• শনিবার (রাত ২:৩২)
    • ২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

ঝালকাঠিতে ৬ বছরের শিশু ধর্ষণ মামলায় ধর্ষকের ১০ বছর কারাদন্ড

ইমাম বিমান, ঝালকাঠি  জেলা প্রতিনিধিঃ
ঝালকাঠিতে ৬ বছর বয়সি শিশু ধর্ষন মামলায় অভিযুক্ত ধর্ষক ফয়সাল হোসেন রনি শিকদারকে ১০ বছরের কারাদন্ড সহ পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো দুইমাস বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়। দিয়েছে ঝালকাঠির আদালত। ১০ মার্চ মঙ্গলবার বিকালে ঝালকাঠি নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-২ এর বিজ্ঞ  বিচারক শেখ মো. তোফায়েল হাসান এ রায় প্রদান করেন।
মামলার বিবরন সূত্রে জানাযায়, ২০০৯ সালের ২৭ জুলাই দুপুরে ঝালকাঠি জেলার নলছিটি উপজেলার কুশঙ্গল ইউনিয়নস্থ ফয়রা গ্রামের বাড়ির ছাদে পেয়ারা খেতে ৬ বছরের এক শিশু ছাদে গেলে ফয়রা গ্রামের নুরুল ইসলাম (নুরু পুলিশ) সিকদারের ছেলে
রনি সিকদার তাকে ধর্ষণ করে । এ সময় রনির ধর্ষনের শিকার ঐ শিশুটি চিৎকার শুরু করে। শিশুটির চিৎকারে তাঁর মা ছুটে এলে রনি সিকদার দৌড়ে পালিয়ে যায়। পরে শিশুটিকে উদ্ধার করে তার মা তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অপরদিকে ঘটনায় পরের দিন ২৮ জুলাই শিশুটির বাবা বাদী হয়ে নলছিটি থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। শিশুটির বাবার দায়ের করা ধর্ষন মামলার বিষয় নলছিটি থানা পুলিশ তদন্ত করে একই বছর ২০ অক্টোবর আদালতে একটি অভিযাগপত্র দাখিল করে। ২০১০ সালর ১১ জুলাই আদালতে মামলার অভিযাগ গঠন করা হয়।
আদালত ৬ জনর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে মঙ্গলবার ঝালকাঠি আদালতের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-২ এর বিজ্ঞ বিচারক শেখ মো. তোফায়েল হাসান আসামীর উপস্থিতিতে এ রায় প্রদান করেন। উল্লখ্য, ঘটনার সময় আসামী রনি সিকদার ১১ বছরের কিশোর হওয়ায়, শিশু আইন অনুযায়ী সাজা প্রদান করা হয়। দন্ডপ্রাপ্ত শিকদার ফয়সাল হোসেন  রনি (২০) কুশঙ্গলের ফয়রা গ্রামের নুরুল ইসলাম (নুরু পুলিশ) সিকদারের ছেলে ও ইউনিয়ন ছাত্রলীগের যুগ্ম আহবায়ক।
ক্রাইম ডায়রি// অপরাধ//আদালত//জেলা
Total Page Visits: 66602

উজিরপুরে এসিল্যান্ডের হস্তক্ষেপে বাল্য বিবাহ থেকে মুক্তি পেল দুই কিশোরী

োউজিরপুর প্রতিনিধিঃ

বরিশালের উজিরপুরে এসিল্যান্ডের হস্তক্ষেপে বাল্য বিবাহ থেকে মুক্তি পেল দুই কিশোরী। ১১ মার্চ বুধবার বেলা ১০টায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রণতি বিশ্বাসের নির্দেশে সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও এক্সেকিউটিভ
ম্যাজিষ্ট্রেট জয়দেব চক্রবর্তী উপজেলার বড়াকোঠা ইউনিয়নের গাজিরপাড় গ্রামের আকবর
আলী বেপারীর কিশোরী মেয়েকে জোর পূর্বক বাল্য বিবাহের সংবাদ পেয়ে তাৎক্ষণিক ভাবে
ঘটনাস্থলে ছুটে যান এসিল্যান্ড এবং পৌর মেয়র মোঃ গিয়াস উদ্দিন বেপারী। তাদের
উপস্থিতিতে বাল্য বিবাহ পন্ড হয়ে যায়। এ সময় কিশোরীর পিতা আকবর বেপারী প্রাপ্ত বয়স্ক
না হওয়া পর্যন্ত বিবাহ দেবে না বলে মুচলেকা প্রদান করেন। স্থানীয় ইউপি সদস্য মোশারেফ
হোসেনের জিম্মায় তাদেরকে রেখে আসা হয়। এ ছাড়া বেলা ১২টায় পূর্ব হারতা গ্রামের
আঃ জলিল বেপারীর মেয়েকে তথ্য গোপন করে প্রশাসনকে ফাঁকি দিয়ে বিয়ের আয়োজন করে।

 


