• সোমবার (বিকাল ৪:৩৬)
    • ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

বঙ্গকণ্যা শেখ হাসিনা দেশবাসীকে করোনা মোকাবেলায় ঘরে থাকার অনুরোধ করেছেন

আতিকুল্লাহ আরেফিন রাসেলঃ

বঙ্গকণ্যা ও  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, করোনা ভাইরাসের সংক্রমনকে ছোট করে দেখার কোন সুযোগ নেই। তিনি বলেন ‘করোনাভাইরাসের সংক্রমণ থেকে দেশবাসীকে বাঁচাতেই সবকিছু বন্ধ করা হয়েছে। এ ভাইরাসের কারণে বিশ্ব স্থবির। আমাদের দেশে যাতে এর প্রাদুর্ভাব ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়তে না পারে সেজন্য জনগণকে সচেতন থাকতে হবে। এ লক্ষ্যে দেওয়া নির্দেশনাগুলো মেনে চলতে হবে।’ সবাইকে ঘরে থাকার অনুরোধ করেন তিনি । এছাড়া জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বাইরে না যাওয়া, মাস্ক পরা, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার আহ্বান জানান তিনি।

আজ রোববার সকালে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে করোনাভাইরাস পরিস্থিতি নিয়ে বরিশাল ও খুলনা বিভাগের জেলার কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন। গণভবন প্রান্তে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম, প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব তোফাজ্জল হোসেন মিয়া। ভিডিও কনফারেন্স সঞ্চালনা করেন প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বাঙালি বিজয়ী জাতি। সবার সহযোগিতায় দেশকে করোনা থেকে সুরক্ষিত রাখতে পারবো।তিনি বলেন, করোনাভাইরাসটি সংক্রামক। তাই দেশবাসীকে সতর্ক থাকতে হবে। স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে যে ২৩টি নির্দেশনা প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘করোনাভাইরাসটি সংক্রামক। তাই দেশবাসীকে সতর্ক থাকতে হবে। স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে যে ২৩টি নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে তা সবাইকে মেনে চলার অনুরোধ জানাচ্ছি।’ এ সময় করোনা প্রতিরোধে সরকারের গৃহীত সব পদক্ষেপ তুলে ধরেন তিনি।

ক্ষুদ্র ও মাঝারি চাষিদের জন্য পাঁচ হাজার কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজের ঘোষণা দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন,  আগামী অর্থবছরে চাষিদের জন্য পাঁচ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে। যা বাংলাদেশ ব্যাংকের মাধ্যমে বিতরণ করা হবে। ক্ষুদ্র ও মাঝারি চাষিরা পাঁচ শতাংশ সুদে এ ঋণ নিতে পারবেন। এছাড়া সারের জন্য ৯ হাজার কোটি টাকা ভর্তুকি, কৃষিতে যান্ত্রিকীকরণের জন্য ১০০ কোটি টাকা, বীজের জন্য ১৫০ কোটি টাকা এবং কৃষকদের জন্য আরও ১০০ কোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে।

বাংলা নববর্ষের সব অনুষ্ঠান বন্ধ থাকবে বলে আবারও উল্লেখ করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন,  ‘নববর্ষের সব অনুষ্ঠান, জনসমাগম ঘটিয়ে বাইরে কোনও প্রোগ্রাম করা যাবে না। ঘরে বসে রেডিও-টেলিভিশনে অনুষ্ঠান হবে বা সোশ্যাল মিডিয়ায় উদযাপন করা যাবে। কিন্তু কোনও জনসমাগম করা যাবে না। জনসমাগম করলে এই ভাইরাস সংক্রমণ ছড়িয়ে যাবে। সব অনুষ্ঠান বন্ধ থাকবে। তবে, বাসায় বসে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে অনুষ্ঠান করলে কেউ আপত্তি করবে না।’

