• রবিবার ( রাত ১০:১২ )
    • ১৮ই আগস্ট, ২০১৯ ইং

বিশেষ অভিযানে উঠতি ডাকাত ও ছিনতাইকারী চক্র আটক করেছে ইপিজেড থানা পুলিশ

হোসেন মিন্টুঃ

ঈদের নিরাপত্তায় সারাদেশে ধারাবাহিক অভিযানের অংশ হিসেবে  গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ৬জন উঠতি ডাকাত ও ছিনতাইকারী দলের সদস্য কে গ্রেফতার করেছেন ইপিজেড থানা পুলিশ।

থানা ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে ,  ১০আগস্ট রাত ১২.৪৫ মিনিটে সময় এই উঠতি ৬ ডাকাত দলের সক্রিয় সদস্যদের আটক করা হয়।  ওসি মীর মোঃ নূরুল হুদা  ক্রাইম ডায়রিকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

গ্রেফতারকৃত ডাকাত দলের সদস্যরা হলো– মোঃ বাবুল প্রকাশ বাবু (২২), পিতা-মোঃ খলিল, জেলা-বাগেরহাট, মোঃ সবুজ (১৯), পিতা-মোঃ ইউছুফ, সাং-সূর্যমনি, খাইগো বাড়ী, থানা-মঠবাড়ীয়া, জেলা-পিরোজপুর, মোঃ আরিফ (২৬), পিতা-মোঃ বাচ্চু মিয়া, মোঃ মামুন (২০), পিতা-মোঃ ফরিদ, থানা-মোংলা, জেলা-বাগেরহাট, মোঃ রিপন (১৯), পিতা-মৃত লোকমান সিকদার,থানা-মোড়েলগঞ্জ, মোঃ নাদিম (১৫), পিতা-মোঃ হারুন, থানা-ভান্ডারিয়া, জেলা-বরিশাল । ডাকাতদলে আরও সদস্য ছিল। পুলিশের উপস্থিতি বুঝতে পেরে তারা বিভিন্ন অলিগলি দিয়ে  পালিয়েছে । পালাতকদের ধরার ব্যাপারে অভিযান অব্যাহত আছে বলে থানা সুত্রে জানা গেছে।


অপরাধীরা  ইপিজেড থানাস্থ কলসিদীঘী,ব্যারিস্টার কলেজ ওবন্দরটিলা রেলবিটের আশ-পাশের ভবনের অস্থায়ী ভাড়াটিয়া ঘরে অবস্থান করে এলাকায় চুরি,ডাকাতী ওছিনতাই কাজে লিপ্ত বলে তদন্ত ওসি ওসমান গনি জানিয়েছেন।তারা সবাই প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে চুরি,ডাকাতী ওছিনতাই কাজে লিপ্ত থাকার কথা স্বীকার করেছেন । অপরাধীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করে আদালতে  প্রেরন করা হয়েছে।

ক্রাইম ডায়রি//ক্রাইম/মহানগর

5673total visits,124visits today

কানাডায় নিজ পরিবারের সবাইকে খুন করলো বাংলাদেশী বগুড়ার যুবক

ক্রাইম ডায়রি আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ

ঠান্ডা মাথার খুনি। শব্দটা সবার নিকট পরিচিত।     হ্যা, ঠান্ডা মাথাতেই খুন হলেন বাংলাদেশীী পরিবারের প্রায় সব সদস্য। আর খুনি তাদেরই ছেলে।

কানাডার টরন্টোর মারখাম এলাকায় নিজ পরিবারের চার সদস্যকে হত্যার স্বীকারোক্তি প্রদান করেছে বাংলাদেশের বগুড়া জেলার  যুবক মিনহাজ জামান (২৩)।মিনহাজ উল্লেখ করেছেন, প্রথমে তিনি তার মাকে হত্যা করেন। পরে নানী, বোন এবং সবশেষে বাবাকে খুন করেন। পুলিশ আনুষ্ঠানিকভাবে না জানালেও মারখামে নিহত পরিবারটি যে বাংলাদেশি, তা এখন নিশ্চিত। খুনের দায়ে গ্রেফতার হওয়া মিনহাজ ইয়র্ক ইউনিভার্সিটিতে ইঞ্জিনিয়ারিং পড়তো।

