• রবিবার ( রাত ১০:০৩ )
    • ১৮ই আগস্ট, ২০১৯ ইং

আয়ে পাশ এমবিবিএসঃ ডিসিকে স্মারকলিপি প্রদান ক্লিনিক মালিক সমিতির

মাগুরা ব্যুরোঃ

ভুয়া ডাক্তারের ছড়াছড়ি সারাদেশে। জীবনের জন্য মৌলিক চাহিদার পাশাপাশি এখন সবচেয়ে বড় চাহিদা ডাক্তারের। এই সুযোগে দ্রুত বড়লোক হওয়ার চেষ্টা একশ্রেণির সুবিধাবাদীর। যোগ্যতা কতটুকু তার কোন নাম গন্ধ নেই। দুদিন কোথায়ও কাজ  করেই মালিক হবার স্বপ্নে বিভোর এরা। এরই নমুনা দেখা গেল মাগুরায়। মাসুদুল হক নামে এইচএসসি পাশ এক ব্যক্তি এমবিবিএস চিকিৎসক পরিচয়ে অস্ত্রোপচারসহ নানা চিকিৎসা কার্যক্রমের প্রতিবাদ জানিয়ে জেলা প্রশাসক বরাবরে স্মারকলিপি দিয়েছে মাগুরা ক্লিনিক মালিক সমিতি। রোববার দুপুরে তারা এ স্মারকলিপি প্রদান করেন।

মাগুরা ক্লিনিক মালিক সমিতির সভাপতি মনিরুজ্জামান ও সাধারণ সম্পাদক ফরহাদ আহমেদের অভিযোগ, মাসুদুল হক নিজেকে চিকিৎসক পরিচয় দিয়ে দীর্ঘদিন যাবত মাগুরায় অস্ত্রোপচারসহ নানা অপচিকিৎসা চালিয়ে আসছে। প্রকৃতপক্ষে তিনি চিকিৎসক নয়। তিনি নিজেকে এমবিবিএস ডিগ্রিধারী হিসেবে পরিচয় দেবার পাশাপাশি পিজিটি, সিডিডি সার্জন এ ধরণের যোগ্যতার কথা উল্লেখ করেছেন। তিনি আসলে মানবিক বিভাগে এইচএসসি পাশ। পরে ১৫ বছর রাশিয়ায় থেকে একটি ডিপ্লোমা সনদ জোগাড় করেছেন। দেশে ফিরে এমবিবিএস ডাক্তার পরিচয়ে অস্ত্রোপচারসহ নানা প্রকার চিকিৎসা শুরু করেন। তার ভুল অস্ত্রোপচারে অসংখ্য রোগী মারা গেছে। অনেকে জটিল অসুস্থায় ভুগছেন।
২০০৫ সালে ঝিনাইদহের কালিগঞ্জে এক রোগীর খাদ্য নালিতে অস্ত্রোপচার করতে গিয়ে তার একটি নাড়ি কেটে গেলে ক্ষত স্থান পলিথিন পেপার দিয়ে বেধে দেয়া হয়। পরে তার অবস্থার অবনতি হলে তাকে ঢাকা মেডিকেলে পাঠানো হয়। ডাক্তার পুন: অস্ত্রোপচার করে ঐ পলিথিন উদ্ধার করেন। এ সময় মাসুদুল হককে পলিথিন ডাক্তার হিসেবে উল্লেখ করে পত্র-পত্রিকায় ব্যাপক লেখালেখি হয়। যার সূত্র ধরে স্থানীয় প্রশাসন তার বিরুদ্ধে তদন্ত শেষে আইনানুগ ব্যবস্থা নিয়ে তাকে জেল হাজতে পাঠায়। পরে জামিনে মুক্ত পেয়ে ২০০৬ সালে ড্যাবের সদস্য পদ নেয় ও বিএমডিএস ঢাকায় চিকিৎসক হিসেবে নিবন্ধিত হয়। যার নম্বর-এ-৪৩২১৪ তাং ১২.০৯.০৬। এই নিবন্ধনের পর সে মাগুরায় এসে মাগুরা ডায়াবেটিক হাসপাতালের চিকিৎসক হিসাবে যোগদান করে । এখনো সেখানেই কর্মরত আছেন। পাশাপাশি বিগত সময়ের অপকর্মে উপার্জিত অর্থে মাগুরা সদর হাসপাতালের পূর্বদিকে ১০ তলা ভবন নির্মাণ করে তৈরি করেছেন নিজস্ব ক্লিনিক, ডায়াগনষ্টিক সেন্টার ও চাইনিজ রেষ্টুরেন্ট স্থাপন করেছেন।

