• শনিবার ( সকাল ৬:৩২ )
    • ১৯শে অক্টোবর, ২০১৯ ইং

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় পরিবেশ দূষণঃ সাত ফ্যাক্টরীকে সোয়া তিনকোটি টাকা জরিমানা

ফারুক হোসেন হৃদয়, নারায়নগঞ্জ অফিসঃ
প্রাচ্যের ড্যান্ডি বলে খ্যাত মিল কারখানার শহর
নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় পরিবেশ দূষণসহ নানা অনিয়মের অভিযোগে ছয়টি ডাইং কারাখানা এবং একটি রি- রোলিং মিলকে ৩ কোটি ১৮ লক্ষ ৪৮ হাজার টাকা জরিমানা করেছে পরিবেশ অধিদপ্তরের ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী কর্মকর্তা।
বৃহস্পতিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) সকাল থেকে বিকেল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত র‌্যাব-পুলিশের সহায়তায় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও পরিবেশ অধিদপ্তরের এনফোর্সমেন্ট বিভাগের পরিচালক রুবিনা ফেরদৌসির নেতৃত্বে সংস্থাটির ভ্রাম্যমাণ আদালত এ অভিযান চালায়।
এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন, এনফোর্সমেন্ট বিভাগের উপ-পরিচালক আল মামুন, নারায়ণগঞ্জ পরিবেশ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক সাঈদ আনোয়ার, র‌্যাব ১১ কালিরবাজার ক্যাম্পের ইনচার্জ (এএসপি) মোস্তাফিজুর রহমানসহ পবিরেশ অধিদপ্তরের অন্যান্য কর্মকর্তারা।
অভিযানে ইটিপি প্লান্ট না থাকা, প্লান্ট থাকলেও ব্যবহার না করা এবং অপরিশোধিত বর্জ্য ফেলে নদী ও খালের পানি দূষণের অভিযোগে সাতটি কারখানাকে জরিমানা করা হয়।
এর মধ্যে  সদর উপজেলার ফতুল্লা থানার লামাপাড়া কুতুবপুর এলাকায় অবস্থিত রূপসী নীটওয়্যার এন্ড ওভেন ডাইং কারখানায় ইটিপি প্লান্ট না থাকা, বজ্য মিশ্রিত পানি পরিশোধন না করে সরাসরি ডিএনডির খালে ফেলা, পরিবেশের ছাড়পত্র নবায়ন না করায় ও মাত্রাতিরিক্ত শব্দ দুষণের অভিযোগে ১ কোটি ৯৭ লাখ ৬৮ হাজার টাকা জমিরানা করা হয়।
জরিমানার অনাদায়ে রূপসী নীট ওয়্যারের নির্বাহী পরিচালক রফিকুল ইসলামকে আটকের পর র‌্যাবের গাড়িতে উঠানোর চেষ্টা করা হলে তিনি র‌্যাব ও পুলিশের সাথে ধস্তাধস্তিতে লিপ্ত হন।
ফতুল্লার শিয়াচর এলাকায় অবস্থিত ফজর আলী ডাইংএন্ড প্রিন্টিং ও ফিনিশিং কারাখানায় কয়েক দফা সময় নিয়েও ইটিপি প্লান্ট স্থাপন না করা এবং বজ্য মিশ্রিত দূষিত পানি ফেলে পরিবেশ দূষণের দায়ে ৭০ লাখ ৩৩ হাজার ৪শ’ ৪০ টাকা জরিমানা করা হয়।
একই অভিযোগে নন্দলালপুর জিএম ডাইংকে ২৪ লক্ষ ৪০ হাজার টাকা ও পারভেজ ডাইং কারখানাকে ২ লক্ষ ৬১ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।
এছাড়া কুতুবপুর এলাকায় অবস্থিত একই মালিকের তিনটি শিল্প প্রতিষ্ঠান লবোম্বে ডাইং, বোম্বে টেক্সটাইল মিলস ও আল মোজাদ্দেদ রি রোলিং মিলসকে পরিবেশ ও বায়ু দুষণের অভিযোগে ১৯ লক্ষ ৫৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।
এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ পরিবেশ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক সাঈদ আনোয়ার ক্রাইম ডায়রিকে   জানান, তারা প্রত্যেকেই ১৯৯৫ সনের পরিবেশ সংরক্ষন আইনের ৭নং ধারা লঙ্ঘন করে কারখানা পরিচালনা করে আসছিলো। ফলে পরিবেশ মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। তাই কারখানাগুলোতে অভিযান পরিচালনা করে জরিমানা করা হয়েছে। এ অভিযান অব্যাহত থাকবে। সতর্কতার পরও কেউ পরিবেশ দূষণ অব্যহত রাখলে তাকে জরিমান ও শাস্তির আওতায় আনা হবে।
ক্রাইম ডায়রি//ক্রাইম//আদালত
Total Page Visits: 16655