কেন সে নিজের মা, বাবা, বোন ও নানীকে হত্যা করলো তা সে কানাডার অনলাইন গেম, চ্যাটিং ও সংবাদ মাধ্যমে নিজেই বর্ণনা করেছে।প্রথম কারণ ছিল অনলাইন গেমের প্রতি তার আসক্তি।এমনকি ইয়র্ক ইউনিভার্সিটিতে ইঞ্জিনিয়ারিং-এ ভর্তি হওয়ার পরও সে এই আসক্তি ত্যাগ করতে পারেনি।প্রতিদিন ইউনিভার্সিটিতে যাওয়ার কথা বলে সে যেতো ভার্সিটির নিকটস্থ শপিং মলে অনলাইনে গেম খেলতে।দ্বিতীয় সেমিস্টারের সময় সে নাস্তিকতায় আক্রান্ত হয়।ফলে জীবন ও জগৎ সম্পর্কে হতাশা বাসা বাঁধতে থাকে।এক পর্যায়ে অর্ধেক সাবজেক্টে ফেল করার কারণে সে ভার্সিটি ত্যাগ করতে বাধ্য হয়।এক পর্যায়ে নিজের সম্পর্কে সে খুবই হীনমন্যতায় ভুগতে থাকে।সে নিজেকে নরাধম মনে করে এবং তার মত সন্তানের জন্য পরিবার লজ্জা পাবে এই চিন্তা থেকে পরিবারের সবাইকে হত্যা করে নিজের বাকি জীবন কারাগারে কাটিয়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়।

স্থানীয় ভাইস ডট কমে বন্ধুকে লেখা ঘাতক মিনহাজের পোস্ট যা কানাডার গ্লোবাল নিউজে প্রকাশিত হয়ঃ—–

এর আগে, ২০১৬ সালের ২৪ এপ্রিল যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যে সান্তা ক্লারা সিটিতে হাসিব-বিন গোলাম রাব্বি (২২) নামক বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত এক তরুণ গুলি করে তার বাবা গোলাম রাব্বি (৫৯) এবং মা শামিমা রাব্বি (৫৭) কে হত্যা করেন। রাব্বি দোষী সাব্যস্ত হবার পর জেল-জরিমানার অপেক্ষায় রয়েছে ক্যালিফোর্নিয়ার একটি কারাগারে। রাব্বি দম্পতি যুক্তরাষ্ট্রে এসেছিলেন বগুড়া জেলা থেকে।

ক্রাইম ডায়রি//আন্তর্জাতিক

5673total visits,124visits today

অতিরঞ্জিত অপপ্রচারে আমাদের দেশের ডেইরী শিল্প যেন ক্ষতিগ্রস্থ না হয়—মোজাম্মেল হক

শরীফা আক্তার স্বর্নাঃ-

হঠাৎ করেই  অস্থির ও অস্তিত্ব সংকটে   দেশের দুগ্ধশিল্প। ক্রমাগতঃ নেগেটিভ রিপোর্টে   জনসাধারণও অস্থিরতায় ভূগছে।। দেশীয় গাভীর দুধকে প্রক্রিয়া করতে গিয়ে যদি মাণহীন হয়ে পড়ে তবে তা আশংকাজনক না হয়ে পারেনা। তবে একটা বাস্তব কথা এই যে, গাভীর দুধ দহন করার পর এতে স্বাভাবিকভাবেই ব্যাকটেরিয়ার প্রভাব পরিলক্ষিত হয়।   সুতরাং দহিত দুধ ২৪ ঘন্টার মধ্যে যতই প্রসেসিং করা হোক ব্যাকটেরিয়া  কমবেশি ধরা পড়বেই।।। প্রাকৃতিক জিনিসে সাধারণ প্রযুক্তিতে   তা কতটুকু রোধ করা সম্ভব তাও যেমন ভেবে দেখতে হবে পাশাপাশি আদিকাল হতেই মানুষ দুধ দহন করে খেয়ে আসছে তাতেই বা কতটুকু স্বাস্থ্য ঝুঁকি হয়েছে তা মূল্যায়ন করে সিদ্ধান্ত নেয়া ভাল। এ ব্যাপারে দেশের সুশিল ও দেশপ্রেমিক মানুষেরা যারপরনাই উদ্বিগ্ন।  কারন, এরসাথে জড়িয়ে আছে দেশের শিল্প ও   কোটি যুবকের স্বপ্ন।