খবর পেয়ে এসিল্যান্ড ঘটনাস্থল থেকে মেয়ের পিতা আঃ জলিলকে গ্রেফতার করে উপজেলায় এনে
মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে নগদ ২০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেন। এ সময় উপস্থিত
ছিলেন দায়িত্বপ্রাপ্ত পুলিশ অফিসার এস.আই মাহাতাব উদ্দিন। বাল্য বিবাহ প্রতিরোধে
আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়ায় এসিল্যান্ডকে সাধুবাদ জানান সচেতন মহল।
ক্রাইম ডায়রি///জেলা//ক্রাইম

Total Page Visits: 66602

চতুর্থ কলাম– “”করোনা মানেই মৃত্যু নয়, করোনাতে নেই ভয়””

চতুর্থ কলাম——-

“”করোনা মানেই মৃত্যু নয়, করোনাতে নেই ভয়””
সত্যিই অবাক করা বিষয়।।ডেঙ্গুতে রক্তের প্লাটিলেট কমে মানুষ মারা গেল অনেক।।মানুষ ভয় পেলোনা।।

সোয়ান ফ্লু,বার্ড ফ্লু কত ভাইরাসের দেখা মিলল কয়েক বছরে।। কিন্তুু, করোনা নিয়ে আতংক ও গুজব এতটাই সিরিয়াস হলো যে ভয়েই মানুষ অসুস্থ।।। গুজব সত্যিই বড় আজব।। মরার কথা যদি বলেন প্রতিদিন কত মানুষ রোড এক্সিডেন্ট করে মারা যায়,ক্রস ফায়ারে মারা যায়,বার্ধক্যজনিত কারনে মারা যায়,ক্যান্সারে মারা যায়, আত্মহত্যা করে মারা যায়,আর ও কত ভাবে মারা যায়,জানেন কি??? আর করোনায় এ পর্যন্ত বাংলাদেশে একজনও মারা গিয়েছে কি?? ডেঙ্গুর চেয়েও কি এটা ভয়াবহ??

গুজব বিশ্বাসী বাঙ্গালিকে আমি হতাশ করছি না।।।। সেলিনা রহমানের লেখা “নৃ সিংহ রহস্য” বইটা পড়লে গুজব ছড়ানোর প্রতি আমাদের ভালবাসা কি তা বোঝা যায়।। মেডিসিন,হাইজিন ও ক্লথ রিলেটেড ব্যবসায়ীরা মাশাল্লাহ কিভাবে আতংক ছড়ানোয় সহযোগীতা করছেন তা দেখছি আমরা।। করোনা সহজ রোগ নয়।।ভয়াবহ এটা নিশ্চিত।।কিন্তুু,ভয় পেলে মানুষের স্বাভাবিক রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায়।তাই এ জাতীকে নিয়ম মানার ক্ষেত্রে সভ্য হতে সহযোগীতা করুন। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির উৎকর্ষতা সাধনে সচেতন হতে সহযোগিতা করুন।।


তাই, গ্লোবাল সিরিয়াস ইস্যুতে সচেতন ব্যক্তিমাত্রই বিদেশি মিডিয়া হাউজগুলোর ওপর সতর্ক দৃষ্টি রাখবেন, এটাই স্বাভাবিক।
কিন্তু, ‘করোনা’ ইস্যুত এই বিদেশি মিডিয়া, বিশেষ করে আমেরিকান মিডিয়াগুলোকে বেশ ইন্টারেস্টিং লাগছে আমার কাছে। তারা সারাদিন ‘করোনা’ কে তাদের লিড নিউজ হিশেবে দেখাচ্ছে, খবরের পাতা থেকে জিনিসটা সরাচ্ছেই না একদম। বিশ্বের কোনো প্রান্ত থেকে যদি করোনাতে কোনো একটা মৃত্যুর সংবাদ পাওয়া যায়, সঙ্গে সঙ্গে সেটা তুলে দিচ্ছে লিড নিউজে।
মিডিয়াগুলো করোনায় মৃতের সংখ্যা হাইলাইট করছে বলে আমি বিরোধিতা করছি না। কিন্তু আশ্চর্যের ব্যাপার হলো, করোনায় আক্রান্ত হাজার হাজার লোক প্রতিদিন সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরছে সেটা বললে অন্ততঃ মানুষ আশাবাদী হতে পারে।।।

এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুহার ২% এর কাছাকাছি। এই ২% এর পাশে আমি ইচ্ছে করলে ‘মাত্র’ শব্দ যোগ করতে পারতাম, কিন্তু করিনি। আমার কাছে একটা প্রাণের মূল্যও অনেক। কিন্তু ব্যাপার হলো, এই যে হাজার হাজার মানুষ করোনা থেকে সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরছে, এটা কেনো মানুষকে জানানো হচ্ছেনা?
আরেকটা ইন্টারেস্টিং ডাটা শেয়ার করি। করোনা নিয়ে বিশ্বে সবচেয়ে বেশি হইচই করছে আমেরিকান মিডিয়া হাউজগুলোই। মুহূর্তে মুহুমূহু সংবাদ ছাপাচ্ছে তারা করোনা নিয়ে। এতে করে সারা পৃথিবীতে একটা প্যানিক ছড়িয়ে পড়েছে ভালোভাবে যে, করোনা ধরলে আর বুঝি রক্ষে নেই।
অথচ, করোনায় মৃতের সংখ্যার পাশাপাশি আমাদের যদি সুস্থ হয়ে উঠার ডাটাও মিডিয়া জানাত, তাহলে বোধকরি মানুষ এভাবে প্যানিক্ড হয়ে পড়তো না। মানুষ এখন ভাবছে, করোনা মানেই মৃত্যু।

