• শনিবার ( সকাল ৬:৩৬ )
    • ১৯শে অক্টোবর, ২০১৯ ইং

বাগেরহাটে শরণখোলায় মোবাইলে ছবি তোলাকে কেন্দ্র করে একজনকে হত্যা

শেখ সাইফুল ইসলাম কবির.বাগেরহাট হতেঃ
বাগেরহাটের শরণখোলায় মোবাইলে ছবি তোলাকে কেন্দ্র করে আমিনুল ইসলাম  বেল্লাল (৩২) নামের এক ব্যাক্তিকেকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। শুক্রবার দিবাগত রাতে শরণখোলা উপজেলার বাংলাবাজার এলাকায় বেল্লালকে মারপিটের ঘটনা ঘটে । ১০ ঘন্টা পর হাসপাতালে নেওয়ার পথে শনিবার ভোরে বেল্লালের মৃত্যু হয় । নিহত আমিনুল ইসলাম বেল্লাল শরণখোলার রায়েন্দা ইউনিয়নের মালিয়া গ্রামের মো. সোহরাব হোসেন আকনের ছেলে।
নিহত বেল্লালের পিতা সোহরাব হোসেন জানান, শুক্রবার রাত ৮ টার দিকে বাংলাবাজারে লাবন হাওলাদার এর ক্রাম খেলা ঘর থেকে আমার ছেলেকে টেনে বের করে প্রতিবেশী সোবাহান গাজীর ছেলে আসাদুল গাজী (১৮) ও পান্না গাজীর ছেলে ইসাহাক গাজী (১৮)।  পরে ওই বাজারের কালাম ফরাজীর চায়ের দোকানের সামনে আসাদুল বেল্লালকে ধরে রাখে এবং ইসাহাক কিল ঘুষি দিতে থাকে । রাতে ইসাহাকের বাবা পান্না গাজী আমাকে ডেকে ব্যাথার ওষুধ দিলে তা খাওয়ালে বেল্লালের শরিরের ব্যাথা কমে । শনিবার ভোরে ঘরে এসে দেখি বেল্লাল নাক দিয়ে জোরে জোরে শ্বাস নেয় ও হাতপা লাফাতে থাকে। তখন বেল্লালকে হাসপাতালে পাঠাই। হাসপাতালে নেয়ার পথেই বেল্লালের মৃত্যু হয় ।
শরণখোলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগের কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার বিশ্বজিৎ মজুমদার জানান, নিহত বেল্লালের শরীরে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে ।
শরণখোলা থানার অফিসার ইনচার্জ দিলিপ কুমার সরকার শনিবার সকাল সাড়ে দশটায়  ক্রাইম ডায়রির   এই প্রতিবেদককে জানান, বৃদ্ধের আপত্তিকর ছবি তুলে ফেজবুকে ছাড়াকে কেন্দ্র করে শুক্রবার রাতে বেল্লালকে মারধর করে আসাদুল ও ইসাহাক । শনিবার ভোরে হাসপাতালে নেয়ার পথে বেল্লালের মৃত্যু হয়। থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে এবং ঘটনার সাথে জড়িতদের আটকের জন্য পুলিশি অভিযান অব্যহত আছে বলে জানান এই কর্মকর্তা।
ক্রাইম ডায়রি //ক্রাইম
Total Page Visits: 16656

রুপনগরে জাকের পার্টি নেত্রী ফারাহ ফয়সলের ঈদ বস্ত্র বিতরণ

রুপনগর সংবাদদাতাঃ

জাকের পার্টি মহিলা ফ্রন্টের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদিকা ফারাহ আমীর ফয়সল আজ শনিবার দুপুরে রাজধানীর দুয়ারীপাড়া ইস্টার্ন হাউজিং রোডে রূপনগর সরকারী উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে সুবিধাবঞ্চিত শিশু কিশোর ও নানা বয়সী নারী পুরুষের মাঝে ঈদ বস্ত্র ও ঈদ খাবার সামগ্রী বিতরন করেন।