এ বিষয়ে RAB-4 ঢাকা এর অধিনায়ক মোঃ মোজাম্মেল হকের একটি বক্তব্য দেশবাসীর নজর কেড়েছে। দেশপ্রেমিক ও গণবন্ধু এই মানুষটির বক্তব্য জনস্বার্থে হুবহু তুলে ধরা হলোঃ–

“বাংলাদেশে অনেক কষ্টে শিক্ষিত বেকার ও কৃষক ভাইদের ঘামে শ্রমে এবং লাইভস্টক বিভাগের অক্লান্ত সহযোগীতায় ডেইরি খাত গড়ে উঠেছে। দুধে ক্ষতিকর মাত্রায় ব্যাকটেরিয়া এবং এন্টিবায়োটিকের উপস্থিতি সম্পর্কে মতামত দেয়ার পূর্বে এতদসংক্রান্তে বিশেষজ্ঞ প্যানেলের মতামত নেওয়া প্রয়োজন। জনস্বাস্থ্য সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার পাবে। তবে কোন কারনেই যেন অনেক কষ্ট এবং ত্যাগের বিনিময়ে গড়ে উঠা আমাদের ডেইরি খাত ক্ষতিগ্রস্ত না হয় সেদিকে লক্ষ রাখা জরুরী। আমি ব্যক্তিগতভাবে আমার কর্মজীবনের
সাড়ে চার বৎসর লাইভস্টক বিভাগে চাকুরী করেছি। গ্রামের চাটমোহরে এখনো হাইব্রিড ২ টি গাভী প্রতিপালিত হচ্ছে। আমি জানি শিশু খাদ্য এবং ফুলক্রিম মিল্ক পাউডার আমদানির সংগে এদেশের অনেক বড় বড়সন্মানিত ব্যাবসায়ী জড়িত। তাদের অধিক লাভ এবং বাজার সম্প্রসারনের জন্য গ্রামের অসহায় গাভী পালনকারিগন যেন ক্ষতিগ্রস্ত না হয় সে দিকটি
বিবেচনা করে অবশ্যই জনহিতকর সিদ্ধান্ত নিতে হবে। শুধুমাত্র দেশে উৎপাদিত গাভীর দুধ বিশেষজ্ঞ প্যানেল ছাড়া একটি নির্দিষ্ট বিভাগ কতৃক পরীক্ষা টানা করে নামে বেনামে বিভিন্নভাবে দেশে আমদানিকৃত সকল এধরনের গুঁড়ো দুধের মান পরীক্ষা এবং নিয়ন্ত্রন জরুরী। আমরা সকলেইস্বাস্হ্যকর বিশুদ্ধ পুষিটিকর দুধ পান করতে চাই। তবে সম্ভবত আমাদের খেয়াল রাখা জরুরী অযথা অতিরঞ্জিত অপপ্রচারের কারনে যেন আমাদের দেশের ডেইরি খাত ক্ষতিগ্রস্ত না হয়।”

এই বক্তব্যে এটা স্পষ্ট যে সম্পুর্ণ বিশেষজ্ঞ প্যানেলের মতামত স্বাভাবিকভাবেই গণমানুষকে দুধ পাণের ব্যাপারে একটি স্বচ্ছ ও সু -ধারণা দিতে পারে। কোন অবস্থাতেই দুগ্ধশিল্প ক্ষতিগ্রস্ত হোক জনগন তা কামণা করেনা।।

ক্রাইম ডায়রি//জাতীয়

5673total visits,124visits today

বার্ষিক কর্ম সম্পাদনে বিদ্যুৎ বিভাগ প্রথমঃ একই মন্ত্রণালয়ের জ্বালানি বিভাগ তৃতীয়স্থানে