তাই সকল ক্লিনিক মালিক একত্রিত হয়ে ক্লিনিকেেের  প্রতি জনগণের আস্থা ফিরিয়ে আনতে তারা সঠিক সত্য তুলে ধরার লক্ষ্যে     জেলা প্রশাসনের নিকট স্মারকলিপি প্রদান করেছেন বলে ক্লিনিক মালিকেেেেরা জানিয়েছেন।।

ক্রাইম ডায়রি//ক্রাইম//অপরাধ

 

5616total visits,67visits today

র‌্যাব-৪ এর নতুন অধিনায়ক হলেন অতিরিক্ত ডিআইজি মোজাম্মেল হক

তোফাজ্জল হোসেন বাবু,পাবনাঃ

র‌্যাব-৪, মিরপুর, ঢাকা এর নতুন অধিনায়ক হলেন পাবনার কৃতিসন্তান অতিরিক্ত ডিআইজি মোজাম্মেল হক, বিপিএম, পিপিএম।তিনি রংপুর র‌্যাব-১৩ প্রধান হিসেবে গত বছরের (১০ এপ্রিল) দায়িত্ব গ্রহন করেন। গত ১৪ মাস অত্যন্ত সাহসিকতার ও নিষ্ঠার সাথে তিনি দায়িত্ব পালন করেন।

মোজাম্মেল হক পাবনা জেলার ভাঙ্গুড়া থানাধীন কাশিপুর গ্রামের এক সভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন।এবং বর্তমানে চাটমোহর থানার মূলগ্রাম ইউনিয়নের শাহাপুর গ্রামে বসবাস করেন। তিনি বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় হতে ডিভিএম বিষয়ে স্মাতক সম্মান ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন।

মোজাম্মেল হক ১৮তম বিসিএস এর মাধ্যমে ১৯৯৯ সালের জানুয়ারি মাসে পুলিশ বাহিনীতে যোগদান শুরু করেন। চাকুরি জীবনে তিনি পঞ্চগড় ও রাজশাহী জেলার সার্কেল এএসপি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

এ ছাড়া অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হিসেবে নাটোর,রাজশাহী, কুমিলা এবং ঢাকায় দায়িত্ব পালন করেছেন।

পরবর্তীতে তিনি জয়পুরহাট, বগুড়া ও নওগাঁ জেলার পুলিশ সুপার হিসেবে সফলতার সাথে দায়িত্ব পালন করেন।

এছাড়া ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-কমিশনার হিসেবে কর্মরত ছিলেন।এবং জাতিসংঘ মিশনের আওতায় তিনি সুদানে দায়িত্ব পালন করেছেন।

সৎ আদর্শ্যবান,দায়িত্ব প্রাপ্ত চৌকস এই অফিসার পেশাগত বিষয়ে দেশে-বিদেশে বিভিন্ন উচ্চতর প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেছেন।

কাজের স্বীকৃতি স্বরুপ বাংলাদেশ পুলিশের সর্বোচ্চ পদক বিপিএম এবং পিপিএম পদে ভূষিত হন।

এছাড়াও তথ্য প্রযুক্তিতে বিশেষ অবদান রাখার জন্য দেশ সেরা পুলিশ সুপার হিসাবে বাংলাদেশ সরকারের ডিজিটাল এ্যাওয়ার্ড অর্জন করেন। এবং পেশাগত দক্ষতার জন্য একাধিকবার আইজিপি ব্যাচ লাভ করেন। ব্যক্তি জীবনে তিনি বিবাহিত এবং তিন সন্তানের জনক।

ক্রাইম ডায়রি// স্পেশাল

5616total visits,67visits today

সাইবার আইনের মামলাঃ অবশেষে ওসি মোয়াজ্জেম রাজধানীতে গ্রেফতার

আরিফুল ইসলাম কাইয়্যুমঃ

অনশেষে  ফেনীর নুসরাত জাহান রাফি হত্যার ঘটনায় সোনাগাজী থানায় সাবেক ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনকে গ্রেপ্তার করতে পেরেছে পুলিশ। রবিবার দুপুর ৩টার পরে রাজধানীর শাহবাগ থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ-ডিএমপি কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, গ্রেপ্তারকৃত ওসি মোয়াজ্জেমকে ফেনীর সংশ্লিষ্ট থানায় পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছে।