এর আগে ফারাহ ফয়সল সুবিধাবঞ্চিত মানুষের উদ্যেশ্যে বলেন, মাত্র ২’৫ % ভাগ জাকাত দিয়েই দায়িত্ব শেষ হয়ে যায় না। ঈদ এলেই এ কাজটি করতে দেখা যায়। কিন্তু সারা বছর করতে হবে সাহায্য সহযোগিতার কাজ। জাকের পার্টি শুরু থেকেই ধনী গরীবের বৈষম্য নিরসনে কাজ করে যাচ্ছে। বৈষম্য নিরসনে আমাদের এ প্রচেষ্টা আগামীতেও অব্যাহত থাকবে ইনশাআল্লাহ।

এ আয়োজনে ছাত্রী ফ্রন্টের কেন্দ্রীয়, ঢাকা মহানগর ও রুপনগর থানা নেত্রীবৃন্দ সহ ছাত্র ফ্রন্ট ও জাকের পার্টি নেতৃবৃন্দ উপস্থিতি ছিলেন।

ক্রাইম ডায়রি/// রাজনীতি

Total Page Visits: 16656

বগুড়া শেরপুর সীমাবাড়ী ইউনিয়নে গরীব ও দুস্হদের মাঝে ভি জি এফ চাল বিতরণ

মোঃ শাহাদত হোসেন ভ্রাম্যমান প্রতিনিধিঃ

বগুড়া শেরপুর উপজেলার সীমাবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের গরীব ও দুস্হদের মাঝে মাথাপিছু ১৫ কেজি করে চাল বিতরন করা হয়েছে। সম্প্রতি সীমাবাড়ী ইউনিয়নের সফল চেয়ারম্যান জনাব, শ্রী যুক্ত বাবু গৌরদাস রায় চৌধুরী এর উদ্যোগে এ চাল বিতরন করা হয়।

এ সময় সেখানে উপস্হিত ছিলেন উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসার জনাব, আকতারউজ জামান, সীমাবাড়ী ইউনিয়নের প্রতিনিধি শহীদুল ইসলাম , আঃ রাজ্জাক, আমজাদ আলী,  মোস্তফা,  জহরুল ইসলাম,  রেজাউল করিম, লতিফসহ স্হানীয় জনগন। উপস্হিত জনতার সামনে সঠিক ওজনে গরীবদের মাঝে এই ভি জি এফ চাল বিতরন করা হয়। সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, সীমাবাড়ী ইউনিয়নে  চেয়ারম্যান শ্রী যুক্ত বাবু গৌরদাস রায় চৌধুরী সঠিক মাপে ১৫ কেজি করে চাল বিতরন করছেন। এ সময় চেয়ারম্যান শ্রী যুক্ত বাবু গৌরদাস রায় চৌধুরী ক্রাইম ডায়রি ভ্রাম্যমান প্রতিনিধিকে জানান, আমার ইউনিয়ন পরিষদের গরীব ও দুস্হদের ১৫ কেজি করে চাল বিতরণ করে সবার সন্তষ্টি ও গরীবদের ঈদ আনন্দ যাতে ভাল হয় সে ব্যবস্হা করতে পেরেছি।

যাদের লিষ্ট নাম আছে, তারা সবাই পেয়েছে।কেউ এই চাল নেওয়া থেকে বাদ যাবে না। আমি গরীবদের পাশে সুখে দুঃখে আছি আর থাকবো। যারা আমার ইউনিয়নে বসবাস করেন তাদের কাছে  ক্রাইম ডায়রির মাধ্যমে আবেদন তারা    যেন আমার জন্য দোয়া করেন যাতে আমি তাদের হক সঠিক ভাবে তাদের জন্য বিলিয়ে দিতে পারি।

ক্রাইম ডায়রি//গ্রাম বাংলা//জেলা

Total Page Visits: 16656

অসাধারণ মানুষ ডি আইজি হাবিবঃ মানুষ গড়ার কারিগর

শরীফা আক্তার স্বর্নাঃ

উত্তরণ ফাউন্ডেশন। তৃত্বীয় লিঙ্গ কিংবা বেঁদে জনগোষ্ঠীর উন্নয়নে কাজ করে এমন একটি সংগঠন । আর এদেরই    আয়োজনে ঈদ উপহার পেয়ে আনন্দে আত্মহারা হিজড়ারা।।। বাংলাদেশ  পুলিশের ডি আই জি হাবিবুর রহমান এ সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা।  একজন অসাধারণ স্বপ্নবাজ  মানুষ।