কৃষকের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী বলেন,  ‘কেউ কোনও জায়গা ফাঁকা রাখবেন না। একটু জায়গাও ফেলে রাখবেন না। যার যতটুকু জায়গা আছে সবটুকুতে চাষাবাদ করুন।’

তিনি বলেন, কৃষক যাতে ফসলের ন্যায্য দাম পায় সরকার সে বিষয় গুরুত্বের সঙ্গে লক্ষ রাখবে। এ লক্ষ্যে এবার খাদ্য মন্ত্রণালয় দুই লাখ মেট্রিক টনের বেশি ধান-চাল ক্রয় করবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন,  ‘এখন ধান কাটার মৌসুম। কৃষি শ্রমিকদের কাজ ও যাতায়াতে সহযোগিতা করুন। যাতে তারা যেখানে কাজ করতে যেতে চায়, সেখানে গিয়ে কাজ করতে পারেন।’

করোনা পরিস্থিতির মধ্যে হাট-বাজার সম্পূর্ণ বন্ধ না রেখে বড় মাঠ দেখে সপ্তাহে একদিন অনন্ত হাঁট চালু রাখতে সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি আহ্বান জানালেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এতে মানুষের অন্তত স্বাভাবিক জীবনযাত্রা পরিচালনা করা সহজ হবে বলে জানান তিনি।

করোনাভাইরাস সংকট চলাকালীন কৃষি খাতে বিভিন্ন উদ্যোগ ও করণীয় গ্রহণের নির্দেশনা দেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘এরইমধ্যে প্রশাসন এবং পুলিশকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তারা তাদেরকে যথাযথ জায়গায় যাওয়ার ব্যবস্থা করে দেবেন। অর্থ্যাৎ কাজ একেবারে বন্ধ থাকবে না, কারণ একটা দেশ স্থবির হতে পারে না। কাজেই সেখানে তারা যদি যেতে পারেন, কাজ করতে পারেন।’

খাবারের দোকান পাঠ, ওষুধের দোকানপাঠ নেহাত প্রয়োজনীয় জিনিস সেগুলো সুনির্দিষ্ট সময় খোলা রাখতে হবে যেন মানুষকে জিনিসগুলো সরবরাহ করা যায়। সেদিকে খেয়াল রাখতে সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘একটা খোলা জায়গা, মাঠ যেখানে দূরত্বটা বজায় রেখে রেখে যার যার পণ্য নিয়ে বসবে এবং সবাই সেটা সেখান থেকে কিনে নিয়ে চলে যাবে। মানুষের মাঝে অনেক মানুষের যেন ভিড় না হয়, সেই বিষয়টা আপনারা বিশেষভাবে দৃষ্টি দেবেন। সেটিই আমি অনুরোধ জানাচ্ছি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আর আজকাল তো ডিজিটাল বাংলাদেশ, টেলিফোন সকলের আছে, মোবাইল ফোন আছে। আর এটার কিছু কিছু উদ্যোগও নিতে পারেন। যেটা নির্দেশনা তার বাড়িতে বাড়িতে জিনিসগুলি পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা করা তাতে কিছু লোকের কর্মসংস্থানও হবে। ভ্যান রিকশা কোনকিছু করে পৌঁছে দিলে। অর্থ্যাৎ মানুষের সঙ্গে মানুষের সংস্পর্শ যত কমানো যায় সেটিই ভালো। এটা কমিয়ে রেখে আপনি আপনার অনেক কাজ যেতে পারেন। কাজেই আমাদের ফসল নষ্ট হওয়া বা তরিতরকারি ফলমূল যেগুলি হচ্ছে, সেগুলি নষ্ট হওয়ার কোনো সুযোগ নেই। সেটা পাঠানোর জন্য আমরা আইনশৃঙ্খলা বাহিনী থেকে শুরু করে সবাইকে আমরা অনুরোধ করছি যেন পণ্যগুলো যথাযথ জায়গায় পৌঁছে বাজারজাত করার ব্যবস্থা করে দিতে পারে।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন,‘তবে বাজারে যাওয়ার সময়ও এই দূরত্বটা বজায় রাখতে হবে। এমননি যেখানে হাঁট হয়। হাট বাজারও সম্পূর্ণ বন্ধ না রেখে ঠিক হাটের জায়গায় খুব বেশি লোক সমাগম হবে তাই বড় মাঠ দেখে সুর্নিদিষ্ট জায়গা চিহ্নিত করে দুরত্ব বজায় রেখে রেখে কেউ হাটে পণ্য বিক্রি করার একটা ব্যবস্থা সপ্তাহে একদিন অন্তত করা যায়। আমাদের আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী সংস্থা আছে, আমাদের যারা প্রশাসনের সঙ্গে আছেন তারা এবং স্বাস্থ্যকর্মীরা আছেন, সবাই মিলে ওইভাবে যদি একটা প্ল্যান করে আপনারা করেন, তাহলে কিন্তু মানুষের অন্তত স্বাভাবিক জীবনযাত্রাগুলো পরিচালনা করার সহজ হবে। সে ব্যবস্থাটা আপনারা নিতে পারেন।’

