• রবিবার (সকাল ৭:১১)
    • ২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

মধ্যরাতে করোনা রোগী নিতে আসার নাটকঃ যে কোন সময় আসলেই ৯৯৯ এ ফোন দিন

ইঞ্জিনিয়ার ওয়াসিম মোল্লাঃ

করোনা ভাইরাসের আক্রমনে জনজীবন যখন নাকাল তখন দুস্কৃতকারীরা করোনা রোগী নিতে এসেছি নাটকে ডাকাতির অপচেষ্টায় লিপ্ত। ইতোমধ্যে বিভিন্ন জায়গায় এমন ঘটনা ঘটানোর চেষ্টা করা হচ্ছে। যদি ভার্চূয়াল জগতে খুব একটা সুবিধে করতে পারছেনা মান্ধাতার আমলের ডাকাতদল।সম্প্রতি রাজধানী সহ দেশের বিভিন্ন জায়গায় এমন ঘটনার আলোচনা শোনা  যাচ্ছে। শনিবার যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী বিজ্ঞানী ও লেখক ড. আশরাফ আহমেদ তার ফেসবুক ওয়ালে এক পোস্টে এই ঘটনার কথা জানিয়েছেন। রাজধানীর উত্তরায় তার ছোট ভাইয়ের বাড়িতে গত শুক্রবার মধ্যরাতে একদল দুষ্কৃতিকারী এভাবেই প্রবেশের চেষ্টা করে।

এ বাড়িতে করোনা রোগী আছে, তাকে নিয়ে যেতে এসেছি জানিয়ে মধ্যরাতে দারোয়ানকে বারবার তাগাদা। দারোয়ান গেট না খোলায় সকালে এসে তাকে দেখে নেয়ার হুমকি। তবে মধ্যরাতে রাজধানীর উত্তরার যে বাড়িতে এমন ঘটনা সেখানে করোনা আক্রান্ত কোনো রোগীই ছিলো না। আর যদি থেকেও থাকে মধ্যরাতে এভাবে রোগী নিতে আসার কোনো নিয়ম নজিরও নেই। আবার টাঙ্গাইলে দিনের বেলাতেই এমন ঘটনার কথা শোনা গেছে।

‘কোনো অবস্থাতেই  প‌রিচয় নি‌শ্চিত না হয়ে অথবা তার বা তাদের কার্যক্র‌মের বৈধতা সম্প‌র্কে নি‌শ্চিত না হয়ে তাকে বা তা‌দেরকে ঘরে ঢুকতে দেবেন না’- বলা হয়েছে পুলিশের প্রেসনোটে।

ড. আশরাফ আহমেদ লিখেন, শুক্রবার রাত আনুমানিক একটার দিকে আমার ছোট ভাইয়ের উত্তরার বাড়িতে তিন-চারজন মানুষ এসে দারোয়ানকে ডাকে। তারা জানান, হাসপাতাল থেকে এসেছেন। কারণ তাদের কাছে তথ্য রয়েছে এই বাড়িতে করোনা আক্রান্ত রোগী রয়েছে এবং তাকে তারা নিয়ে যাবেন। তারা বারবার বারবার মেইন গেট খুলে দেবার জন্য চাপ দেন। দারোয়ানের বর্ণনা মোতাবেক ওই লোকদের দুই/তিন জন পিপিই, মাস্ক ও গ্লাভস পরিহিত ছিল। গার্ড খানিকটা ত্যাড়া প্রকৃতির হওয়ায় তাদেরকে পরিষ্কারভাবে জানিয়ে দেন এখন স্বয়ং বাড়িওয়ালা ওপর থেকে এসে গেট খোলার জন্য বললেও তিনি কিছুতেই গেট খুলে দেবেন না। তাদের যদি সত্যি সত্যিই করোনা রোগী নিয়ে যেতে হয় তবে সকাল পর্যন্ত বাহিরে অপেক্ষা করতে হবে। কোনভাবেই গার্ড গেট খুলে না দেয়ায় তারা তাকে যাচ্ছেতাই ভাষায় গালিগালাজ করে চলে যায় এবং শাসিয়ে যায় যে সকালে এসে তাকে দেখে নেবে’- যোগ করেন ড. আশরাফ।