আতিকুল্লাহ আরেফিন রাসেলঃ

শনিবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে বার্ষিক কর্ম সম্পাদন চুক্তি অনুষ্ঠিত হয়েছে। সেখানে গত এক বছরের কাজের মূল্যায়নের ভিত্তিতে বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজসম্পদ   মন্ত্রণালয়ের বিদ্যুৎ বিভাগ প্রথম হয়েছে। তৃতীয় হয়েছে একই মন্ত্রণালয়ের জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগ। অর্থাৎ এক থেকে তিন নাম্বারের মধ্যে বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ     মন্ত্রণালয়েরই দুটি বিভাগ রয়েছে।
মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বিদ্যুৎ বিভাগের সিনিয়র সচিব ড. আহমদ কায়কাউস এবং জ্বালানি ও খনিজসম্পদ বিভাগের সচিব আবু হেনা মোঃ রহমাতুল মুনিম উপস্থিত থেকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে পুরস্কার গ্রহণ করেন। এতে উচ্ছসিত হয়ে বিদ্যুৎ বিভাগের সিনিয়র সচিব এবং অন্যান্য শীর্ষ কর্মকর্তারা রোববার বিদ্যুৎ জ্বালানি খনিজ সম্পদ  মন্ত্রণালয়ের মাননীয়  প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ   এর সাথে সাক্ষাৎ করেছেন ।

 

এ সময় মন্ত্রী  আগামী দিনগুলোতে জনগণকে নিরবচ্ছিন্নভাবে সেবা দিতে সকলের প্রতি আহবান জানান। তিনি সকলে মিলে টিম ওয়ার্ক করে কাজ করা সহ মানুষ বিদ্যুৎ পাচ্ছে কিন্তু একটু বাধাগ্রস্থ হলেই বিরক্ত না  হওয়া, আগামীতে যেন এমন অবস্থা তৈরী না হয় সেজন্য বিদ্যুৎ বিভাগের সকলের প্রতি আহবান জানান।

এ সময় জনাব নসরুল হামিদ আরও বলেন, বর্তমানে ৯৩ শতাংশ মানুষ বিদ্যুৎ পাচ্ছেন। আমরা দ্রুত শতভাগ মানুষের কাছে বিদ্যুৎ সুবিধা পৌঁছে দিতে কাজ করে যাচ্ছি।

অসাধারণ এই অর্জন বিদ্যুৎ ও জ্বালানি বিভাগের সকল পর্যায়ের কর্মকর্তা এবং কর্মচারীদের। যাদের অক্লান্ত পরিশ্রমে বাংলাদেশকে আলোর পথে এগিয়ে যাচ্ছে। তিনি সবাইকে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে দেশের স্বার্থে একযোগে কাজ করার আহবান জানান ।

ক্রাইম ডায়রি//জাতীয়

5673total visits,124visits today

নকল ড্রাগ লাইসেন্স তৈরিঃভ্রাম্যমান আদালতে ২ মাস কারাদন্ড

নোয়াখালী অফিসঃ

নকল ড্রাগ লাইসেন্স তৈরি করে সরবরাহের দায়ে ভ্রাম্যমান আদালতে একজনের দুই মাসের কারাদন্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। সুত্রে জানা গেছে,     নোয়াখালী জেলার মাইজদি শহরের স্থানীয় খ্যাতনামা হোটেলে অভিযান চালিয়ে ড্রাগ লাইসেন্স দেওয়ার চুক্তির সময় জাল ড্রাগ লাইসেন্সসহ বাহার উদ্দিনকে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে ২ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড দেওয়া হয়েছে। ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন মো: রোকনুজ্জামান খান (Ruknuzzaman Khan Rukon), এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট, জেলা প্রশাসকের কার্যালয়, নোয়াখালী। অভিযানে সহযোগিতা করেন দেবানন্দ সিনহা, সহকারী পরিচালক, জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর ও ড্রাগ সুপার কার্যালয়ের প্রতিনিধি এবং ক্যামিস্ট ও ড্রাগিস্ট সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও সভাপতি। আইনশৃঙ্খলায় সহযোগিতা করেন সুধারাম মডেল থানা পুলিশ।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সকাল ১০.৩০দিকে নোয়াখালী জেলার মাইজদি সুপার মার্কেট সংলগ্ন মেইন রোডের পশ্চিম পাশে টোকিও ফুড এর ভিতরে ছদ্মবেশে অভিযান পরিচালনা করা হয়। এসময় অভিযুক্ত ব্যক্তি ও আবেদনকারী নিজেদের মধ্যে লাইসেন্স দেওয়ার বিষয়ে আগ্রহ প্রকাশ করে মৌখিক চুক্তি সম্পাদন করে। অভিযুক্ত ব্যক্তি তাকে লাইসেন্স সরবরাহ করার জন্য কেমিস্ট ব্যাতিত ৩৫হাজার টাকা ও কেমিস্ট সার্টিফিকেট থাকলে ৩০হাজার টাকার ‍চুক্তি হয়। তবে এসময় কেমিস্ট সাটিফিকেট রয়েছে বিধায় ড্রাগ লাইসেন্স এর জন্য ৩০ হাজার টাকায় উভয় পক্ষের মধ্যে দাম রফাদফা হয় এবং অর্থ বিনিময় হয়। অভিযানের সময় অভিযুক্তের কার্যক্রম একাধিক মোবাইল ফোনে ভিডিও রেকর্ড করা হয়।

ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনাকালে প্রত্যক্ষ সাক্ষীদের উপস্থিতিতে অভিযুক্ত ব্যক্তি বাহার উদ্দিন তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ স্বীকার করেন এবং তাকে দন্ডবিধি ১৮৬০ অনুযায়ী ২মাসের বিনাশ্রম করাদন্ড দিয়ে জেলা কারাগার নোয়াখালীতে প্রেরণ করা হয়।

ক্রাইম ডায়রি///ক্রাইম//আদালত

5673total visits,124visits today

না ফেরার দেশে চলে গেলেন গ্রাম পুলিশ রহমান

শাহাদাত হোসেন, ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধিঃ

বগুড়া শেরপুর উপজেলা ভবানীপুর ইউনিয়ন পরিষদের চৌকস গ্রাম পুলিশ মোঃ রহমান হোসেন।দীর্ঘদিন ধরে সে এ্যাজমা ও হার্টের অসুখে ভূগে  শনিবার বগুড়ার  ভবানীপুরে তার নিজ বাসভূবনে ইন্তেকাল করেছেন।  ইন্না লিল্লাহে ওয়া ইন্না ইলাহে রাজিউন। দীর্ঘ ১৩ বছরের অধিক ভবানীপুর ইউনিয়ন পরিষদে নিরলস কর্মে দায়িত্ব পালন করেন। মৃত্যুর সময় তার বয়স ছিল ৬০বৎসর। গ্রাম পুলিশ রহমানের মৃত্যুতে ভবানীপুর সুনামধন্য চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ বলেন, গ্রাম পুলিশ রহমান আমার খুব প্রিয় মানুষ ছিলেন, আমি চেয়ারম্যান হিসাবে লক্ষ্য করে দেখেছি তার দায়িত্ব ও কর্তব্য পালনে ভূমিকা ছিলেন প্রচন্ড ভাল এবং তিনি খুব সৎ লোক ছিলেন।  এছাড়া ভবানীপুর ইউনিয়নের মেম্বার মোঃ শামীম খুব আবেগপূর্ন ভাবে প্রতিনিধিকে জানান, রহমান চাচা একজন ভাল মনের মানুষ ছিলেন।

ক্রাইম ডায়রি// জেলা

5673total visits,124visits today

অশ্লীল ছবি তুলে ব্ল্যাকমেইলঃ অতঃপর পুড়িয়ে হত্যার চেষ্টা

রাজবাড়ী সংবাদদাতাঃ

এতকিছুর পরও এবার রাজবাড়ীতে অশ্লীল ছবি তুলে ব্লাকমেইলের পর দাবি করা টাকা না পেয়ে এক স্কুলছাত্রীকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যার চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাস্থল রাজবাড়ি  সদর উপজেলার পাঁচুরিয়া ইউনিয়নের খোলাবাড়িয়া গ্রামে।

এ ঘটনায় শুক্রবার রাতে ওই স্কুলছাত্রীর বাবা ফজলুর রহমান বাদী হয়ে শিল্পী বেগম নামে এক নারীসহ অজ্ঞাত আরও চারজনের বিরুদ্ধে রাজবাড়ী সদর থানায় মামলা করেছেন। শিল্পী বেগম একই গ্রামের জাহাঙ্গীর মিজির স্ত্রী। পুলিশ মামলার আলামত হিসেবে ওই স্কুলছাত্রীর পুড়ে যাওয়া কামিজ ও সালোয়ার জব্দ করেছে। যুলি নামের ওই মেয়েটি স্থানীয় খানখানাপুর তমিজ উদ্দিন খান বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণিতে পড়ে।