ক্রাইম ডায়রি//জাতীয়

Total Page Visits: 66255

ইউপি মেম্বরের বাড়ির মাটি খুড়ে মিলল ত্রানের চালের বস্তা

লালমোহন, ভোলা সংবাদদাতাঃ

ভোলার লালমোহন উপজেলা। ভালমানুষদের এলাকা বলে পরিচিত এই এলাকাতেই ভাল মানুষের মুখোশ পড়ে বাস করেন একজন বিখ্যাত চাল চোর। তার মাটি খুঁড়ে সরকারি চাল উদ্ধার করেছে পুলিশ। তিনি লালমোহনের বদরপুর ইউনিয়নের মেম্বর। স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে , ১২ এপ্রিল,২০২০ ইং রোববার সকালে ৯৯৯-এ ফোন পেয়ে লালমোহন থানা পুলিশ বদরপুর ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ড মেম্বার জুয়েলের ঘরের খাটের নিচে মাটি খুঁড়ে লুকিয়ে রাখা ৭ বস্তা চাল উদ্ধার করে।

এ সব চাল সরকারি খাদ্য বান্ধব কর্মসূচির। ইউপি মেম্বার জুয়েল আত্মগোপন করলে তার বাবা সাবেক মেম্বার নান্নুকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ আটক করেছে।

জুয়েলকে না পাওয়ায় তার বাবা নান্নুকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে উল্লেখ করে তিনি আরও জানান, সরকারি খাদ্য অধিদফতরের নাম লেখা ৭টি খালি বস্তা ও ৭টি খাদ্য বান্ধব কর্মসূচির কার্ড পাওয়া যায় ওই ঘর থেকে।

লালমোহন থানার ওসি মীর খায়রুল কবীর বলেন, রোববার সকাল ৬টার দিকে ট্রিপল নাইনে ফোন পাই বদরপুর ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ড মেম্বার জুয়েলের ঘরে মাটির নিচে চাল লুকিয়ে রাখা হয়েছে। পরে আমরা ওই বাড়িতে অভিযান চালাই। এ সময় জুয়েল মেম্বারের ঘরের খাটের নিচ থেকে মাটি খুঁড়ে ৫ বস্তা চাল ও ঘরের পেছন থেকে আরও ২ বস্তা চাল উদ্ধার করি।

স্থানীয় ও থানা সুত্রে জানা গেছে, এর ঠিক  একদিন আগে একই ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ড মেম্বার ওমরের এলাকা থেকে বিভিন্ন বাড়িতে ও সমিলের কাঠের গুঁড়ার মধ্যে লুকিয়ে রাখা আরও ১৫ বস্তা চাল উদ্ধার করা হয়। ওই ঘটনায় ইউপি চেয়ারম্যান মো. ফরিদুল হক তালুকদার, তার ভাতিজা ওয়ার্ড মেম্বার ওমরসহ ৪ জনকে আসামি করে মামলা হয়। ওমর মেম্বারকে পুলিশ গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠায়।