ফেনীতে হত্যাকাণ্ডের শিকার মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফির জবানবন্দির ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়ানোর অভিযোগে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের এক মামলার আসামি সোনাগাজী থানার সাবেক ওসি মোয়াজ্জেম হোসেন।
মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে গত ৬ এপ্রিল পুড়িয়ে হত্যার চেষ্টা করা হয়। এর দিন দশেক আগে মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলার বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগ জানাতে সোনাগাজী থানায় যান নুসরাত। থানার তৎকালীন ওসি মোয়াজ্জেম হোসেন সে সময় নুসরাতকে আপত্তিকর প্রশ্ন করে বিব্রত করেন এবং তা ভিডিও করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেন। ওই ঘটনায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হলে আদালতের নির্দেশে সেটি তদন্ত করে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। এরপর তার বিরুদ্ধে পরোয়ানা জারির পর হতেে পলাতক ছিলেন তিনি।

ক্রাইম ডায়রি//আইন শৃঙ্খলা

5616total visits,67visits today

না ফেরার দেশে চলে গেলেন গ্রাম পুলিশ রহমান

শাহাদাত হোসেন, ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধিঃ

বগুড়া শেরপুর উপজেলা ভবানীপুর ইউনিয়ন পরিষদের চৌকস গ্রাম পুলিশ মোঃ রহমান হোসেন।দীর্ঘদিন ধরে সে এ্যাজমা ও হার্টের অসুখে ভূগে  শনিবার বগুড়ার  ভবানীপুরে তার নিজ বাসভূবনে ইন্তেকাল করেছেন।  ইন্না লিল্লাহে ওয়া ইন্না ইলাহে রাজিউন। দীর্ঘ ১৩ বছরের অধিক ভবানীপুর ইউনিয়ন পরিষদে নিরলস কর্মে দায়িত্ব পালন করেন। মৃত্যুর সময় তার বয়স ছিল ৬০বৎসর। গ্রাম পুলিশ রহমানের মৃত্যুতে ভবানীপুর সুনামধন্য চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ বলেন, গ্রাম পুলিশ রহমান আমার খুব প্রিয় মানুষ ছিলেন, আমি চেয়ারম্যান হিসাবে লক্ষ্য করে দেখেছি তার দায়িত্ব ও কর্তব্য পালনে ভূমিকা ছিলেন প্রচন্ড ভাল এবং তিনি খুব সৎ লোক ছিলেন।  এছাড়া ভবানীপুর ইউনিয়নের মেম্বার মোঃ শামীম খুব আবেগপূর্ন ভাবে প্রতিনিধিকে জানান, রহমান চাচা একজন ভাল মনের মানুষ ছিলেন।

ক্রাইম ডায়রি// জেলা

5616total visits,67visits today

হোল্ডিং ট্যাক্সে অনিয়মসহ সারাদেশে নানা অনিয়মের বিরুদ্ধে দুদকের অভিযান

আতিকুল্লাহ আরেফিন  রাসেলঃ

সারাদেশে ধারাবাহিক অভিযানের অংশ হিসেবে     ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের একটি আঞ্চলিক অফিসসহ দেশের তিনটি স্থানে দুর্নীতি প্রতিরোধে আজ দুদকের অভিযান পরিচালিত হয়েছে ।

কেইস স্টাডি -০১ঃ

ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনে হোল্ডিং ট্যাক্স নির্ধারণে অনিয়মের অভিযোগে অভিযান পরিচালনা করেছে দুদক। দুদক অভিযোগ কেন্দ্রে অভিযোগ আসে, ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের আজিমপুর অফিসে হোল্ডিং ট্যাক্স নির্ধারণ এবং আপিলে ব্যাপক অনিয়ম ও ঘুষ লেনদেন হয়। তৎপ্রেক্ষিতে দুদক প্রধান কার্যালয়ের একটি এনফোর্সমেন্ট টিম আজ (১৩/০৬/২০১৯ খ্রি.) অভিযান পরিচালনা করে। সরেজমিন অভিযানে দুদক টিম দেখতে পায়, ট্যাক্স বাবদ রশিদের মাধ্যমে আদায়কৃত সকল টাকা যথাসময়ে চালানের মাধ্যমে জমা ও রেজিস্টারে এন্ট্রি হয়নি। এছাড়াও হোল্ডিং ট্যাক্স নির্ধারণে ব্যাপক অনিয়মের প্রাথমিক প্রমাণ পায় দুদক টিম। আপিল নিস্পত্তি যথাসময়ে হয় না মর্মেও দুদক টিম জানতে পারে। উদাহরণস্বরূপ আজ একটি আপিল নিস্পত্তির সভা হওয়ার কথা থাকলেও সকল সদস্যের অনুপস্থিতির কারণে সভাটি অনুষ্ঠিত হয়নি। সার্বিকভাবে উক্ত দপ্তরে মনিটরিংয়ের ব্যাপক ঘাটতি রয়েছে মর্মে দুদক টিম অভিমত ব্যক্ত করে। এ সকল অনিয়ম দূরীকরণে ডিএসসিসি –এর রাজস্ব কর্মকর্তা মিয়া মোঃ জুনায়েদ আমীনকে পরামর্শ প্রদান করে দুদক টিম।