মামলায় বাদী অভিযোগ করেন, গত ১২ এপ্রিল স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার সময় অজ্ঞাত কয়েকজন তার মেয়েকে জোরপূর্বক রাস্তার পাশে জঙ্গলে নিয়ে ছুরি দিয়ে ভয় দেখিয়ে অশ্লীল ছবি তোলে। সেই ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে অভিযুক্ত শিল্পী বেগম তার মেয়ের কাছে দুই লাখ টাকা দাবি করে। ঈদের দিন বাড়ির পাশে পুকুর থেকে গোসল করে বাড়ি ফেরার পথে অজ্ঞাত এক লোক পেছন থেকে তার মেয়ের মাথায় আঘাত করে। পরে স্থানীয়ভাবে তাকে চিকিৎসা দেওয়া হয়। এরপর গত ৬ জুন দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে তার মেয়ে বাড়ির বারান্দায় বসে জাম খাওয়ার সময় অজ্ঞাত চার বোরকা পরা লোক তার মুখ চেপে ধরে তাকে বাড়ির পেছনে একটি পাট ক্ষেতে নিয়ে যায়। সেখানে তার মেয়ের ওড়না দিয়ে হাত, পা ও মুখ বেঁধে ম্যাচের কাঠি দিয়ে গায়ে আগুন ধরিয়ে দেয়। তার মেয়ে মাটিতে গরাগরি করায় আগুন বাড়তে পারেনি। পরে মেয়ের গোঙানোর শব্দ শুনে তার স্ত্রী গিয়ে তাকে উদ্ধার করে। পরে তাকে স্থানীয় চিকিৎসকের কাছে নিয়ে চিকিৎসা দেওয়া হয়।

ফজলুর রহমান বলেন, শিল্পী বেগমের সঙ্গে তার কোনো শত্রুতা নেই। তাদের কাজ মানুষকে ব্লাকমেইল করা। আমার মেয়ের কাছ থেকে টাকা আদায়ের জন্য একটা ফাঁদ পেতেছিল।

রাজবাড়ী সদর থানার ওসি স্বপন কুমার মজুমদার জানান, মামলার এজাহারে চারটি ঘটনার কথা উল্লেখ করা হয়েছে। পুলিশ প্রতিটি ঘটনাই গুরুত্বের সঙ্গে দেখছে। পুলিশ স্কুলছাত্রীর পুড়ে যাওয়া কামিজ ও সালোয়ার জব্দ করেছে। আসামি শিল্পী বেগমকে গ্রেফতারের জন্য অভিযান চালানো হয়েছিল। কিন্তু পলাতক থাকায় গ্রেফতার করা যায়নি। তাকে গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত আছে।

শনিবার রাজবাড়ীর পুলিশ সুপার আসমা সিদ্দিকা মিলি ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রেজাউল করিম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

এদিকে ঘটনার পর ওই ছাত্রীর ভাই সোহেল বেপারী এক ফেসবুক স্ট্যাটাসে বোনের পুড়ে যাওয়া সালোয়ার-কামিজের ছবি প্রকাশ করেন। পরে সেই স্ট্যাটাসটি ভাইরাল হয়ে যায়। সেই স্ট্যাটাসে ঘটনার বর্ণনা দিয়ে অভিযুক্তদের বিচার চান। পরে শনিবার দেওয়া আরেক স্ট্যাটাসে তড়িৎ ব্যবস্থা নেওয়া পুলিশের প্রশংসা করেন তিনি।

ফেনীর ঘটনা শেষ হতে না হতে এমন ঘটনায় আতংকিত সাধারণ মানুষ।। এ ধরনের ঘটনাকে তাই খাটো করে না  দেখে তড়িৎ গতিতে ব্যবস্থাা নিতে সকল প্রশাসনের প্রতি জোর দাবী জানিয়েছেন সুশীলসমাজের প্রতিনিধিগন ।

