• রবিবার ( রাত ১০:০৫ )
    • ১৮ই আগস্ট, ২০১৯ ইং

বাদী কে ধর্ষণ মামলা তুলে নিতে প্রাণনাশের হুমকির অভিযোগ

মোঃ শাহাদত হোসেন ভ্রাম্যমান রির্পোটারঃ

বগুড়া জেলার শেরপুর থানার  ভবানীপুর ইউনিয়নের আমিনপুর আদর্শ গ্রামে রুপালী খাতুন নামের এক মেয়েকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধারাবাহিক  ধর্ষনের ঘটনায় করা মামলা তুলে নিতে বাদীকে বাধ্য করার অভিযোগ করেছে বাদীপক্ষ। এমতবস্হায়, চরম নিরাপওাহীনতা ও অসহায়ত্ব বোধ করছেন ভুক্তভোগী পরিবারটি।  সোমবার বিকেলে শেরপুর প্রেসক্লাব কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এমন অভিযোগ করেন, মামলার বাদী রুপালী খাতুন। সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, বিগত তিন বছর আগে তার প্রথম স্বামী সঙ্গে ছাড়াছাড়ি হয়। এরপর তিনি ঢাকায় এসে এক গার্মেন্টসে চাকুরী নেন। সেই সময় একই গ্রামে হবিবর রহমানে ছেলে মাহবুবুর তালুকদার তাকে বিয়ে প্রস্তাব দেয় ও  প্রলোভণ দেখিয়ে   প্রেমের সর্ম্পক গড়ে তোলে। এমনকি বিয়ে প্রলোভন দেখিয়ে চলতি মাসে ১৮ জানুয়ারী রাতে জেলার সোনাতলা উপজেলার হুয়াহুয়া গ্রামে বন্ধুর বাড়ীতে নিয়ে রাতভর ধর্ষন করে  বলে অভিযোগ তার। তাছাড়া একাধিকবার বিভিন্ন স্হানে নিয়ে গিয়ে তাকে ধর্ষন করা হয়। কিন্তুু বিয়ে করতে চাপ দিলে সে  নানান তালবাহানা করতে থাকে।এক পর্যারে আদালতের দ্বারস্হ হন তিনি।

জেলা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে  একটা মামলা দায়ের করেন। যা বর্তমান বিচারধীন রয়েছে। সম্মেলনে ভুক্তভোগী বলেন, বেশ কিছুদিন ধরে মাহবুব ও তার ভাই মাসুদরানা মামলা তুলে নিতে অব্যাহত ভাবে নানান হমকী ধামকি দিচ্ছেন। এই ব্যাপারে বিবাদী মাসুদ রানা মুঠোফোনে  ক্রাইম ডায়রি প্রতিনিধি জানান – তাকে আমরা কেউ হুমকি ধামকি ও প্রাণনাশের হমকি দেইনি। সেই মেয়ে মিথ্যা বানোয়াট কথা বলেছে, সে আদালতে ভুয়া মামলা করেছে  আমার ভাইকে আমরা এক দিনের মধ্যেই বের করে এনেছি। কিছু দালাল ওই মেয়ের পিছে লেগেছে বলে বিবাদীরা জানান।

