নজরুল চৌধুরীর(৪৮) এর মরদেহ বরিশালের
উজিরপুরে পরিত্যক্ত পুকুর থেকে উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ। শনিবার (০৮ জুন) সকালে তার মরদেহ বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে মর্গে মৃতের ছেলেসহ স্বজনার মৃতদেহ সনাক্ত করে।

নিহতের বড়ভাই মোঃ সুলতান জানান গত রোববার (০২ জুন) বাসা থেকে দোকানের ৫০ হাজার টাকা ও অলংকার নিয়ে বের হয়ে নিঁখোজ হন আমার ভাই নজরুল চৌধুরী । তিনি কুমিল্লা জেলার সালধর এলাকার মৃত রুকুমিয়ার ছেলে। সে দীর্ঘ ২০-২৫ বছর ধরে নারায়নগঞ্জ জেলার বাবুরাইল এলাকায় বাসা ভাড়া করে পরিবার-পরিজন নিয়ে বসবাস করছেন
এবং সেখানে থেকে স্বর্ণের ব্যবসা করছেন। বাবুরাইল এলাকায় চৈতি জুয়েলার্স নামক সোনার দোকানের মালিকও তিনি। এরপর থেকে তিনি নিঁখোজ থাকলে সোমবার (৩জুন) ছেলে মুন্না চৌধুরী স্থানীয় থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। পরে পুলিশ ডিজিটাল প্রযুক্তির সহায়তায় তার মোবাইলের সর্বোশেষ অবস্থান বরিশালের উজিরপুর এলাকায় পায়। যা নিশ্চিত হয়ে ঈদের দিন উজিরপুরে এসে নজরুল চৌধুরীর সন্ধ্যান চালানো হলেও কোন খবর পাওয়া যায়নি। পরবর্তীতে গতকাল শুক্রবার উজিরপুর থানা পুলিশ মুগাকাঠী
গ্রামের পরিত্যাক্ত পুকুর থেকে ভাসমান অবস্থায় অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করে। ওই অজ্ঞাত পরিচয়ের
মরদেহের ছবি স্বজনদের কাছে পাঠান। যা থেকে প্রাথমিকভাবে নিশ্চিত হয়ে আজ বরিশালে এসে মৃতদেহ সনাক্ত করে স্বজনরা। উজিরপুর মডেল থানার ওসি শিশির কুমার পাল  জানান বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মৃতদেহের ময়নাতদন্ত হয়েছে। মরদেহ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে । তারা নারায়নগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করা হবে জানান। স্বজনদের দাবী নজরুল চৌধুরীকে অপহরণ করে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে।

ক্রাইম ডায়রি///ক্রাইম//জেলা