ক্রাইম ডায়রি//জেলা/ক্রাইম

Total Page Visits: 66255

উজিরপুর পৌরসভায় ১০টাকা মূল্যের চাল বিতরণ শুরু

আব্দুর রহিম সরদার,উজিরপুর প্রতিনিধিঃ

উজিরপুর পৌরসভায় করোনা ভাইরাস উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর ঘোষিত খাদ্য বান্ধব কর্মসূচির আওতায় ১০ টাকা মূল্যের চাল বিতরণের কার্যক্রম শুরু হয়েছে। কর্মসূচিকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন উজিরপুর পৌর মেয়র মোঃ গিয়াস উদ্দিন বেপারী সহ সমাজের সর্বস্তরের জনসাধারণ। জানা যায় সপ্তাহের ৩দিন পৌরসভার বিভিন্ন স্থানে জন প্রতি ৫ কেজি করে চাল বিতরণ করা শুরু হয়। খাদ্য কর্মকর্তা মশিউল আলম জানান মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে খাদ্য অধিদপ্তরের অধিনে হতদরিদ্রদের মাঝে পৌরসভায় ২ জন ডিলারের মাধ্যমে প্রতিদিন ১টন করে চাল দেওয়া হচ্ছে । দেখা যায় রবিবার ইচলাদী সঃ প্রাঃ বিদ্যালয় মাঠে দীর্ঘলাইনে দাড়িয়ে হতোদরিদ্ররা ৫কেজি করে চাল নিচ্ছেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র মোঃ হেমায়েত উদ্দিন, ট্যাগ অফিসার আনসার ভিডিপি কর্মকর্তা প্রমুখ।

ক্রাইম ডায়রি//জেলা

Total Page Visits: 66255

ভোলায় ইউএনও’র হস্তক্ষেপে ট্রাকের ত্রিপলের নিচ হতে সবজির পরিবর্তে অসুস্থ শ্রমিক উদ্ধার

ইমাম বিমান, জেলা প্রতিনিধিঃ
কোভিড-১৯ তথা করোনা ভাইরাসের কারনে  লকডাউন দেশে গনপরিবহন চলাচল নিষিদ্ধ হলেও অধীক আয়ের আসায় মানুষকে পন্য বানিয়ে একস্থান থেকে অন্য স্থানে বহন করার বিকল্প পথ হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে (গনপরিবহন ছাড়া) পন্যবাহী বিভিন্ন  পরিবহন। ঠিক তেমনি ভোলা জেলার বোরহানউদ্দিন উপজেলাধীন আলীমুদ্দিন বাংলাবাজার হতে পন্যবাহী একটি ট্রাকে মানুষ ভর্তি করে উপরে ত্রিপল টানিয়ে মানুষকে পন্য সাজিয়ে জামালপুরের উদ্দেশ্যে রওনা হওয়া পন্যবাহী একটি ট্রাক থেকে ঘামে শরীর ভেজা অবস্থায় ক্লান্ত হয়ে অসুস্থ প্রায় ৩৫জন ব্লক নির্মান শ্রমিককে উদ্ধার করেন বোরহানউদ্দিন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ( ভারপ্রাপ্ত) মোঃ বশির গাজী।
৯ এপ্রিল বৃহস্পতিবার বিকালে উপজেলার আলিমুদ্দিন-বাংলাবাজার এলাকা থেকে একটি ট্রাক জামালপুরের উদ্দেশ্যে রওনা হলে উপজেলার রানিগঞ্জ নামক এলাকা থেকে মোবাইল কোর্ট পরিচালনার সময় বোরহানউদ্দিন উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) মোঃ বশির গাজী গাড়ীটি আটক করে ৩৫ জন ব্লক নির্মান শ্রমিককে ভেজা শরীরে ক্লান্ত অবস্থায় উদ্ধার করেন।
এ বিষয় বোরহানউদ্দিন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) মোঃ বশির গাজীর কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি
ক্রাইম ডায়রির এই প্রতিনিধিকে জানান, উপজেলার রানিগঞ্জ এলাকায় ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনার সময় বোরহাউদ্দিন উপজেলার আলিমুদ্দিন-বাংলাবাজার এলাকা থেকে ছেড়ে আসা একটি ট্রাক আটক করা হয়।
আটককৃত সন্দেহভাজন ট্রাকটিতে তল্লাশী চালন হয়। এসময় ট্রাকে বাঁধা ত্রিপলের নিচে মানুষ দেখতে পেলে তাদেরকে বাহিরে আসতে বলা হয়। তারা একে একে ভেজা শরীর নিয়ে ৩৫জন লোক বেড়িয়ে আসে। এবং সবাই জোরে জোরে শ্বাস করতে থাকে, আবার কেউ ক্লান্ত হয়ে পড়ছেন। হয়তো আর কিছুক্ষন থাকলে তাদের শ্বাস কষ্টে মৃত্যুও হতে পারতো। ট্রাক থেকো নেমে আসা মানুষ গুলো মেঘনা নদী ভাঙ্গন রোধে তারা ব্লক নির্মানের কাজ করেন বলে জানান। এ সময় ট্রাক চালক স্বাধীনকে ভ্রাম্যমান আদালতে ৭ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। একই সাথে ট্রাকে আসা ৩৫ নির্মান শ্রমিককে তাঁদের গন্তব্যে পৌঁছার ব্যবস্থা করা হয়েছে।
ক্রাইম ডায়রি//জেলা
Total Page Visits: 66255