হিজড়াদের মূল ধারায় সংযুক্ত করা ও আত্মনির্ভরশীল করে গড়ে তোলা তার একটি স্বপ্ন।এই স্বপ্নযাত্রার বন্ধুর পথে তার সঙ্গে  দেখা হয় তিনজন হিজড়া  অনন্যা, শাম্মী ও আখির সাথে। এরপর ওদের জীবিকার জন্য ঢাকা জেলাধীন আশুলিয়ার পল্লীবিদ্যুৎ এলাকায় তিনি নিজ অর্থায়নে স্থাপন  করেন  ‘উত্তরণ বিউটি পার্লার-১’। প্রতিষ্ঠার স্বল্প সময়ের মধ্যেই ওদের প্রানান্ত প্রচেষ্টা ও অধ্যবসায়ের কারনে পার্লারটি ব্যবসাসফল হয়ে ওঠে।ওরা স্বাবলম্বী হয়।

হ্যা যিনি এই কাজটির আঞ্জাম দিচ্ছেন তিনি আর কেউ নন।তিনি হলেন মানুষ গড়ার কারিগর খ্যাত বাংলাদেশ পুলিশের ডি আই জি হাবিবুর রহমান ।

হিজরারা এখন মূলধারায়    ফিরে আসার স্বপ্ন দেখে। যে স্বপ্নের বীজ বুনেছেন তিনি। শুরুর সেই তিন নায়িকা এখন শুধু দেশের মধ্যে সীমাবদ্ধ নন।গন্ডি পেরিয়ে এখন ভারতের মাটিতে আছেন উচ্চতর প্রশিক্ষনেে।।

ঈদকে সামনে রেখে আজ ‘উত্তরণ ফাউন্ডেশন’ এর পক্ষ থেকে ঢাকার মগবাজার এলাকায় বসবাসরত তৃতীয়লিঙ্গের প্রায় ৪০০ জনকে দেওয়া হলো ঈদ উপহার!

উত্তরণ ফাউন্ডেশনের সাধারণ সম্পাদক জনাব কামরুল হাসান শায়কের সভাপতিত্বে এবং উত্তরণ ফাউন্ডেশনের সমন্বকারী এম এম মাহবুব হাসানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত তৃতীয় লিঙ্গের মানুষের জন্য ‘ঈদ উপহার বিতরণ-২০১৮’ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেব উপস্থিত ছিলেন নক্ষত্র পুলিশ কর্মকর্তা অতিরিক্ত ডিআইজি ও উত্তরণ ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান জনাব হাবিবুর রহমান বিপিএম (বার), পিপিএম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জনপ্রিয় চিত্রনায়ক জায়েদ খান। এ ছাড়া সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উত্তরণ ফাউন্ডেশনের ভাইস-চেয়ারম্যান ডা. ওয়াজেদ শামসুন্নাহার দিশা, মেজর মনিরুজ্জামান, চিত্রনায়ক জয় চৌধুরী, চিত্রনায়িকা শাহানুর এবং চিত্রনায়িকা বিপাশাসহ উত্তরণ ফাউন্ডেশনের এইচআর অ্যান্ড অ্যাডমিন কনসালট্যান্ট জনাব এম সেলিম মোল্লা।

ঈদ উপহার পরবর্তী আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হাবিবুর রহমান উপস্থিত তৃতীয় লিঙ্গের সদস্যদের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আপনাদেরকে তৃতীয়লিঙ্গ হিসেবে স্বীকৃতি দিয়ে আর সকলের মত আপনাদের সাংবিধানিক অধিকার নিশ্চিত করেছেন। এখন আপনারাও আমদের মতই দেশের সকল আইন-কাঠামোর মধ্যে বসবাস করছেন। আপনারা চাইলেও আগের পেশা ধরে রাখার সুযোগ নেই। এখন জীবনকে পরিবর্তন করতে হবে, সম্মানজনক পেশায় নিজেকে নিয়োজিত করে সমাজের শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষায় ভূমিকা রাখতে হবে। আপনারা নিজেদের মধ্যে সকল বিভেদ ভুলে একসাথে নিজেদের ভাগ্য পরিবর্তনে এগিয়ে আসতে হবে। আমরা ইতিমধ্যে আপনাদের জন্য সাভার, আশুলিয়া ও ব্রাক্ষ্মণবাড়িয়ায় ৩টি পার্লার করে দিয়েছি, উত্তরায় ফ্যাক্টরি ও চেইলার্স করে দিয়েছি, একটি জুট ফ্যাক্টরিতে ২০ জনের কাজের ব্যবস্থা করেছি, বিদেশে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করেছি এবং সরকারে সমাজ সেবা অধিদপ্তরের মাধ্যমে বিভিন্ন কর্মমুখী প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করেছি যেন আপনারাও আমাদের সকলের মত সম্মানের সাথে বাঁচতে পারেন।’ এ ছাড়াও তিনি বিভিন্ন দিক নির্দেশনামূলক বক্তব্য প্রদান করেন এবং সকলের সাথে ঈদের অগ্রিম শুভেচ্ছা বিনিময় করেন তিনি।

