভিযোগ কারীরা জানান, যাদের জাতীয় পরিচয়পত্র হারিয়ে গেছে অথবা ডুপ্লিকেট কপি আছে তাদের কাছ থেকে জনপ্রতি ৩৪৫ টাকার পরিবর্তে ৩৬০ টাকা ডাচ বাংলা মোবাইল ব্যাংকিং এর নামে ভুয়া কাগজ দিয়ে হাতিয়ে নেয়া হচ্ছে মোটা অংকের টাকা। এতে অভিযোগকারীরা মনে করেন নির্বাচন অফিসারের যোগসাযোগে সরকারের লক্ষ লক্ষ টাকা রাজস্ব ফাকি দিচ্ছেন সংঘবদ্ধ এই চক্রটি।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, পরিষদের দ্বিতীয় তলার কন্যারের একটি কক্ষে কোন রকমের ডিভাইস বিহীন গৌরনদী উপজেলার শুসান্ত শিকারীর ছেলে গৌরনদীতে অবস্থিত পার্থ কম্পিউটার সিস্টেম এর কর্মচারী সৌরভ শিকারী কাজ করছেন আর অপরদিকে কাজ তদারকির জন্য একই কক্ষের ভিতরে দাড়িয়ে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আবু ইউসুফ দাড়িয়ে প্রকাশ্যে ধুমপান করছেন। জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন বা হারিয়ে যাওয়া অথবা ডুপ্লিকেট কপি যাহাদের আছে তাদের কাছ থেকে আবু ইউসুফের ছত্রছায়ায় সৌরভ শিকারী ব্যাংক বা মোবাইল ট্রানজেকশন ছাড়াই নাম মাত্র একটি স্লিপের মাধ্যমে সরকার নির্ধারিত টাকার চেয়ে বেশি টাকা জমা নিচ্ছেন।
এ বিষয় নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ব্যক্তি অভিযোগ করে জানান, রাজাপুর উপজেলার সাতুরিয়া ইউনিয়ন পরিষদে  স্মার্ট কার্ড বিতরনের সময় নির্বাচন অফিসার প্রায় অর্ধ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন এবং যদি এই চক্রটি বাকী সব ইউনিয়নে তাদের প্লান বাস্তবায়ন করতে পারেন তাহলে এই উপজেলা থেকে কয়েক লক্ষ টাকা রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে অর্থ হাতিয়ে নিবেন।
অভিযাগকারীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে ব্যাংকিং ছারা টাকা নেওয়ার বিষয়ে সৌরভ শিকারীর কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, আমি গ্রাহকদের সুবিধার্থে রেজিষ্টারে লিখে রাখি পরবর্তীতে মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে টাকা পাঠিয়ে দিবো। অথচ নির্বাচন কমিশনের নিয়মানুযায়ী, যাদের পরিচয়পত্র হারিয়ে গেছে তাদের চালান ফরমের মাধ্যমে নির্ধারিত কোডে ৩৪৫ টাকা ব্যাংকে জমা দিয়ে ভেন্যু থেকে স্মার্ট কার্ড গ্রহন করতে হবে।
এ বিষয়ে শুক্তাগড় ইউপি চেয়ারম্যান মজিবুল হক মৃধার কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি জানান, আমি আগে শুনেছি হারিয়ে যাওয়া কার্ডের জনপ্রতি  ৩৪৫ টাকা নেওয়ার কথা কিন্তু এখন দেখি তারা ৩৬০ টাকা নিচ্ছেন। তবে তারা রাজস্ব ফাঁকি দিচ্ছেন কিনা তা জানিনা।
এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা  ক্রাইম ডায়রিকে   জানান, “হারিয়ে যাওয়া কার্ডের জনপ্রতি ৩৪৫ টাকা এবং ডাচ বাংলা ব্যাংকের ভ্যাট বাবদ ১৫ টাকা নেওয়া হচ্ছে। টাকা নেওয়ার সময় এন্টি করতে দু একটা ভুল হতে পারে তবে আমরা গ্রাহকদের কাছ থেকে স্মার্ট কার্ড দেওয়ার সময় টাকা জমা দেওয়ার রশিদ ফেরত রাখা হয়। প্রকাশ্যে ধুমপান একটি আইনগত অপরাধ। যদিও
এ বিষয়ে কোন বাধ্য বাধকতা দৃশ্যমান নয় তবুও তিনি সরকারি কর্মকর্তা হয়ে এটা করতে পারেন কিনা এ ব্যাপারে জিজ্ঞেস করলে তিনি নিশ্চুপ থাকেন।
ক্রাইম ডায়রি//ক্রাইম//জেলা
Total Page Visits: 161 - Today Page Visits: 1

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Send this to a friend