• বৃহস্পতিবার (রাত ২:৪১)
    • ২৪শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

সাদেক হোসেন খোকা এখন জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণেঃ চিকিৎসকরা আশা ছেড়ে দিয়েছেন

অনলাইন ডেস্কঃ

সাবেক মেয়র ও বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সাদেক হোসেন হোসেন খোকা এখন জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে।  সুস্থ হওয়ার সম্ভবনা মা থাকায় তার জীবনের আশা ছেড়ে দিয়েছেন চিকিৎসকরা। কৃত্রিমভাবে শ্বাস-প্রশ্বাস নিতে হচ্ছে তাকে। চিকিৎসকরা তার চিকিৎসা বন্ধ করে দিয়েছেন।

সংকটাপন্ন অবস্থায় খোকাকে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের ম্যানহাটনের মেমোরিয়াল স্লোয়ান ক্যাটারিং ক্যান্সার সেন্টারে নিবিড় পরিচর্যাকেন্দ্রে (আইসিইউ) রাখা হয়েছে বলে তার পরিবার সূত্রে জানা গেছে। তার শেষ ইচ্ছে দেশে ফিরবেন।।দেশের মাটিতেই যেন তাকে সমাহিত করা হয়।

তবে, পাসপোর্ট না থাকায় এই অবস্থায় তাকে দেশে আনা অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে বলে তার পরিবার সদস্যরা জানিয়েছেন। এমনকি মৃত্যু হলেও তার লাশ দেশের মাটিতে এনে দাফন করা নিয়ে শঙ্কা দেখা দিয়েছে।

শুক্রবার দুপুরে খোকার পরিবারের বরাত দিয়ে বিএনপির চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান বলেন, ঢাকার সাবেক মেয়রের শারীরিক অবস্থা আশঙ্কাজনক। তার সুস্থ হওয়া নিয়ে আশা দেখছেন না চিকিৎসকরা। এমতাবস্থায় সাদেক হোসেন খোকার মৃত্যু হলে তার লাশ আনা নিয়ে দু:শ্চিন্তায় আছেন পরিবার। কারণ খোকা ও তার স্ত্রীর পাসপোর্ট নেই।

সাদেক হোসেন খোকা হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার আগে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকুকে বলে গেছেন, যেদেশে গণতন্ত্রের নেত্রী সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া কারাগারে, সেখানে আমি সুবিচার পাব এমনটি আশা করি না। জীবন বাজি রেখে যুদ্ধ করে দেশ স্বাধীন করেছি। দেশের মাটিতে দাফন হবে কিনা আল্লাহ জানেন।হাসপাতালে খোকার পাশে আগে থেকেই আছেন তার স্ত্রী ইসমত হোসেন, মেয়ে সারিকা সাদেক, ছোট ছেলে ইশফাক হোসেন। বাবার সংকটাপন্ন অবস্থার খবর পেয়ে ঢাকা থেকে তার বড় ছেলে প্রকৌশলী ইশরাক হোসেনও নিউইয়র্কে ছুটে গেছেন।

বাবার সবশেষ শারীরিক অবস্থা সম্পর্কে ইশরাক হোসেন জানান, পুরো ফুসফুসে ক্যান্সার ছড়িয়ে পড়েছে। অক্সিজেন দিয়ে তার বাবাকে বাঁচিয়ে রাখা হয়েছে। লোকজন এলে কাউকে কখনও কখনও তিনি চিনতে পারছেন বলে মনে হচ্ছে। গত কয়েক দিন থেকে তার চোখ দিয়ে অনবরত পানি ঝরছে।

বিএনপির বিদেশ বিষয়ক কমিটির সদস্য ইঞ্জিনিয়ার ইশরাক হোসেন আরও জানান, তার বাবা চিকিৎসা নিচ্ছিলেন কিডনি ক্যানসারের। হঠাৎ করেই ফুসফুস আক্রান্ত হলে তার শারীরিক অবস্থার দ্রুত অবনতি হয়। প্রচণ্ড শ্বাসকষ্টে ভুগছেন। তবে এখনো পর্যন্ত অক্সিজেন-সাপোর্ট নিয়ে বেঁচে আছেন। সবাইকে চিনতে পারছেন। কিন্তু কিছুই বলতে পারছেন না। সারাক্ষণ চোখ বেয়ে পানি গড়াতে থাকে।আমরা খুবই বিভ্রান্তি ও হতাশার মধ্যে আছি। আব্বু-আম্মু কারো পাসপোর্ট নেই। এখন কি করবো বুঝতে পারছি না।

ভিজিট ভিসার নিয়মানুযায়ী, ছয় মাস পর পর যাওয়া-আসা করে যুক্তরাষ্ট্রের ভিসা বৈধ রাখার নিয়ম। ২০১৭ সালে খোকা ও তার স্ত্রী ইসমত হোসেনের পাসপোর্টের মেয়াদ শেষ হয়ে যায়। তারা নিউইয়র্ক কনস্যুলেটে নতুন পাসপোর্টের জন্য আবেদন করেন। পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, নতুন পাসপোর্ট পাওয়ার ব্যাপারে কনস্যুলেট থেকে কোনো সদুত্তর দেয়া হয়নি। তাই যুক্তরাষ্ট্রে খোকার মৃত্যু হলে তাকে দেশে আনা নিয়ে জটিলতা সৃষ্টি হতে পারে।