ক্রাইম ডায়রি/// ক্রাইম// জেলা

5673total visits,124visits today

রাজশাহী রেঞ্জের শ্রেষ্ঠ তদন্ত অফিসার বগুড়ার শেরপুর থানার বুলবুল ইসলাম

উওরাঞ্চলীয় অফিস, জাকির হোসেন রনিঃ

বগুড়ার শেরপুর থানায় কর্মরত অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) বুলবুল ইসলাম রাজশাহী রেঞ্জের শ্রেষ্ঠ তদন্ত অফিসার নির্বাচিত হওয়াতে জাতীয় সাপ্তাহিক ক্রাইম ডায়রি,অনলাইন দৈনিক ক্রাইমডায়রিবিডি ডটকম,অনলাইন টিভি ক্রাইমডায়রি টিভি, মানবাধিকার সংগঠন ভিকটিম সাপোর্ট এন্ড হিউম্যান রাইটস ফাউন্ডেশন এবং জাতীয় সাংবাদিক পরিষদ ও জাতীয় গোয়েন্দা সাংবাদিক ইউনিটির   পক্ষ হতে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন লেখক, অপরাধ গবেষক,গনমাধ্যম ও মানবাধিকার কর্মী আতিকুল্লাহ আরেফিন রাসেল।

বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ আলোচিত মামলার রহস্য উদঘাটন এবং আসামী গ্রেফতারসহ আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে বিশেষ ভূমিকা পালন করায় তাকে শ্রেষ্ঠ তদন্ত কর্মকর্তা হিসেবে নির্বাচিত করা হয়েছে। গত ২৬ মে রাজশাহী রেঞ্জের ডিআইজির কনফারেন্স রুমে তার হাতে ক্রেষ্ট, নগদ অর্থ এবং সনদ তুলে দেন রাজশাহী রেঞ্জের ডিআইজি হাফিজ আক্তার।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন এডিশনাল ডিআইজি নিশারুল আরিফ সহ রাজশাহী রেঞ্জের সকল পুলিশ সুপার। নীলফামারী জেলার ডোমার উপজেলার বামুনীয়া গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহন করেন বুলবুল ইসলাম। ২০০৫ সালে এস, আই, পদে বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীতে যোগদান করেন।

২০১৬ সালে প্রমোশন পেয়ে পুলিশ পরিদর্শক তদন্ত  হিসেবে শেরপুর থানায় যোগদান করেন।তিনি সততা সহিত দায়িত্ব পালন করেন।বগুড়ার শেরপুরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ মামলার রহস্য উদঘাটন সহ সর্বহারাদের দমন এবং গ্রেফতারের জন্য তিনি রাজশাহী রেঞ্জের শ্রেষ্ঠ অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) কর্মকর্তা হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন।

ক্রাইম ডায়রি///স্পেশাল

5673total visits,124visits today

বগুড়া ৬ উপনির্বাচনঃ বিএনপি’র মনোনয়ন পেলেন সাবেক এমপি সিরাজ

জাকির হোসেন রনিঃঃ

টানটান উত্তেজনা বগুড়ায়। কারন আর কিছুই নয়। বগুড়া-৬ আসনের উপনির্বাচনে বিএনপির মনোনয়ন পেয়েছেন দলটির জেলা কমিটির আহ্বায়ক গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ। সাবেক এই এম পি নিজ এলাকার বাইরের আসন হতে নির্বাচন করতে যাচ্ছেন। কি হবে নির্বাচনের সমীকরন!  তা মেলাতেই ব্যস্ত জনগন । চায়ের কাপে ঝর বইছে যেন!  তবে শেষতক বি এনপির নীতি নির্ধারনী মহল সিরাজের গুরুত্ব বোঝায় খুশি বগুড়াবাসী।।

বসে নেই আওয়ামীলীগ। বলা যায়, বি এনপি দূর্গ বগুড়া এখন আওয়ামীলীগের দখলে। সেই দুর্গের ছিটেফোটাও দখলে রাখতে মরিয়া বিএনপি ।

গতমঙ্গলবার বিএনপি চেয়ারপারসনের গুলশান কার্যালয় থেকে ফোন করে তাকে চূড়ান্ত মনোনয়নপত্র নেয়ার জন্য বলা হয়েছে।জিএম সিরাজ সাংবাদিকদের বলেন, গুলশান কার্যালয়ে থেকে ফোন করে তাকে চূড়ান্ত মনোনয়নপত্র নেয়ার জন্য বলা হয়েছে৷ দু’একদিনের মধ্যে দলীয় মনোনয়ন নিতে তিনি ঢাকায় যাবেন। তিনি আরও বলেন, নির্বাচনের জন্য সব ধরনের প্রস্তুতি আছে। আশা করছি ধানের শীষ বিপুল ভোটে জয়লাভ করবে।