পিরোজপুরে নারায়নগঞ্জ হতে আসা ৮ জনের সাথে সংঘর্ষে পুলিশ-সাংবাদিকসহ ৫ জন আহত

শেখ সাথী ইসলাম,পিরোজপুর প্রতিনিধি:

ঢাকার পরপরই নারায়নগঞ্জকে করোনার হটস্পট হিসেবে চিহিৃত করা হয়েছে । এমতবস্থায় সারাদেশেই এমন

নির্দেশনা আছে যে ঢাকা অথবা নারায়নগঞ্জে হতে যে যেই এলাকায় ফিরবে তাদেরকে অবশ্যই বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। এতে সে, তার পরিবার এবং এলাকাবাসী নিরাপদ থাকবে। এ নির্দেশ অমান্য করে নারায়নগঞ্জ জেলা থেকে ট্রলারে পিরোজপুরের স্বরুপকাঠীতে আসা লোকজনকে সরকারী নির্দেশনা অনুযায়ী কোয়ারেন্টাইনে নিতে গিয়ে প্রথমে সংঘর্ষের পরে সারারাত ট্রালারে নদীতে অবস্থান শেষে তাদের স্বরুপকাঠী উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সে কোয়ারেন্টাইনে নেয়া হয়েছে। আজ শুক্রবার সকালে নারায়নগঞ্জ জেলা থেকে ট্রলারে পিরোজপুরের স্বরুপকাঠীতে আসা ১৮ জনকে স্বরুপকাঠী উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়।

বৃহস্পতিবার রাতে স্বরুপকাঠী উপজেলার কাটাপিটানিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে হোম কোয়ারেন্টাইনে নিতে গিয়ে সংঘর্ষে পুলিশ-সাংবাদিকসহ ৫ জন আহতের ঘটনায় স্বরুপকাঠী থানায় ৯ জনকে নামীয় আসামী ও ৫০ জনকে অজ্ঞাত করে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

