• সোমবার (বিকাল ৩:২৬)
    • ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

করোনা সনাক্তে নতুন অ্যাপস আনছে গুগল ও অ্যাপল

ইঞ্জিনিয়ার আয়াতুস সাইফ মুনঃ

করোনা ভাইরাস সনাক্তের জন্য আধুনিক মোবাইল প্রযুক্তি আনছে গুগল ও অ্যাপল। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ব্যক্তির সংস্পর্শে এসেছেন কিনা তা ব্যবহারকারীকে জানিয়ে দেবে স্মার্টফোন। এমন একটি প্রযুক্তির উন্নয়ন ঘটাচ্ছে অ্যাপল ও গুগল। প্রযুক্তি বিশ্বের এই দুই মহারথির যৌথ উদ্যোগের মূল লক্ষ্য হলো কোনও অ্যাপস ডাউনলোড ছাড়াই একজন ব্যবহারকারী এই সেবা নিতে পারবেন। ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত গোপনীয়তা বজায় রেখেই এই সেবা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে তারা। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে, ইতোমধ্যে এই প্রযুক্তি খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ইউরোপীয় ইউনিয়নের ডাটা প্রটেকশন সুপারভাইজারও ইতিবাচক মনোভাব দেখিয়েছেন।

অ্যাপল ও গুগলের বিশ্বাস, স্বেচ্ছায় এই প্রযুক্তি গ্রহণকারীদের ব্যক্তিগত গোপনীয়তা নিশ্চিত করা যাবে। ব্যবহারকারীর কন্ট্রাক ট্রেসিং (যোগাযোগ শনাক্ত) পদ্ধতিতে ব্যবহার হবে স্মার্টফোনের ব্লুটুথ সিগনাল। এর মাধ্যমেই সম্প্রতি ব্যবহারকারীকে আক্রান্তের ঝুঁকিতে ফেলার মতো কাছাকাছি আসা ব্যক্তিকে শনাক্ত করবে ওই প্রযুক্তি। পরে সান্নিধ্যে আসা কোনও ব্যক্তির করোনাভাইরাস শনাক্ত হলে স্মার্টফোন ব্যবহারকারীর কাছে সংকেত পাঠানো হবে। এই প্রযুক্তিতে কোনও জিপিএস লোকেশন তথ্য বা ব্যক্তিগত তথ্য রেকর্ড করা হবে না।

অ্যাপল ও গুগলের এক যৌথ বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘এই উদ্যোগের চূড়ান্ত গুরুত্ব হলো গোপনীয়তা, স্বচ্ছতা ও সম্মতি। আর আগ্রহী অংশীদারদের সঙ্গে আলোচনার ভিত্তিতে আমরা এটি কর্মক্ষম করার দিকে তাকিয়ে আছি। অন্যদের বিশ্লেষণের জন্য আমরা আমাদের কাজ খোলামেলাভাবে প্রকাশ করবো।’

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, এই প্রযুক্তি বিশ্লেষণ করে দেখার জন্য তার প্রশাসনের সময় প্রয়োজন। হোয়াইট হাউসের এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, এটা খুবই আগ্রহ উদ্দীপক কিন্তু ব্যক্তি স্বাধীনতার প্রশ্নে অনেকেই এনিয়ে উদ্বিগ্ন। তিনি বলেন, ‘আমরা এটা খুব কঠোরভাবে খতিয়ে দেখতে যাচ্ছি। আর খুব শিগগিরই এবিষয়ে জানাতে পারবো।’

তবে গুগল ও অ্যাপল যে প্রযুক্তি নিয়ে কাজ করছে তাতে মানুষ বিদেশে ভ্রমণ বা অন্য যে কোনও ব্যক্তির সংস্পর্শে আসার সময়েও কাজ করতে থাকবে। এই উদ্যোগ নিয়ে গত প্রায় দুই সপ্তাহ ধরে কাজ করছে গুগল। তবে শুক্রবারের আগে তা প্রকাশ করা হয়নি। এই উদ্যোগ সফল হলে বহু দেশের লকডাউন প্রত্যাহার ও সীমান্তে কড়াকড়ি শিথিলের জন্য সহায়ক হবে।

