• শনিবার ( সকাল ৬:২৬ )
    • ১৯শে অক্টোবর, ২০১৯ ইং

ব্যাংক হিসাব তলবঃ ছাড় পাচ্ছেন না কেউ

শরীফা আক্তার স্বর্নাঃ

বঙ্গকন্যার সরাসরি নির্দেশ তাই এবার ছাড় পাচ্ছেন না কেউই।।   যুবলীগ চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরীর সব ব্যাংক হিসাব তলব করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। বৃহস্পতিবার (৩ অক্টোবর) বাংলাদেশ ব্যাংকের আর্থিক গোয়েন্দা ইউনিট থেকে ওমর ফারুক চৌধুরীর সব ব্যাংক হিসাব তলব করে নোটিশ পাঠানো হয়েছে।

এরপর পুলিশের এআইজি মো. আনিসুর রহমান ও তার পরিবারের অর্থের খোঁজে নেমেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। তাদের সকল ব্যাংক হিসাব তলব করে আজ বৃহস্পতিবার এ বিষয়ে ব্যাংকগুলোকে চিঠি দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংকের ফাইন্যান্সিয়াল ইনটেলিজেন্স ইউনিট। জানা গেছে, একটি গোয়েন্দা সংস্থার অনুরোধে আনিসুর, তার স্ত্রী, বাবা ও মায়ের অ্যাকাউন্টে কী পরিমাণ লেনদেন হয়েছে সে তথ্যও চাওয়া হয়েছে।

ধারাবাহিক প্রক্রিয়ায় সকল করাপটেড কর্মকর্তাদের হিসাব খতিয়ে দেখা হবে বলে জানা গেছে।।

ওমর ফারুক চৌধুরীর নামে থাকা সব ধরনের ব্যাংক হিসাবের লেনদেন, বিবরণীর তথ্য তিন কার্যদিবসের মধ্যে পাঠাতে হবে। ক্যাসিনো কেলেঙ্কারির ঘটনায় এর আগেও কয়েকজন যুবলীগ নেতা ও ব্যবসায়ীর ব্যাংক হিসাব তলব করে বাংলাদেশ ব্যাংক। অনেকের ব্যাংক হিসাব অবরুদ্ধও (ফ্রিজ) করা হয়। ফ্রিজ করা হিসাব থেকে টাকা উত্তোলন ইতিমধ্যে বন্ধ হয়ে গেছে।

এর আগে, র‌্যাবের ক্যাসিনোবিরোধী অভিযানে গ্রেফতার হয়ে রিমান্ডে থাকা যুবলীগ নেতা জি কে শামীম ও খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়ার ব্যাংক হিসাব স্থগিত করে বাংলাদেশ ব্যাংক। এছাড়া জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চিঠির ভিত্তিতে জি কে শামীমসহ তার স্ত্রী ও তাদের মায়ের সব ব্যাংক হিসাবও জব্দ করে বাংলাদেশ ব্যাংক। একইসঙ্গে সংসদ সদস্য নুরুন্নবী চৌধুরী শাওন ও যুবলীগ নেতা ইসমাইল চৌধুরী সম্রাটসহ ১২ জনের ব্যাংক হিসাবও তলব করা হয়। আরও ১০ জনের ব্যাংক হিসাব তলব করা হয়েছে। তারা হলেন— ফারজানা চৌধুরী, প্রশান্ত কুমার হালদার, আফসার উদ্দীন মাস্টার, আয়েশা আক্তার, শামীমা সুলতানা, শেখ মাহামুদ জোনাইদ, মো. জহুর আলম, এস এম আজমল হোসেন, ব্রজ গোপাল সরকার ও শরফুল আওয়াল। অনেকে পাপ খেয়া আবার কেউ কেউ জুলুমের শাস্তি বলেও টিটকারী করছেন।।বাস্তবতা হলো, পাপীকে শাস্তি পেতেই হয়।।

ক্রাইমডায়রি///ক্রাইম//আইন শৃঙ্খলা

Total Page Visits: 16655