ক্রাইম ডায়রি //রাজনীতি///

Total Page Visits: 66423

পরিছন্ন পরিবেশ গঠনে মানবসেবী ওরা তিনজন

 ইমাম বিমান,ঝালকাঠি সংবাদদাতাঃ
মানুষ হয়ে মানুষের সেবা করার ইচ্ছা থাকলে  মানবাধিকার কর্মী, রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব অথবা কোন ধন্যাঢ্য ব্যক্তি হওয়ার চেয়ে মনের ইচ্ছা শক্তি টুকুই যথেষ্ট বলে মনে করেন সাগর, চঞ্চল ও মিজান ওরা তিনজন মানবসেবী।
ঝালকাঠিতে হিন্দু হয়েও মুসলিম গোরস্থান পরিছন্নতায় প্রশংসিত মানবসেবী সাগর সহ ওরা তিনজন। ৩১ অক্টোবর বৃহস্পতিবার সকাল থেকে নিজেদের অর্থায়নে শ্রমিক নিয়োগ করে এ কাজ শুরু করেছেন তারা। গত বর্ষা মৌসুমে পানি জমে ঘাস ও লতাপাতায় পুরো গোরস্থান-১ এলাকা ছেয়ে যায়। গোরস্থানে পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা রক্ষায় অবশেষে আসিফ ইকবাল চঞ্চল, সাগর হালদার এবং মিজান রহমান নামের এ তিন যুবক আলোকিত এ  উদ্যোগ নিয়ে পরিষ্কার করেছেন মুসলিম গোরস্থান।
অসুস্থ রোগী, সড়ক দূর্ঘটনা, অথবা দরিদ্র কোন শিক্ষার্থীকে সার্থিক সহযোগীতায় এগিয়ে আশাই যাদের অন্যতম লক্ষ্য। আর তারই ধারাবাহিকতায় কয়েক বছর ধরে এই তিন ব্যক্তির সম্মিলিত প্রচেষ্টায় ঝালকাঠিতে অনেক প্রসূতি নারীর রক্তদান, দরিদ্র রোগীদের উন্নত চিকিৎসায় সহযোগীতা, অসুস্থ মেধাবী শিক্ষার্থীদের চিকিৎসেবায় সহযোগীতা করার কাজ করে আসছেন এই তিনজন মানবসেবী। গত ২৫ অক্টোবর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে ঝালকাঠি সদর উপজেলাধীন নবগ্রাম ইউনিয়নের খাদৈক্ষিরা গ্রামে ব্লাড ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে ৫নং ওয়ার্ড কৃষক লীগ সভাপতি রুস্তুম ব্যাপারী উন্নত চিকিৎসার অভাবে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে সংবাদের ভিত্তিতে ২৭ অক্টোবর রাতে ছুটে যান অসুস্থ রুস্তম ব্যাপারীর বাড়ীতে। সেখানে প্রায় শতবছর বয়সি রুস্তুমের মায়ের সাথে কথা বলে পরদিন উন্নত চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার কথা বলেন। কিন্তু বিধির বিধান পরের সকালেই রুস্তম ইন্তেকাল করার সংবাদ পেলে ছুটে যান সাগর ও মিজান। তাদের এ সহানুভতিতে নবগ্রাম এলাকাবাসী মুগ্ধ হয়ে তাদের জন্য দোয়া করেছেন। সর্বশেষ আজ ঝালকাঠি পৌরসভাস্থ গোরস্থান সেচ্ছায় সারাদিন ব্যক্তি পরিশ্রমের মাধ্যমে পরিস্কার করেছেন। আর হিন্দু হয়ে মুসলিম গোরস্থান পরিস্কার করার চমৎকার এই উদ্যোগে পৌরবাসীর মনে স্থান করে নিয়েছেন সেই সাথে ঝালকাঠি বাসীর আলোচনায় এসেছেন সাগর সহ ওরা তিনজন যুবক।
তাদের এ সকল উদ্যোগ নেয়ার বিষয় সম্পর্কে জানতে চাওয়া হলে সাগর হালদার জানান, আমি হতে পারি হিন্দু কিন্তু সেটা আমার কাছে বড় বিষয় নয় আমি মানব সেবায় কোন ধর্ম বর্ন বিবেচনা করি না। আমি সবসময় মনে করি আমরা সবাই মানুষ আর মানব সেবার মাধ্যমেই সৃষ্টিকর্তাকে পাওয়া যায় বলে আমি বিশ্বাষ করি। তাই কোন ধর্ম বর্নের ভেদাভেদ চিন্তা না করে আমি সহ আমরা তিনজন মানুষের বিপদে মানব সেবার লক্ষ্য কাজ করে যাচ্ছি।
এ বিষয় আসিফ ইকবাল চঞ্চলের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, আমরা সমাজের অনেক সমস্যার সমাধানে কতৃপক্ষের অপেক্ষায় থাকি।  কিন্তু আমরা যদি একটু চিন্তা করে তাদের দিকে না তাকিয়ে নিজেদের উদ্যোগে কাজ করি তাহলে সেই সকল সমস্যাও দ্রুত সমাধান হতে পারে। আর এই চিন্তা ধারার বহিপ্রকাশ ও বাস্তবায়নের লক্ষ্য আমাদের এ পদক্ষেপ। আর  ধর্মীয় চেতনার বিষয়তো রয়েছেই।
ক্রাইম ডায়রি//জেলা
Total Page Visits: 66423