বিশেষ অতিথি জায়েদ খান বলেন, ‘আমরা আপনাদের সামনে পর্দার হিরো বা নায়ক। কিন্তু আমার কাছে বাস্তব হিরো বা নায়ক হলেন অতিরিক্ত ডিআইজি জনাব হাবিবুর রহমান, যিনি সমাজ পরিবর্তনের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। যিনি আপনাদের মতো একটি পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর ভাগ্য বদলের জন্য দিনরাত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। আমার ইচ্ছা হাবিব ভাইয়ের গল্প ও চিন্তা ভাবনা নিয়ে একটি সিনেমা বানাবো যেখানে অভিনয় করবেন আপনারা।

সভাপতি কামরুল হাসান শায়ক বলেন, ‘যে মানুষটি আপনাদের ভাগ্য পরিবর্তনের জন্য দিনরাত নিজের ঘাম ঝরাচ্ছেন সেই মানুষটি অতিরিক্ত ডিআইজি জনাব হাবিবুর রহমান। আপনারা তার ডাকে সাড়া দিয়ে আজ একত্রিত হয়েছেন আশাকরি আপনারা তার নির্দেশনা মোতাবেক এগিয়ে যাবেন, সমাজের মানুষকে ভাল ব্যবহার দিয়ে জয় করবেন। আপনাদের জন্য যা যা দরকার উত্তরণ ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে তার সবই করা হবে। কিন্তু সেগুলোর জন্য আপনাদের ধৈর্য্য ও আন্তরিকতা প্রয়োজন।’

অনুষ্ঠানের শুরুতে সঞ্চালক ও উত্তরণ ফাউন্ডেশনের সমন্বকারী এম এম মাহবুব হাসান প্রধান অতিথি, সভাপতি এব বিশেষ অতিথিসহ সকল অতিথিদেরকে উপস্থিতিদের সাথে পরিচয় করিয়ে দেন এবং উত্তরণ ফাউন্ডেশন পরিচালিত সকল কার্যক্রমের একটি সারসংক্ষেপ তুলে ধরেন!

অনুষ্ঠানের তৃতীয় লিঙ্গের/হিজড়াদের গুরু মায়েদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মিতালী হিজড়া, অনন্যা হিজড়া, সজীব হিজড়া এবং রাখি হিজড়াসহ অন্যান্য নেতৃত্বস্থানীয় হিজড়াগণ।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশের পিছিয়ে পড়া তৃতীয়লিঙ্গের মানুষ ও বেদে সম্প্রদায়ের জীবন মান উন্নয়নের লক্ষ্যে নক্ষত্র পুলিশ কর্মকর্তা অতিরিক্ত ডিআইজি জনাব হাবিবুর রহমান বিপিএম (বার), পিপিএম প্রতিষ্ঠা করেছেন ‘উত্তরণ ফাউন্ডেশন’।

মানুষ গড়ার কারিগর এই  মানুষটিকে নিয়ে গণমানুষের ভালবাসার শেষ নেই । সাপ্তাহিক ক্রাইম ডায়রি,  অনলাইন দৈনিক ক্রাইমডায়রি বিডি ডটকম, অনলাইন টিভি ক্রাইমডায়রি টিভি ডটনেট, মানবাধিকার সংগঠন ভিকটিমসাপোর্ট এন্ড হিউম্যান রাইটস ফাউন্ডেশন এবং জাতীয় সাংবাদিক পরিষদের পক্ষ হতে তাকে শুভকামনা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন লেখক,গবেষক,মানবাধিকার ও  গণমাধ্যমকর্মী     আতিকুল্লাহ আরেফিন রাসেল।

ক্রাইম ডায়রি////জাতীয়//স্পেশাল

Total Page Visits: 16656