তবে সকালে কেউ সেই বাড়িতে করোনা রোগী নিতে আসেননি। যদিও বাড়িটিতে প্রকৃতপক্ষে কোনো করোনা রোগী নেই। তাই তাদের ধারণা, কোনো দুষ্কৃতিকারী কিংবা চোর-ডাকাত করোনা রোগীর কারণ দেখিয়ে কোনো অঘটন ঘটানোর চেষ্টা করেছিল।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে সরকার ঘোষিত ছুটির মধ্যে এমন ঘটনা আতঙ্ক বাড়িয়ে তুলেছে বাড়িওয়ালা ও বাসিন্দাদের। করোনা রোগীর তথ্য সংগ্রহ ও জরুরি সেবার ছলে অপরাধীরা বিভিন্ন বা‌ড়ি‌তে গিয়ে দুষ্কর্ম ঘটানোর চেষ্টা চালাচ্ছে বলে অভিযোগ শুনে সবাইকে সতর্ক করে শনিবার প্রেসনোট দিয়েছে পুলিশ। যা ইতোমধ্যে সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।

এদিকে করোনাভাইরাসের রোগীর তথ্য সংগ্রহ ও জরুরি সেবার নামে কেউ বাড়িতে এলে ৯৯৯ বা থানায় ফোন করে পরিচয় নিশ্চিত হতে বলেছে পুলিশ সদর দপ্তর।এতে আরো বলা হয়েছে, ‘ইদানীং লক্ষ্য করা যাচ্ছে, করোনা‌ রোগীর তথ্য সংগ্রহ ও জরুরী সেবার নামে কিছু দুষ্কৃ‌তিকারী সাধারণ মানুষের বাড়িতে গিয়ে অপরাধ সংঘটনের সু‌যোগ নিচ্ছে। বাংলা‌দেশ পু‌লিশ সব সময় আপনার পাশে রয়েছে।’

‘কোনো অবস্থাতেই  প‌রিচয় নি‌শ্চিত না হয়ে অথবা তার বা তাদের কার্যক্র‌মের বৈধতা সম্প‌র্কে নি‌শ্চিত না হয়ে তাকে বা তা‌দেরকে ঘরে ঢুকতে দেবেন না’- বলা হয়েছে পুলিশের প্রেসনোটে।

ক্রাইম ডায়রি//ক্রাইম//

 

Total Page Visits: 66746

জাতীয় সংসদে করোনার তান্ডব হতে মুক্তির জন্য দোয়া

আরিফুল ইসলাম কাইয়্যুম,মহানগর প্রতিনিধিঃ

করোনাভাইরাস একটি বৈশ্বিক মহামারী। যুগে যুগে মহান আল্লাহ তায়ালা তার অবাধ্য বান্দাগনকে বিভিন্ন ধরনের পরীক্ষার সম্মুখীন করেছেন। মুমিনেরা এসময় চরম ধৈর্য্য  ধরবে এটাই ইসলামের শিক্ষা। করোনার আক্রমন বাংলাদেশ ও বিশ্বের ওপর ‘গজব’ আখ্যায়িত করে এ থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য সংসদে তওবাসহ মোনাজাত করা হয়েছে।

চলতি সংসদের সদস্য শামসুর রহমান শরীফসহ কয়েকজন সাবেক সংসদ সদস্য ও বিশিষ্টজনের মৃত্যুতে শনিবার (১৮ এপ্রিল) সংসদে শোক প্রস্তাব উত্থাপন করা হয়। শোক প্রস্তাব উত্থাপনের পর তা গৃহীত হওয়ার পর মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনায় মোনাজাতে করোনা প্রসঙ্গ উঠে আসে।