কিন্তু, এই ফি বছর, খোদ আমেরিকাতেই নর্মাল ফ্লু’তে মারা গেছে বিশ হাজারের মতো মানুষ। একেবারে টাটকা খবর কিন্তু। নর্মাল ফ্লু মানে বুঝেছেন তো? এই যে জ্বর, সর্দি-কাশি ইত্যাদিতে। দেখুন, এই নর্মাল ফ্লুয়ের জন্য দুনিয়ায় হাজার রকমের প্রতিষেধক মজুদ আছে। আছে বাহারি রকমের চিকিৎসা।
এতোকিছু থাকা সত্ত্বেও, আমেরিকার মতোন দেশে এই ফ্লুতেই মারা গেছে বিশ হাজারেরও অধিক মানুষ। পুরো বিশ্বের হিসেব যে কি, তা তো বলার বাইরে।
অথচ, যে করোনাকে নিয়ে এতো হইচই মিডিয়া করছে, সেই করোনায় এখন পর্যন্ত মারা গেছে ২ হাজারের মতো। এই করোনার কিন্তু কোনো প্রতিষেধক আবিষ্কার হয়নি। কোনো প্রতিষেধক না থেকেও এতে মারা গেছে ২ হাজার, আর হাজার রকমের প্র্রতষেধক মজুদ থাকার পরেও নর্মাল ফ্লুতে আমেরিকায় নাই হয়ে গেছে বিশ হাজার।
‘করোনা আর মৃত্যু’ শব্দ দুটো শুনতে শুনতে আপনি নিশ্চয় ভয়ে কুঁকড়ে আছেন, না? তাহলে আপনাকে কয়েকটা আশার কথা শুনাই। হয়তো আপনার ভয়টা চলে যাবে। স্বাভাবিক জীবনযাপন করতে পারবেন।
-এখন পর্যন্ত করোনাতে কোনো শিশুর মৃত্যু সংবাদ পাওয়া যায়নি। শিশু মানে, করোনায় আক্রান্ত হয়ে ০-৯ বছরের কোনো শিশুর মৃত্যু ঘটনা দুনিয়ার কোথাও ঘটেনি। তাই, আপনার বাচ্চার ব্যাপারে বেশি ভয় পাওয়ার দরকার নেই। তবে, সতর্ক থাকতে হবে অবশ্যই।
– ১০-১৯ বছরের একজনের মৃত্যু সংবাদ পাওয়া গেছে এখন পর্যন্ত, তবে অনেকের মতে, সেটাও রহস্যজনক। আদৌ করোনায় কিনা, তা পুরোপুরিভাবে নিশ্চিত না।
– করোনা আক্রান্ত ৭০,০০০ মানুষের ওপরে একটা স্ট্যাডি হয়েছে, যেখানে দেখা গেছে ৮১% মানুষের সর্দি-কাশি হচ্ছে করোনার ফলে, আবার সেরেও যাচ্ছে। সুতরাং, বিশ্বাস রাখুন, আপনার-আমার যদি করোনা হয়েও থাকে, সাধারণ জ্বর-সর্দির মতো তা আবার সেরেও যাবে, ইনশাআল্লাহ। আশা নিয়ে বাঁচুন, ভালো থাকবেন। করোনা নিয়ে হাসি তামাশা করছি না। সতর্ক হতে হবে। বাইরে বের হতে মাস্ক পড়ুন, বারে বারে হ্যান্ডওয়াশ করুন, জনবহুল এলাকা এড়িয়ে চলুন। সবই করুন, কিন্তু প্যানিকড হবেননা। প্যানিকড হলে স্বাভাবিক জীবনযাপন বিপর্যস্ত হবে ভীষণভাবে। তখন করোনায় আপনার মৃত্যুর সম্ভাবনা না থাকলেও, প্যানিক থেকে তৈরি হতাশা আপনার মৃত্যুর সম্ভাবনা থেকে যাবে।।। মহান আল্লাহ তায়ালাকে ডাকুন।।ধার্মিকরা আল্লাহর উপর ভরসা করে।।।
সকাল-সন্ধ্যার যিকিরগুলো নিয়মিত করি। বেশি বেশি ইস্তিগফার করি। ভয় না পেয়ে আল্লাহর ওপর তাওয়াক্কুল করি।’’”””
সর্বোপরি, আল্লাহ তায়ালাকে ভয় করুন।।।।

আতিকুল্লাহ আরেফিন রাসেল
সম্পাদক ও প্রকাশক
ক্রাইম ডায়রি
+৮৮০১৯১৫৫০৬৩৩২

ক্রাইম ডায়রি//জাতীয়

Total Page Visits: 66602