কেইস স্টাডি-  ০২ঃ
এদিকে নোয়াখালীতে একটি বিদ্যালয়ের ভবন নির্মাণে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগে অভিযান পরিচালনা করছে দুদক। প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নতুন ভবন নির্মাণের কাজে নিম্ন মানের সামগ্রী ব্যবহারের অভিযোগের প্রেক্ষিতে সমন্বিত জেলা কার্যালয়, নোয়াখালী হতে আজ এ অভিযান পরিচালিত হয়। টিম অভিযানকালে অভিযোগের প্রাথমিক সত্যতা পায়। তারা দেখে যে, নিম্নমানের ইট ও বালু দ্বারা ভবনটি নির্মিত হচ্ছে। দুদক টিম এ বিষয়ে সাইট ইঞ্জিনিয়ারের সাথে কথা বলে এবং নি।নমানের কাজ বন্ধ করে যথাযথ মান নিশ্চিত করে বিদ্যালয় ভবন নির্মাণের নির্দেশনা প্রদান করে। অভিযানকালে প্রায় শতাধিক জনসাধারণ বিদ্যালয়ে উপস্থিত হন এবং তারা দুদকের অভিযানকে স্বাগত জানান। দুদক টিম উক্ত বিদ্যালয় নির্মাণে পরবর্তীতে কোনরূপ অনিয়ম হলে তাৎক্ষণিকভাবে দুদক অভিযোগ কেন্দ্র (হটলাইন- ১০৬) জানানোর জন্য পরামর্শ প্রদান করে।

কেইস স্টাডি  – ০৩ঃ
জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে পল্লী বিদ্যুতের জোনাল অফিসে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগে অভিযান পরিচালনা করেছে দুদক। সমন্বিত জেলা কার্যালয় টাঙ্গাইল হতে আজ এ অভিযান পরিচালিত হয়। দুদক টিম পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের বাইরে দালালের অস্তিত্ব পায়। তবে টিম এর উপস্থিতি আঁচ করতে পেরে দালালরা পালিয়ে যায়। দুদক টিম উক্ত বিদ্যুৎ অফিসের বিলিং পদ্ধতি খতিয়ে দেখে এবং ব্যাপক অনিয়মের অস্তি¡ত্ব পায়। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই মিটার চেক করে গ্রাহকদের বিল দেওয়া হয় না, বরং ঢালাওভাবে বিল প্রস্তুত করা হয় এরূপ একাধিক প্রমাণ পায় দুদক টিম। এ সকল অনিয়মের বিষয়ে উক্ত অফিসের ডিজিএম প্রকৌশলী মোস্তফা কামালকে সতর্ক করে দুদক টিম এবং দায়িত্বে গাফিলতির সাথে জড়িত মিটার রিডারদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার অনুরোধ করা হয়েছে বলে দুুুদক সূত্রে জানা গেছে।

ক্রাইম ডায়রি///ক্রাইম

5616total visits,67visits today

বাগেরহাটে প্রতিবন্ধী যুবতীকে ধর্ষণের অভিযোগ, যুবক আটক

শেখ সাইফুল ইসলাম কবির.সিনিয়র স্টাফ রিপোর্টার,বাগেরহাটঃ

বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জ উপজেলার খাউলিয়া ইউনিয়নের নিশান বাড়িয়া গ্রামে এক বাক প্রতিবন্ধী যুবতীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) এ ঘটনা ঘটে। শুক্রবার মোরেলগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করা হলে পুলিশ সুজন শীল নামে এক যুবককে আটক করেছে।

অভিযোগে জানা যায়, ওই গ্রামে বাক প্রতিবন্ধী মেয়েকে বৃহস্পতিবার বিকেলে একই ইউনিয়নের সন্ন্যাসী এলাকার অতুল চন্দ্র শীলের ছেলে সুমন চন্দ্র শীল (৩৫) বাড়ি থেকে ফুসলিয়ে নিয়ে যায়। পরে তাকে সন্ন্যাসী বাজারের একটি চায়ের দোকানে নিয়ে ধর্ষণ করে। মোরলগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ কেএম আজিজুল ইসলাম জানান, ওই যুবতীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য বাগেরহাটে প্রেরণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে।

ক্রাইম ডায়রি///জেলা

5616total visits,67visits today