বগুড়া-৬ আসনের উপনির্বাচনে সিরাজ ছাড়াও দলীয় মনোনয়ন ফরম জমা দেন পৌরসভার মেয়র অ্যাডভোকেট একেএম মাহবুবর রহমান ও জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি রেজাউল করিম বাদশা। বাছাই শেষে সোমবার মাহবুবরের মনোনয়নপত্র বাতিল করেন রিটার্নিং অফিসার। তবে সিরাজ ও বাদশার মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করা হয়।

উল্লেখ্য,  ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বগুড়া-৬ আসন থেকে জয়লাভ করেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। নির্ধারিত সময়ে তিনি সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ না নেয়ায় আসনটি শূন্য ঘোষণা করেন স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। ৮ মে বগুড়া-৬ আসনের উপনির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। তফসিল অনুযায়ী ৩ জুন প্রার্থিতা প্রত্যাহার, প্রতীক বরাদ্দ ৪ জুন এবং ২৪ জুন ভোট অনুষ্ঠিত হবে।

ফাইট হবে নৌকার সাথে । ধানের শীষ না নৌকা! উৎকন্ঠার শেষ হবে ২৪ জুন।সে পর্যন্ত চায়ের কাপে ঝড় তুলুক বগুড়াবাসী।

ক্রাইম ডায়রি///জেলা///রাজনীতি

5673total visits,124visits today

টিকিট বিক্রিতে নানাবিধ অনিয়মের অভিযোগঃ কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে দুদকের অভিযান

আতিকুল্লাহ আরেফিন রাসেলঃঃ

সারাদেশে ধারাবাহিক অভিযানের অংশ হিসেবে আজও দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে অভিযান পরিচালনা করেছে দুদক। কমলাপুর রেলস্টেশনসহ আজ চারটি স্থানে  অভিযান পরিচালনা করেছে দুদক।। টিকিট বিক্রিতে নানাবিধ অনিয়মের অভিযোগে কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে অভিযান পরিচালনা করেছে দুদক। আসন্ন ঈদুল ফিতর উপলক্ষে অগ্রিম টিকিট বিক্রির আজই প্রথম দিন। কিন্তু ভুক্তভোগী গ্রাহকরা দুদকে অভিযোগ করেন, সার্ভারে ত্রুটির কারণে অনলাইনে তাঁরা টিকিট কাটতে পারছেন না। এ প্রেক্ষিতে পুলিশসহ আট সদস্যের এনফোর্সমেন্ট টিম আজ (২২/০৫/২০১৯ খ্রি.) অভিযান পরিচালনা করে। টিম স্টেশনে আগত টিকেটপ্রত্যাশীদের সাথে কথা বলে। অনেক যাত্রী অভিযোগ করেন, গতকাল রাত থেকে দাঁড়িয়ে লাইনের একেবারে সামনে থাকা সত্ত্বেও শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত টিকেট পাওয়া যাচ্ছে না। ফলে এক্ষেত্রে সার্ভারে কারচুপি হয়ে থাকতে পারে জানিয়ে তাঁরা দুদককে খতিয়ে দেখতে অনুরোধ করেন।

দুদক টিম অনলাইনে টিকিট বিক্রয়কারী প্রতিষ্ঠান সিএনএস এর মহাপরিচালক শামীমুল আলমের সাথে কথা বলে। তিনি বলেন, প্রচুর গ্রাহকের চাপ থাকার কারণে সার্ভারে সমস্যা হচ্ছে। দুদক টিম সার্ভারে কোনরূপ কারচুপি/দুর্নীতির মাধ্যমে যেন টিকিট কেটে রাখা না হয় সে বিষয়টি নিশ্চিত করার জন্য পরামর্শ প্রদান করেন। এছাড়াও টিম স্টেশন ম্যানেজারের সাথে কথা বলে এবং টিকেট কালোবাজারির বিষয়ে সতর্ক থাকতে তাকে অনুরোধ করে। উপস্থিত জনসাধারণ দুদকের এ অভিযানকে স্বাগত জানান।

ক্রাইম ডায়রি//ক্রাইম//দুদক বিট

5673total visits,124visits today