মোনাজাত পরিচালনা করেন ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী মিয়া। এ সময় তিনি কান্নাজড়িত কণ্ঠে বারবার আল্লাহর কাছে ক্ষমা চান। তিনি বলেন, ‘আল্লাহ তুমি বলেছ, বান্দাদের তুমি হাওস করে পয়দা করেছো। ব্যক্তিগত কোনো কারণে কিংবা আমাদের কোনো পাপের কারণে বাংলাদেশের ওপর করোনা নামে গজব দিয়েছ। আজকে আমরা তোমার কাছে আত্মসমর্পণ করছি, কমপ্লিট সারেন্ডার করে তোমার কাছে তওবা পড়ছি। আল্লাহ তুমি বলেছ, আমি বান্দা সৃষ্টি করেছি তাদের দোয়া কবুল করার জন্য। আমরা তোমার কাছে দোয়া করছি, ফরিয়াদ জানাচ্ছি। আমরা তোমার কাছে তওবা করছি। আল্লাহ আমাদের তুমি মাফ করে দাও। সাথে সাথে তুমি বাংলাদেশের ওপর যে গজব নাযিল করেছ সেই গজবকে তুমি তুলে নাও। সারা বিশ্বে আক্রান্ত হয়েছে । বিশ্ববাসীকে তুমি হেফাজত কর। বাংলাদেশের ওপর তুমি তোমার খাস রহমত বরকত নাযিল কর। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে তুমি নেক হায়াত দান কর।’

তিনি আরও বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে যেভাবে এই করোনাভাইরাসকে মোকাবিলা করার জন্য বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে সেই তৌফিক তাকে দান কর। একটির পর একটি তিনি যে প্রোগ্রাম ঘোষণা করছেন সেই প্রোগ্রামগুলো যেন আমরা মেনে চলি।’

ডেপুটি স্পিকার বলেন, ‘তোমার হুকুম ছাড়া গাছের পাতাও নড়ে না। করোনাভাইরাস নামে যে আজাব-গজব দিয়েছ তার হাত থেকে তুমি আমাদের রক্ষা কর। সারা বিশ্বকে রক্ষা কর। ওই আবাবিল পাখির মুখে একটা ছোট্ট কংকর দিয়ে তুমি কাবাঘর রক্ষা করেছিলে। আমাদের মতো ধর্মপ্রাণ মুসলমান পৃথিবীর অন্য কোনো দেশে কম আছে। এই ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের দোয়া তুমি কবুল কর।’

‘বাংলাদেশের সর্বোচ্চ প্রতিষ্ঠান জাতীয় সংসদ। এই জাতীয় সংসদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীসহ তোমার দরবারে হাত তুলেছি। তুমি আমাদেরকে খালি হাতে ফেরত দিও না আল্লাহ। তুমি বলেছ, সরকারপ্রধান যদি সৎ হয় তার দোয়া কবুল কর। আমাদের মধ্যে কারও যদি হাত তোমার পছন্দ হয়, আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর হাতের ওছিলায় তুমি আমাদের সকলকে মাফ করে দাও। তুমি আমাদের সকলকে হেফাজত কর। বাংলাদেশ এবং বাংলাদেশের বাইরে যেসব মুসলমান রয়েছে তাদেরকে হেফাজত কর। বাংলাদেশের যাতে কোনো অর্থনৈতিক মন্দাভাব দেখা না দেয়, তার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যে সমস্ত প্রোগ্রাম শুরু করেছেন, সে প্রোগ্রামগুলো যাতে সাফল্যমণ্ডিত হয় সেই তৌফিক তুমি আমাদেরকে দান কর’-মোনাজাতে বলেন ডেপুটি স্পেকার ফজলে রাব্বী মিয়া।মহান আল্লাহতায়ালার নিকট ক্ষমা প্রার্থনা পূর্বক এই দোয়া আল্লাহতায়ালা কবুল করুন। সমগ্র মানবজাতী সুপথে পরিচালিত হয়ে মহান আল্লাহ তায়ালার সকল হুকুম ও আহকাম মেনে নিয়ে আল্লাহমুখী হওয়ার মাধ্যমে আল্লাহতায়ালা সকলকে হেফাজত করুন এটাই সবার কাম্য।

ক্রাইম ডায়রি//জাতীয়

Total Page Visits: 66746