তবে এর চেয়ে বেশি ইতিবাচক মনোভাব দেখিয়েছেন ইউরোপীয়ান ইউনিয়নের ডাটা প্রটেকশন সুপারভাইজার। তিনি বলেন, ‘এই উদ্যোগের আরও মূল্যায়নের দরকার। তবে খুব দ্রুত দেখার পরেও মনে হয়েছে এটা সঠিক পথে এগুচ্ছে।’ তবে অনেকেই বলছেন এই উদ্যোগের সফলতা নির্ভর করতে পারে যথেষ্ট মানুষের করোনা পরীক্ষার ওপর।

আইওএস অপারেটিং সিস্টেসের ডেভেলপার প্রতিষ্ঠান অ্যাপল আর অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমের নেপথ্যের প্রতিষ্ঠান গুগল। এই দুই অপারেটিং সিস্টেমই বিশ্বের বেশিরভাগ স্মার্টফোনে ব্যবহার হয়।।

সিঙ্গাপুর, ইসরায়েল, দক্ষিণ কোরিয়া এবং পোলান্ডের মতো কয়েকটি দেশ ইতোমধ্যে মানুষের ফোন ব্যবহার করে করোনাভাইরাস সংক্রমণের সতর্কতা পাঠাচ্ছে। এছাড়া যুক্তরাজ্যম ফ্রান্স, ও জার্মানির স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষও নিজস্ব উদ্যোগ নিয়ে কাজ করছে। যুক্তরাষ্ট্রের কয়েকটি মিউনিসিপ্যাল সরকার তৃতীয় পক্ষের অ্যাপ ব্যবহার করে মানুষকে সতর্ক করছে।

ক্রাইম ডায়রি//তথ্য প্রযু্ক্তি

 

Total Page Visits: 66253

সাংবাদিকদের বেতন ভাতা দিতে টেলিভিশন মালিকদের প্রতি তথ্যমন্ত্রীর আহবান

কালিমুল্লাহ দেওয়ান রাজা,পল্টন প্রতিনিধিঃ

প্রশাসনের মত করোনা যুদ্ধে ময়দানে আছেন সাংবাদিকবৃন্দ। কিন্ত, সুরক্ষা সেবায় তারা আছেন অনেক পিছিয়ে। ইতোমধ্যে তিনজন সাংবাদিক করোনায় আক্রান্ত হবার খবর পাওয়া গেছে। এ বিষয়ে মাননীয় তথ্যমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষন করা হলে তিনি সাংবাদিক ও গণমাধ্যমকর্মীদের স্বাস্থ্যসুরক্ষা নিশ্চিত করা ও বকেয়াসহ বেতন-ভাতাদি পরিশোধের আহ্বান জানিয়েছেন ।।  তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ ১১ এপ্রিল,২০২০ ইং শনিবার দুপুরে রাজধানীর মিন্টু রোডের সরকারি বাসভবনে টেলিভিশন সাংবাদিকদের সংগঠন ব্রডকাস্ট জার্নালিস্ট সেন্টারের নেতাদের সঙ্গে বৈঠক শেষে এ আহ্বান জানান তিনি। ব্রডকাস্ট জার্নালিস্ট সেন্টারের সভাপতি রেজওয়ানুল হক রাজার নেতৃত্বে সেন্টার সচিব শাকিল আহমেদ এবং সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা, নজরুল কবীর ও শাহনাজ শারমিন বৈঠকে অংশ নেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘করোনার এই বৈশ্বিক দুর্যোগের সময় সংবাদকর্মীরা অনেক ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছেন। টেলিভিশন সাংবাদিকদের বিভিন্ন জায়গায় ছুটে বেড়াতে হচ্ছে। ইতোমধ্যে কয়েকজন সংবাদকর্মী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। অনেক সংবাদকর্মীকে কোয়ারেন্টিনে থাকতে হচ্ছে। সুতরাং তারা ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছেন। এই ঝুঁকি নিয়ে কাজ করার ক্ষেত্রে কীভাবে তাদের সহায়তা করা যায়, স্বাস্থ্যসুরক্ষা দেওয়া যায়, সেবিষয়ে আজ আলোচনা হয়েছে।’

ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ‘আলোচনায় জানতে পেরেছি অনেক টেলিভিশন থেকে বেতন-ভাতা দেওয়া হয়নি। আমি সব টেলিভিশন চ্যানেলের পরিচালনা পর্ষদকে অনুরোধ জানাব, যাদের বেতন-ভাতা দেওয়া হয়নি এই পরিস্থিতিতে আপনাদের কোনও কারণে অসুবিধা হলেও তাদের বেতন-ভাতা একইসঙ্গে বকেয়া পরিশোধ করুন।’

তিনি আরও বলেন, ‘সরকারের পক্ষ থেকে কীভাবে সংবাদকর্মীদের স্বাস্থ্যসুরক্ষা দেওয়া যায় এবং আজ যে ঝুঁকির মধ্যে তারা কাজ করছেন এটার ক্ষেত্রেও কী করা যায় সেগুলো নিয়েও আমরা কাজ করছি।’

ক্রাইম ডায়রি//জাতীয়

Total Page Visits: 66253

করোনায় আক্রান্ত ৫২% মানুষের বসবাস ঢাকা মহনগরীঃ দ্বিতীয় নারায়নগঞ্জ

আরিফুল ইসলাম কাইয়্যুম,নিজস্ব প্রতিনিধিঃ

করোনাভাইরাসে এ পর্যন্ত শনাক্ত ৪৮২ জনের মধ্যে ৫২% মানুষের বসবাস ঢাকা মহনগরীর বাসিন্দা। এরপরেই নারায়নগঞ্জের অবস্থান। আইইডিসিআর এর পরিচালক মীরজাদি সেব্রিনা ফ্লোরা এমন তথ্য দিয়ে বলেছেন, শনিবার শনাক্তদের মধ্যে ১৭ জনের বয়স ৩১ থেকে ৪০ বছর বয়সের মধ্যে। এছাড়া ১৫ জনের বয়স ৪১ থেকে ৫০ বছর বয়সের মধ্যে। এছাড়া নতুন করে যারা শনাক্ত হয়েছেন তাদের মধ্যে ১৪ জনই ঢাকার বাসিন্দা এবং ৮ জন নারায়নগঞ্জ জেলার।

ঢাকার মধ্যে সবচেয়ে ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে মিরপুর ও বাসাবো এলাকা। করোনাভাইরাস নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতরের নিয়মিত প্রেস ব্রিফিংয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক এই তথ্য জানিয়েছেন। বাংলাদেশে গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে ৫৮ জনের মধ্যে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। মারা গেছেন তিন জন।

বিগত কয়েক দিনের চেয়ে করোনাভাইরাসে শনাক্তের সংখ্যা কমেছে। গতকালের তুলনায় মুত্যুর সংখ্যাও কম।

মোট ৯৫৪টি নমুনা পরীক্ষা শেষে ওই ৫৮জনের মধ্যে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। গত ২৪ ঘণ্টায় যে তিন জনের মৃত্যু হয়েছে তাদের মধ্যে একজন ঢাকার এবং দুজন ঢাকার বাইরের বাসিন্দা । তাদের বয়স ৩৮, ৫৫ এবং ৭৪ বছর। নতুন করে সুস্থ হয়েছেন আরও তিন জন। এ নিয়ে সুস্থ হয়ে ফিরে গেছেন মোট ৩৬ জন।

সব মিলিয়ে বাংলাদেশে করোনাভাইরাসে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪৮২ জনে। আর মোট মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩০ জনে।। শনাক্ত ৫৮ জনের মধ্যে ৪৮ জন পুরুষ এবং ১০ জন নারী।

 