ক্রাইম ডায়রি//ক্রাইম///আদালত

5626total visits,77visits today

নগরীতে নতুন গ্যাস সংযোগ চালু এবং প্রিপেইড মিটার স্থাপন করুন—খোরশেদ আলম সুজন

হোসেন মিন্টু,বিভাগীয় অফিসঃ
চট্টগ্রামে বানিজ্যিক এবং আবাসিক খাতে স্থগিত গ্যাস সংযোগ পূণরায় চালু এবং প্রিপেইড মিটার স্থাপন করার জন্য কর্ণফুলী গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানী লিমিটেড এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক খায়েজ আহম্মদ মজুমদারের নিকট আহবান জানিয়েছেন জনদুর্ভোগ লাঘবে জনতার ঐক্য চাই শীর্ষক নাগরিক উদ্যোগের প্রধান উপদেষ্টা ও চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি খোরশেদ আলম সুজন। তিনি আজ ৯ জুলাই মঙ্গলবার বেলা ১২টায় কেজিডিসিএল এর ব্যবস্থাপনা পরিচালকের সাথে তার দফতরে এক মতবিনিময় সভায় উপরোক্ত বক্তব্য রাখেন।
এ সময় সুজন বলেন, চট্টগ্রাম হচ্ছে বাংলাদেশের বানিজ্যিক রাজধানী। দেশের প্রধানতম সমুদ্র বন্দর, আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর, সিইপিজেড, কেইপিজেড, তেল শোধনাগার, নৌ-বিমান ঘাটিসহ প্রধানতম শিল্প কারখানা সবই চট্টগ্রামে অবস্থিত। সে দিক থেকে চট্টগ্রামের গুরুত্ব অত্যধিক। দুঃখজনক হলেও সত্যি যে চট্টগ্রামের গ্রাহকের কাছ থেকে টাকা নিয়েও কেজিডিসিএল কর্তৃপক্ষ গ্রাহকদের নতুন গ্যাস সংযোগ প্রদান করছে না। এতে করে চট্টগ্রামের ব্যবসা বানিজ্য এবং গৃহস্থালী কাজে মারাত্নক সমস্যা হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী সদিচ্ছায় বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ে কোটি কোটি টাকার উন্নয়ন প্রকল্পের অনুমোদন দেওয়া হচ্ছে। ইতিমধ্যে দেশের জনগনের গ্যাসের চাহিদাকে গুরুত্ব দিয়ে প্রাকৃতিক গ্যাসের পাশাপাশি বিভিন্ন দেশ থেকে এলএনজি আমদানি করছে সরকার। কেজিডিসিএল কর্তৃপক্ষ চট্টগ্রামের জনগনকে আশ্বস্ত করেছিল এলএনজি আসার পরে নগরীতে নতুন গ্যাস সংযোগ চালু হবে। জনগনও আশ্বস্ত হয়েছিল এলএনজি হয়তো চট্টগ্রামের জনগনের দুঃখ ঘুচাতে সক্ষম হবে। এতো কিছুর পরও চট্টগ্রামে নতুন গ্যাস সংযোগ প্রদান না করাটা চট্টগ্রামের জনগনের প্রতি বিমাতাসুলভ আচরন বলে আমরা মনে করি। তিনি চট্টগ্রামের গুরুত্ব বিবেচনা করে নতুন গ্যাস সংযোগ প্রদান করার বিষয়টি মন্ত্রণালয়ে গুরুত্ব সহকারে উপস্থাপন করার অনুরোধ জানান। সম্প্রতি চট্টগ্রামে গ্যাস লাইনে বেশ কিছু প্রিপেইড মিটার স্থাপন করা হয়েছিল। প্রিপেইড মিটার স্থাপনের ফলে জনমনে স্বস্তি ফিরে এসেছে। আবার প্রিপেইড স্থাপন কার্যক্রম বন্ধ হওয়ার ফলে দূর্নীতিবাজরা উৎসাহিত হবে বলে মত প্রকাশ করেন তিনি। তাই অতিসত্বর প্রিপ্রেইড মিটার স্থাপনের কাজ শুরু করার জন্য কেজিডিসিএল এর ব্যবস্থাপনা পরিচালকের প্রতি আহবান জানান সুজন। তিনি ৩৮নং ওয়ার্ডে দীর্ঘদিনের গ্যাস সংকট সমাধানে প্রকল্প গ্রহন এবং অনুমোদনে আন্তরিকতার সাথে দায়িত্ব পালন করায় অভিনন্দন জানান। তাছাড়া গতকাল পতেঙ্গা এলাকায় সিডিএ’র উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ করতে গিয়ে অসাবধানতাবশত ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া গ্যাস সংযোগ পুনঃস্থাপনে ত্বড়িৎ সিদ্ধান্ত গ্রহন করে দ্রুত সংযোগ স্থাপন করায় ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।
কেজিডিসিএল এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক খায়েজ আহম্মদ মজুমদার নাগরিক উদ্যোগের নেতৃবৃন্দকে বার বার তাঁর কার্যালয়ে এসে জনদুর্ভোগ লাঘবে জনগনের পাশে থেকে কাজ করার জন্য ধন্যবাদ জানান। তিনি বলেন, নাগরিক উদ্যোগের পক্ষ থেকে উপস্থাপিত দাবীগুলো অতীব প্রয়োজনীয় এবং বাস্তবসম্মত। দীর্ঘদিন ধরে চট্টগ্রামে নতুন গ্যাস সংযোগ প্রদান বন্ধ রয়েছে সত্যি। গ্যাস সংযোগ বন্ধের কারণে ব্যবসা বানিজ্য এবং গৃহস্থালী কাজে চট্টগ্রামবাসী দূর্ভোগের বিষয়ে আমি ব্যাক্তিগতভাবে অবগত। আপনারা অবগত আছেন প্রধানমন্ত্রী এবং অত্র মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীর দিকনির্দেশনায় কেজিডিসিএল জনদূর্ভোগ লাঘবে নিরবচ্ছিন্ন কাজ করে যাচ্ছে। আমরা আশ্বাসও প্রদান করেছিলাম যে এলএনজি আমদানির পর আবাসিক অনাবাসিক এবং শিল্প কারখানার গ্যাস সংকট স্থায়ীভাবে সমাধান হবে। তবে এটাও সত্যি যে, যখন কোন উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহণ করা হয় তখন সামগ্রিকভাবে পুরো দেশের কথা বিবেচনা করেই উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহণ করা হয়। সে অর্থেই আপাতত চট্টগ্রামে গ্যাস সংযোগ প্রদান বন্ধ রয়েছে। আমি চট্টগ্রামের জনগনের সমস্যার গুরুত্ব উপলব্দি করেই নতুন গ্যাস সংযোগ প্রদানের বিষয়ে আমার যাবতীয় তৎপরতা অব্যাহত রাখবো। তিনি আরো বলেন ইতিমধ্যে কেজিডিসিএল নগরীতে ৬০ হাজার প্রিপেইড মিটার স্থাপন করেছে। আরো ২ লাখ প্রিপেইড মিটার স্থাপনের জন্য মন্ত্রণালয়ে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে। প্রস্তাব অনুমোদন হলেই প্রিপেইড মিটার স্থাপনের কাজ শুরু হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি। তাছাড়া নগরীর ৩৮নং ওয়ার্ডে দীর্ঘদিনের গ্যাস সংকট নিরসনে সাড়ে ৬ কোটি টাকার প্রকল্প ইতিমধ্যে অনুমোদন করা হয়েছে। সিটি কর্পোরেশন থেকে রাস্তা কাটার অনুমতি পেলেই আনুসাঙ্গিক কাজ শুরু হবে বলে নেতৃবৃন্দকে অবহিত করেন ব্যবস্থাপনা পরিচালক।
ক্রাইম ডায়রি//জেলা//নগর মহানগর

5626total visits,77visits today