• শনিবার ( সকাল ৬:২৫ )
    • ১৯শে অক্টোবর, ২০১৯ ইং

ঝালকাঠিতে পাওনা টাকাকে কেন্দ্র করে হামলায় আহত গৃহবধুর থানায় অভিযোগ দায়ের

ইমাম বিমান,ঝালকাঠি প্রতিনিধিঃ

ঝালকাঠিতে পাওনা টাকাকে কেন্দ্র করে হামলায় আহত গৃহবধুর থানায় অভিযোগ দায়ের করার ঘটনা ঘটেছে।

অভিযোগ সূত্রে জানাযায়, পৌরসভাধীন ১নং ওয়ার্ডস্থ বিকনা এলাকার মৃত আবুল বাসার মুন্সীর ছেলে কাজল মুন্সী ও তার ছেলে আল আমিন মুন্সী একই এলাকার সুমন হাওলাদারের সাথে আটোরিক্সা বিক্রির টাকা পাবে বলে দাবী করে। সুমন এ বিষয় কিসের টাকা পাবেন বললে তাদের মধ্যে বাকবিতন্ড শুরু হয়। পরে গত গত ১২ সেপ্টেম্বর কাজল মুন্সী ও তার ছেলে আল আমিন মুন্সী সুমনদের বাড়ীতে যায় এ সময় কাজল মুন্সী সুমনকে ডেকে তার স্ত্রী রেবা বেগমের কাছে ৫হাজার টাকা পাবে বলে জানায়। এ সময় সুমন তার স্ত্রী রেবা ডেকে কাজল মুন্সী কোন টাকা পাবে কিনা জিজ্ঞাসা করলে রেবা জানায় তার কাছে কাজল মুন্সী কোন টাকা পাবে না। রেবা টাকা না পাওয়ার কথা জানালে তাদের উভয়ের মধ্যে বাকবিতন্ডের সৃষ্টি হয়। বাক বিতন্ডের একপর্যায় কাজল মুন্সীর ছেলে আলামিন এসে সুমনের সামনেই তার স্ত্রী রেবার উপর অতর্কিত হামলা চালালে ঘটনা স্থলেই রেবা আহত হয়। রেবার মুখমন্ডলে আঘাতের কারনে রক্ত যখম শুরু হলে রেবার স্বামী সুমন সহ স্থানীয়দের সহযোগীতায় রেবাকে ঝালকাঠি সদর হাসপাতলে ভর্তি করে। বর্তমানে রেবা ঝালকাঠি সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছে।

এ বিষয় আহত রেবা বেগমের স্বামী সুমন জানান, গত ১২ সেপ্টেম্বর কাজল মুস্নী ও তার ছেলে আলামিন আমাদের বাড়ীতে এসে ৫ হাজার টাকা পাবে বলে দাবী করে এ সময় আমার স্ত্রী কাজল মুন্সীকে বলে আপনি কোন টাকা পাবেন না বললে তার ছেলে উত্তেজিত হয়ে আমার সামনে আমার স্ত্রী রেবার উপর ঝাপিয়ে পরে তাকে কিল ঘুশি ও লাথি মারতে থাকলে আমার স্ত্রী মাটিতে পড়ে যায়। পরে তাকে উঠাতে গেলে দেখি তার নাক মুখ দিয়ে রক্ত পরতে থাকে। আমি স্থানীয়দের সহযোগীতায় আমার স্ত্রীকে নিয়ে হাসপাতালে যাই। উক্ত ঘটনাকে কেন্দ্র করে আমার স্ত্রী রেবা বাদী হয়ে কাজল মুন্সী ও তার ছেলে আলামিনের বিরুদ্ধে ১৪ সেপ্টেম্বর ঝালকাঠি সদর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

ক্রাইম ডায়রি//ক্রাইম//জেলা

Total Page Visits: 16655

গোপালগঞ্জে কোটালীপাড়ায় ইউপি চেয়ারম্যানের বহিস্কার চেয়ে এলাকাবাসীর মানববন্ধন

এম শিমুল খান, গোপালগঞ্জঃ

গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায় শিক্ষক পেটানো কান্দি ইউনিয়নের সেই ইউপি চেয়ারম্যানের বহিস্কার চেয়ে
মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী। শনিবার বেলা ১ টায় কান্দি কোটালীপাড়া সড়কে ধারা বাসাইল বাজার এলাকায় এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে ওই
ইউনিয়নের ৯ ইউপি সদস্যসহ এলাকাবাসী।
মানববন্ধন কর্মসূচি পালনকালে কান্দি ইউনিয়নের ওই চেয়ারম্যান উত্তম কুমার বাড়ৈ এর বিভিন্ন দূর্নীতি উল্লেখ করে ওই ইউনিয়ন পরিষদের সদস্যরাসহ সাধারন জনতা বক্তব্য রাখেন।
ইউপি সদস্যরা তাদের বক্তব্যে বলেন, সরকার যদি চেয়ারম্যানকে বহিস্কার না করে তাহলে তারা ৯ জন সদস্য গনপদত্যাগ করবেন। এর আগে গত বৃহস্পতিবার
চেয়ারম্যান উত্তম কুমার বাড়ৈ এর বিরুদ্ধে অনাস্থা  প্রস্তাব এনে গোপালগঞ্জ জেলা প্রশাসক, কোটালীপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকতাসহ বিভিন্ন দপ্তরে এর লিখিত কপি দেন ওই ইউনিয়নের ৯ জন সদস্য। লিখিত অভিযোগে কান্দি ইউনিয়ন পরিষদের ওই ৯ সদস্য তাদের চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে শিক্ষক পেটানো, অর্থ আত্মসাৎ, সাম্প্রদায়িক ইস্যু সৃষ্টি, পরিষদের সদস্য ও
জনগনের সাথে অসৌজন্য মূলক আচরণসহ ১৫টি অভিযোগ দায়ের করেন।

ক্রাইম ডায়রি//ক্রাইম//জেলা

Total Page Visits: 16655