বাংলাদেশে এ পর্যন্ত যতজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন তাদের মধ্যে ২২% শতাংশের বয়স ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে। এছাড়া ২১ থেকে ৩০ বছর বয়সীদের মধ্যে আক্রান্তের হার ১৯%। এবং ৪১ থেকে ৫০ বছর বয়সীদের আক্রান্তের হারও ১৯ ভাগ। মোট আক্রান্তের ৭০ ভাগই পুরুষ, এবং ৩০ ভাগ নারী।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা দিতে ঢাকার তিনটি স্থানে সাড়ে চার হাজার শয্যার ব্যবস্থা করার কথা জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। এছাড়া আরও কয়েকটি সরকারি হাসপাতাল এবং বেসরকারি হাসপাতালগুলোকে করোনাভাইরাস চিকিৎসার আওতায় আনার কথা তিনি জানান।

সামনের দিনগুলোকে জেলা-উপজেলা পর্যায়ের কমিউনিটি ক্লিনিক থেকে নমুনা সংগ্রহের পরিধি সম্প্রসারণের কথা জানিয়েছেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক আবুল কালাম আজাদ।

এজন্য প্রায় ১৪ হাজার স্বাস্থ্যকর্মীকে প্রশিক্ষণ দেয়া হবে বলে তিনি জানিয়েছেন। তবে যারাই এর সঙ্গে সংশ্লিষ্ট থাকবেন তাদের নিরাপত্তার জন্য সরকারের পক্ষ থেকে পর্যাপ্ত পরিমাণে ব্যক্তিগত সুরক্ষা সরঞ্জাম- পিপিএ সরবরাহ করার কথা জানানো হয়েছে।

তবে এখনও অনেক মানুষ ঘরে থাকার সরকারি নির্দেশনা মানছেন না উল্লেখ করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, নারায়নগঞ্জের অনেক বাসিন্দা দেশের অন্যান্য জেলায় গিয়ে ভাইরাসের সংক্রমণ ছড়িয়ে দিচ্ছে।  সংক্রমণের সংখ্যা আবারও বেড়ে যেতে পারে বলে তিনি আশঙ্কা প্রকাশ করেন। ৮ই মার্চ বাংলাদেশে প্রথম করোনাভাইরাস আক্রান্ত ব্যক্তি শনাক্ত হয়। প্রথম মৃত্যুর খবর আসে এর দশদিন পর অর্থাৎ ১৮ই মার্চ।

 

এরপর তিন সপ্তাহের বেশি সময়ে ১০০ জনের কম রোগী শনাক্ত হয়েছে বাংলাদেশে।

কেবল একটি সংস্থার অধীনে করোনাভাইরাস পরীক্ষা করা এবং যথেষ্ট পরিমাণ পরীক্ষা না করার কারণে ঐ সময় কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত হয়নি বলে সমালোচনার মুখে পড়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

এরপর গত কয়েকদিন ধরে পরীক্ষার পরিমাণ বাড়ানোর পর প্রতিদিনই করোনাভাইরাস শনাক্ত হওয়া রোগীর সংখ্যা বাড়ছে।

এর আগে মার্চ মাসের শেষদিকে বাংলাদেশের স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা বিভাগ জানায় যে বাংলাদেশে সীমিত আকারে কমিউনিটি ট্রান্সমিশন বা সামাজিক সংক্রমণ হচ্ছে।

বুধবার আইইডিসিআর পরিচালক মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা বিবিসি বাংলাকে বলেন, বাংলাদেশ এখন সংক্রমণের দিক থেকে তৃতীয় ও চতুর্থ স্তরের মাঝামাঝিতে রয়েছে। তবে তিনি আশংকা করেন সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখতে এবং লকডাউন মানতে জনগনের যে অসহযোগীতা তাতে ভয়াবহ অবস্থা হতে সময়ের ব্যাপার হতে পারে। তিনি জনগনকে লকডাউন মেনে সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখার জন্য অনুরোধ করেন।

ক্রাইম ডায়রি//সুত্র: বিবিসি বাংলা/জাতীয়

Total Page Visits: 66253