স্বরুপকাঠী থানার ওসি মো: কামরুজ্জামান তালকুদার মুঠো ফোনে  জানান, বৃহস্পতিবার সকালে নারায়নগঞ্জ শহর থেকে একটি ভাড়া করা ট্রলারে করে উপজেলার বলদিয়া ইউনিয়নসহ পাশ্ববর্তী এলাকার কিছু লোক বলদিয়া ইউনিয়নে আসে। বিষয়টি স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ শহিন মিয়া প্রশাসনকে জানায়। পরে স্বরুপকাঠী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সরকার আবদুল্লা আল মামুন বাবু ওই লোকদেরকে কাটাপিটানিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কোয়ারেন্টাইনে রাখার জন্য বলদিয়া ইউপি চেয়ারম্যানকে নির্দেশ দেন। নির্দেশ পেয়ে বিকেলে নারায়নগঞ্জ থেকে আসা ১৮ জনকে ইউনিয়নের কাটাপিটানিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কোয়ারেন্টাইনে রাখতে নিয়ে যায় ইউপি চেয়ারম্যান। এসময় এলাকার কয়েক‘শ মানুষ লাঠিসোটা নিয়ে চেয়ারম্যান ও পুলিশের উপর হামলা চালায়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে পুলিশ লাঠিচার্জ করে। হামলায় সাংবাদিক গোলাম মোস্তফা, পুলিশ সদস্য তাজেল, আল মামুন,ইউপি সদস্য মো. সুমন ও চেয়ারম্যানের ব্যক্তিগত গাড়ীর চালক মাসুম বিল্লাহ আহত হয়।

পিরোজপুরের জেলা প্রশাসক আবু আলী মো: সাজ্জাদ হোসেন  জানান, নারায়নগঞ্জ জেলা থেকে ট্রলারে পিরোজপুরের স্বরুপকাঠীতে আসা ১৮ জনকে আজ সকালে স্বরুপকাঠী উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। এছাড়া তাদের খাবার ও নিরাপত্তার ব্যবস্থাও করা হয়েছে।

ক্রাইম ডায়রি//জেলা

Total Page Visits: 66255

বাগেরহাটের চিতলমারী-টুঙ্গিপাড়া সীমান্তবর্তী সেতুর চেকপোষ্টে ০২ করোনা রোগী সনাক্ত

শেখ সাইফুল ইসলাম কবির.সিনিয়র স্টাফ রিপোর্টার,বাগেরহাট:

বাগেরহাটের চিতলমারী ও গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়া উপজেলার সীমান্তবর্তী শেখ লুৎফর রহমান (পাটগাতী) সেতুতে চেকপোস্ট বসানো হয়েছে। শুক্রবার সকালে চিতলমারীর মচন্দপুর ঘাট এলাকায় প্রশাসন ও স্থানীয় জনসাধরণের সহযোগিতায় চিতলমারী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মারুফুল আলম জরুরি পরিসেবা ব্যতিত সকল প্রকার যান চলাচল ও জনসাধরণের চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে রাস্তার এ চেকপোস্ট বসান।

গত বৃহস্পতিবার গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়া উপজেলার গেমাডাঙ্গা গ্রামের একই পরিবারের দুই সদস্য কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হওয়ায় চিতলমারী উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা পরিষদের উদ্যোগে চিতলমারী ও টুঙ্গিপাড়া সেতুর সংযোগ সড়কে এ চেকপোস্ট বসানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন চিতলমারী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অশোক কুমার বড়াল, চিতলমারী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পীযূষ কান্তি রায়, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান শেখ মাহাতাবুজ্জামান প্রমুখ।

এ ব্যাপারে চিতলমারী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অশোক কুমার বড়াল জানান, টুঙ্গিপাড়ায় ২ জন করোনা ভাইরাস আক্রান্ত রোগী সনাক্ত হওয়ায় বাগেরহাট জেলা প্রশাসক মহোদয়ের নির্দেশক্রমে চিতলমারী ও টুঙ্গিপাড়ার এ সেতুতে চেকপোস্ট বসানো হয়েছে।

ক্রাইম ডায়রি//জেলা

Total Page Visits: 66255